খেলাধুলা

কেন্দ্রীয় চুক্তিতে পরিবর্তনের ইঙ্গিত আকরামের

ব্রিট বাংলা ডেস্ক :: বিসিবি ঘোষিত কেন্দ্রীয় চুক্তিতে নেই সৌম্য সরকার। এ নিয়ে শুরু হয়েছে আলোচনা সমালোচনা। তবে বিকালেই জানা গেল ভুল করে তার নাম বাদ পড়েছে চুক্তির তালিকা থেকে। বিষয়টি স্বীকার করে নিয়েছেন জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু। দৈনিক মানবজমিনকে তিনি বলেন, ‘আসলে টাইপ করার সময় একটা ভুল হয়েছে। তাই সৌম্যের নামটি বাদ পড়েছে। ও তালিকাতেই ছিল।’ তবে আগের দিন কেন্দ্রীয় চুক্তি ঘোষণার সময় বিসিবি সভাপতি জানিয়েছেন ১৬ জনকে কেন্দ্রীয় চুক্তিতে রাখা হয়েছে। এর মধ্যে ‘এ’ ‘বি’ ও ‘সি’ ক্যাটাগরির ১৪ জন ও নতুন সংযোজিত ‘ডি’ ক্যাটাগরিতে ২ জন। সেই অনুসারে যে তালিকা প্রকাশ করা হয় সেখানে সৌমের নাম ছিল না।

তার মানে চুক্তিতে এখন ১৭ জন! কারণ প্রধান নির্বাচক জানিয়েছেন যে তালিকা দেয়া হয়েছে তাতে পরিবর্তন আসবেনা।
অন্যদিকে ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান আকরাম খান জানিয়েছেন তালিকাটি নির্বাচকের দেয়া। এই বিষয়ে তারা কিছু জানেন না। এর মানে ভুলটা হয়েছে নির্বাচকদের পক্ষ থেকেই। শুধু তাই নয়, ফর্মে থাকা পেসার শফিউল ইসলামকেও রাখা হয়নি তালিকাতে। আকরাম বলেন, ‘আসলে তালিকাটি নির্বাচকরা দিয়েছে। আমরা জানি না কেন এমন হয়েছে। তবে আলোচনা চলছে কেন্দ্রীয় চুক্তিতে কিছু পরিবর্তন আসবে।’ আকরাম খানের বক্তব্যে স্পষ্ট নির্বাচকদের দেয়া তালিকাতে কিছুটা হলেও অসঙ্গতি আছে। বিশেষ করে যদি পারফরম্যান্স বিবেচনা করা হয় তাহলে সাদা বলের ক্রিকেটে শফিউলের বাদ পড়ার কথা নয়। ২০১৯-এ দলে ফিরে এই পর্যন্ত ৪ ওয়ানডে খেলার সুযোগ হয় শফিউলের। সেখানে দুই ম্যাচে ৩ করে ৬টি উইকেট নেন শফিউল। সবশেষ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে নেন এক উইকেট। এছাড়াও গেল বছর থেকে এখন পর্যন্ত ৮টি টি-টোয়েন্টি খেলেছেন। সেখানে ৭ ম্যাচে তার শিকার ১১ উইকেট।

অন্যদিকে তিন ফরম্যাটেই কেন্দ্রীয় চুক্তিতে আছেন তামিম ইকবাল, লিটন দাস, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহীম, মোহাম্মদ মিঠুন, তাইজুল ইসলাম ও মেহেদী হাসান মিরাজ। এখানে আপত্তি থাকতে পারে তরুণ ব্যাটসম্যান শান্তকে নিয়ে। পারফরম্যান্স বিবেচনায় তিন ফরম্যাটে তাকে রাখা নিয়ে সামালোচনা হতেই পারে। এখন পর্যন্ত ৪ টেস্টে তার মোট সংগ্রহ ২০১ রান। ২০১৮’র পর এই বছর খেলেছেন মাত্র দুই টেস্ট সেখানে একটি মাত্র ফিফটি জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। ওয়ানডেতে খেলেছেন ৫ ম্যাচ সেখানে তিনি করেছেন মাত্র ৫৫ রান। এই বছর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দলে ফিরে দুই ম্যাচে করেছেন মাত্র ৩৫ রান। গেল বছর ২টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে সুযোগ পেয়ে করেছেন মাত্র ১৬ রান। এছাড়াও শুধু লাল বলের চুক্তিতে মুমিনুল হক, নাঈম হাসান, আবু জায়েদ রাহী ও ইবাদত হোসেন। আর শুধু সাদা বলের চুক্তিতে আছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, মোস্তাফিজুর রহমান, আফিফ হোসেন ও মোহাম্মদ নাঈম শেখ।

Related Articles

Back to top button