কমিউনিটি

শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন সাংবাদিক ইসহাক কাজল

ব্রিটবাংলা ডেস্ক : প্রবীন সাংবাদিক, মুক্তিযোদ্ধা ওরাজনীতিবিদ ইসহাক কাজলকে রাষ্ট্রীয় সম্মাননায় শেষ বিদায় জানিয়েছে ব্রিটিশ বাংলাদেশী কমিউনিটির সর্বস্তরের মানুষ। শোক, শ্রদ্ধা আর ভালোবাসা জানাতে আসা মানুষের জন্য নামাজে যানাজা শেষে ইসহাক কাজলের লাশ রাখা হয় ব্রিক লেন মসজিদে। সেখানেই শেষবারের মতো প্রিয় মানুষটিকে বিদায় জানান তার সহকর্মী ও রাজনৈতিক সহযোদ্ধারা।

প্রবীণ সাংবাদিক, লেখক ও বীরমুক্তিযোদ্ধা ইসহাক কাজলের নামাযে জানাযায় অংশ নিতে জড়ো হয়েছিলেন তার পরিবারের সদস্য, সহকর্মী, রাজনৈতিক সহযোদ্ধা সহসর্বস্তরের কমিউনিটির মানুষ।

সহকর্মীর মৃত্যুতে সাপ্তাহিক জনমতে শোক বই খোলা হয়। তাতে স্বাক্ষর করছেন টাওয়ার হ্যামলেটসের নির্বাহী মেয়র জন বিগসের কমিউনিকেশন অফিসার মনসুর উদ্দিন। 

দুই হাজার সাল থেকে লন্ডনে বসবাসশুরু করলেও ষাটের দশকে থেকে সাংবাদিকতা শুরু ইসহাক কাজলের, সাংবাদিকতা ছাড়াও রাজনীতিতে সম্পৃক্ত ছিলেন ইসহাক কাজল। সিলেটের চা শ্রমিকদের দাবী আদায় থেকে শুরু করে প্রবাসে তেল গ্যাস আন্দোলনের সক্রিয় ছিলেন একুশেপদক পাওয়া এই গুনী সাংবাদিক। মুক্তিযোদ্ধা ইসহাক কাজলের মৃত্যুতেশোক বানী দিয়ে রাষ্ট্রীয় সম্মাননা জানাতে সকল আয়োজন করেছে বাংলাদেশ হাইকমিশন লন্ডন।

বৃকলেন জামে মসজিদে শেষ শ্রদ্ধানিবেদনের পর মরহুম ইছহাককাজলকে কবরস্থানে দাফন করা হয়।

বীর মুক্তিযোদ্ধা, যুক্তরাজ্য প্রবাসী প্রবীন সাংবাদিক, লেখক ও রাজনীতিক ইসহাক কাজল গত ১০ ফেব্রুয়ারি, সোমবার বিকেল ৫টা ২৫ মিনিটের দিকে ইস্ট লন্ডনের রমফোর্ডের কুইন্স হাসপাতালে চিকিতসাধীন অবস্থায় শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ দোরারোগ্য ব্যাধি ক্যান্সারে ভুগছিলেন।

সাংবাদিক ইসহাক কাজল আর নেই

মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, তিন মেয়ে, এক ছেলে, নাতি-নাতনিহর অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছে। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭২ বছর। নিবেদিত প্রাণ সাংবাদিক এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসহাক কাজলের জন্ম মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার পতনউষার গ্রামে। সাংবাদিক ও লেখক ইসহাক কাজলের সর্বমোট ষোলটি বই প্রকাশিত হয়েছে। চলতি বছরের একুশে বই মেলায় ইসহাক কাজলের বই এসেছে।
২০১৩ সালে তিনি বাংলা একাডেমী প্রবাসী লেখক পুরস্কার পান। একই বছর চ্যানেল এস মুক্তিযোদ্ধা সম্মাননা প্রদানেও তাঁকে ভুষিত করা হয়। বিলেতে তিনি প্রাচীনতম সাপ্তাহিক জনমতের পলিটিক্যাল এডিটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। তিনি দীর্ঘ দিন লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের নির্বাহী কমিটিতে দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও তিনি ওয়ার্কার্স পার্টির রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন এবং বাংলাদেশ তেল-গ্যাস ও খনিজ সম্পদ রক্ষা আন্দোলন কমিটির জাতীয় পর্যায়ে নেতৃত্ব দেন।

সাংবাদিক ইসহাক কাজলের জানাজা বুধবার : হাইকমিশনের শোক

এদিকে বিলেতের বরেন্য সাংবাদিক ইসহাক কাজলের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে/ শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন, চ্যানেল এসের ফাউন্ডার মাহি ফেরদৌ জলিল, চ্যানেল এসের চেয়ারম্যান আহমেদ উস সামাদ চৌধুরী জেপি, সাপ্তাহিক জনমতের প্রধান সম্পাদক সৈয়দ নাহাশ পাশা এবং সম্পাদক নবাব উদ্দিন, লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাব সভাপতি এমদাদুল হক চৌধুরী এবং সেক্রেটারী মোহাম্মদ জুবায়ের।

 

Related Articles

Back to top button