যুক্তরাজ্য

রেবেকা লংবেইলি লেবার লিডার হলে অন্তত ৫০ জন এমপি দল ত্যাগ করবেন

ব্রিটবাংলা ডেস্ক : লেবার পার্টির লিডার পদে শেডো বিজনেস সেক্রেটারী এমপি রেবেকা লং বেইলি নির্বাচিত হলে অন্তত ৫০ জন এমপি দল ত্যাগ করবেন বলে জানা গেছে। এর মধ্যে কেউ কেউ লেবার হুইপ ভেঙ্গে স্বতন্ত্র এমপি হিসেবে সংসদে দায়িত্ব পালনের এবং কেউ কেউ সংসদ থেকেই পদত্যাগের প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

লেবার লিডারশীপ নির্বাচন : দলের বিরুদ্ধে পক্ষপাতের অভিযোগ

রেবেকা লং বেইলি কট্টর বামপন্থি এবং জেরেমি সমর্থক তৃনমূল সংগঠন মোমেন্টাম সমর্থিত প্রার্থী। তার প্রতি বিদায়ী লিডার জেরেমি করবিনের পরোক্ষ সমর্থন রয়েছে বলেও মনে করা হয়।

দলের ভেতরে নিয়ন্ত্রন বজায় রাখতে নতুন নেতা নির্বাচনের আগেই লেবার পার্টির শীর্ষ পদে করবিন অনুসারীদের নিয়োগের চেস্টার অভিযোগ

এন্টিসেমিটিজম প্রতিরোধে ব্যর্থতা এবং গত নির্বাচনে গত ৩৫ বছরের মধ্যে সবচাইতে খারাপ ফলাফল করলেও জেরেম করবিনের লিডারশীপকে দশের মধ্যে দশ নাম্বার দিয়েছেন রেবেকা লং বেইলি। এছাড়া দলের লিডার নির্বাচিত হলে প্রতিটি এমপি নির্বাচনের আগে প্রার্থী বাছাই প্রক্রিয়া চালু রাখবেন তিনি। এম মাধ্যমে সিটিং এমপিদের প্রতি নির্বাচনের আগে প্রার্থীতা রক্ষার জন্যে লড়াই করতে হবে।

লেবার লিডারশিপ নির্বাচন : জেস ফিলিপ সরে গেছেন-দৌঁড়ে এগিয়ে স্যার কিয়ার স্টারমার

লেবার পার্টির লিডারশীপ পদের জন্যে রেবেকা লং বেইলির সঙ্গে লড়ছেন স্যার কিয়ার স্টারমার, লিসা নন্দী এবং এমেলি থর্ণবারী।

লংবেইলি কট্টর বামদের তৃনমূল সংগঠন মোমেন্টাম, শীর্ষবামদের ভারী সংগঠন ইউনাইট, সি ডাব্লিউ ইউ’র সমর্থন নিয়ে ক্যাম্পেইন করে যাচ্ছেন। অন্যদিকে ইউকের বৃহৎ ইউনিয়ন ‘ইউনিসন’ এবং ব্যাপকহারে তৃনমূল লেবার পার্টির (সিএলপি) সমর্থন নিয়ে ক্যাম্পেইন চালিয়ে যাচ্ছেন স্যার কিয়ার স্টারমার। গত নির্বাচনে জেরেমি করবিনের নেতৃত্বে লেবারকে ভোট না দিলেও উত্তর ইংল্যান্ড এবং মিডল্যান্ডসের লেবারঘাটি বলে পরিচিত শহরগুলোর তৃনমূল লেবার শক্তি যোগাচ্ছে লিসা নন্দীর ক্যাম্পেইনে। আর বড় কোন ইউনিয়নের সমর্থন আদায়ে সক্ষম না হলেও তৃনমূলের সমর্থনে এখনো ক্যাম্পেইনে আছেন এমিলি থর্নবারি ।

আগামি ৪ এপ্রিল প্রকাশিত হবে লেবার পার্টির লিডারশীপ নির্বাচনের ফলাফল।

Related Articles

Back to top button