প্রবাস

ফ্রান্সে প্রবাসী বাংলাদেশী ব্যবসায়ীদের নিরাপত্তা জোরদার করার দাবি

ব্রিট বাংলা ডেস্ক :: ফ্রান্সে ভিনদেশিদের হাতে প্রবাসী বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা প্রতিনিয়ত চুরি, ছিনতাই এবং নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। এর প্রতিবাদে ২০১৯ সালে প্যারিসের মেয়র এবং পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সাথে বৈঠক হয় ফ্রান্স বাংলাদেশ ইকনোমিক চেম্বারের আয়োজনে। এর সঙ্গে ছিল ফ্রান্স বাংলাদেশ বিজনেস কো-অপারেটিভ অ্যান্ড ফেডারেশন। এর পর ফ্রান্স পার্লামেন্টারিয়ান সদস্য দানিয়াল ওবনোর সাথে সরাসরি বৈঠক করে (BCF) নামের একটি বাংলাদেশী সংগঠন। এর ধারাবাহিকতায় বাাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতির দাবি জানিয়ে স্থানীয় উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও পুলিশ প্রধানের সাথে বৈঠক করেছেন বাংলাদেশি ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ ।
সোমবার প্যারিসের অভারভিলা মেরির হলরুমে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে পুলিশ প্রধান বলেন, যেকোনো ধরনের ছিনতাই ,ডাকাতি কিংবা এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটার সাথে সাথে স্থানীয় পুলিশকে বিষয়টি অবগত করবেন, যাতে আমাদের তথ্য পেতে সহজ হয়। প্রবাসী বাংলাদেশীরা যখনই কোন নির্যাতনের শিকার হবেন তখনই তাদের বৈধ কাগজ আছে কিনা সেটা দেখার বিষয় না, তাদেরকে পুলিশের কাছে যেতে হবে এবং অভিযোগ দাখিল করতে হবে। অবৈধ যে ব্যক্তি আক্রমণের শিকার হবেন তারও অধিকার রয়েছে পুলিশের কাছ থেকে সহযোগিতা পাওয়ার। তার বৈধ কাগজ নেই বলে পুলিশ তাকে সহযোগিতা করবে না এমন ভয় পাওয়ার কোন কারণ নেই। মেয়র মি: অন্তনি দাগে আত্মরক্ষার স্বার্থে ব্যবসায়ীদের বলেন যে, ব্যবসায়ীদের যে টাকাগুলো ব্যাংকে জমা রাখেন, তা থেকে একসাথে বেশি টাকা না রেখে অল্প অল্প করে এবং এক ব্যক্তিকে বার বার ব্যাংকে না পাঠিয়ে ভিন্ন ব্যক্তিকে ব্যাংকে পাঠানোর মাধ্যম অবলম্বন করলে এতে ছিনতাইকারীর কাছ থেকে অনেকটা নিজেদের আত্মরক্ষা করা সম্ভব।

আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে এবং প্রবাসীদের নিরাপত্তা দেয়ার জন্য যা যা করা প্রয়োজন প্রশাসন তাই করবে। কিন্তু, প্রবাসীদের কিছু সচেতন হওয়া উচিত বলে মনে করেন। পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা প্রবাসীদের উপস্থিতি পুরুষ সবাই দেখে ভবিষ্যতে কনফারেন্সে নারীদের সম্পৃক্ত করার জন্য উপদেশ দেন।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন প্রথম সহকারি মেয়র মি: অন্তনি দাগে, প্রধান পুলিশ কমিশনার ম্যাডাম ফোরমিগুয়ে এবং সহকারি পুলিশ কমিশনার মি: খাবিয়ে লো বিহান, ব্যবসায়ী প্রতিনিধি হিসেবে শাহিন আরমান চৌধুরী, ফ্রান্স আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এমএ কাশেম, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন কয়েছ, উদীচীর ফ্রান্স সংসদ সভাপতি কিরনময় মন্ডল, সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন হাওলাদার সহ অন্যরা। পরিশেষে প্রবাসীদের উদ্দেশ্যে ব্যবসায়ী নেতা শাহীন আরমান চৌধুরী বলেন, আমাদের যদি এই দাবি বাস্তবায়ন না হয় তাহলে পর্যায়ক্রমে দেশের প্রত্যেকটি মেরির মেয়রের সাথে এরকম বৈঠক করা হবে এবং পর্যায়ক্রমে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আমরা যেতে বাধ্য হবো।

উল্লেখ্য দীর্ঘদিন থেকে বাংলাদেশি অধ্যুষিত ক্যাথসিমা, অভারভিলা, সেইন্ট ডেনিস সহ অন্যান্য এলাকায় ছিনতাইয়ের শিকার হয়ে আসছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। স্থানীয় পুলিশের কাছে অভিযোগ করেও কোনো প্রতিকার পাননি তারা।

Related Articles

Back to top button