যুক্তরাজ্য

নন-ইইউ দেশের এনএইচএস স্টাফ এবং কেয়ার ওয়ার্কাদের এনএইচএস ফি বাতিলে বাধ্য হলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

ব্রিটবাংলা ডেস্ক : দলীয় হাইকমান্ড এবং এমপিদের চাপে নন-ইইউ দেশের হেলথ এন্ড কেয়ার ওয়ার্কাদের এনএইচএস ফি বাতিলের সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। প্রধানমন্ত্রী এই বাতিলের পক্ষে ছিলেন না। বরং আগামী অক্টোবরে এই ফি ৪শ পাউন্ড থেকে বাড়িয়ে ৬২৪ পাউন্ড করার পক্ষে ছিলেন তিনি। কিন্তু পার্লামেন্টের তিনটি সিলেক্ট কমিটির কনজারভেটিভ দলীয় চেয়ারম্যান এবং দলের পেছনের সাড়ির এমপিদের চাপে বৃহস্পতিবার বিকেল ৮টায় এনএইচএস এবং কেয়ার ওয়ার্কারেদর জন্যে হাততালিতে অংশ নেবার আগেই হোম অফিস এবং হেলথ ডিপার্টমেন্টকে যতোটা সম্ভব দ্রুততার সাথে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নভুক্ত দেশের বাইরের দেশগুলো থেকে আসা এনএইচএস এবং কেয়ারওয়ার্কারদের উপর আরোপিত এনএইচএস ফি প্রত্যাহারের নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

কনজারভেটিভ পার্টির সাবেক এক চেয়ারম্যান বলেছেন, একদিকে তাদের জন্য হাততালি অন্যদিকে তাদের উপর এনএইচএসের চার্জ আরোপ করা হবে দানবীয় কাজ।

এদিকে নন ইইউ দেশগুলোর এনএইচএস স্টাফ এবং কেয়ারওয়ার্কারদের উপর এনএইচএস ফি বা চার্জ আরোপ  প্রত্যাহারের দাবী সর্ব প্রথম পার্লামেন্টে উত্থাপন করেছিলেন লেবার দলের নেতা স্যার কিয়ার স্টারমার। প্রধানমন্ত্রী প্রথমে স্যার স্টারমারের দাবী প্রত্যাখ্যান করলেও পরে দলের এমপিদের চাপে সেই দাবী বাস্তবায়নে সন্মত হন। ফলে এতে লেবার নেতা স্যার কিয়ার স্টারমারের জয় হয়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে।

এদিকে লেবার নেতা স্যার কিয়ার স্টারমার এক প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সিদ্ধান্ত বদলের মাধ্যমে যে জয় নিশ্চিত হয়েছে তা সময়োপযোগী এবং স্বাভাবিক। কারণ একদিকে তাদের সেবার প্রতি সম্মান দেখাতে গিয়ে হাততালি দিবেন আর অন্যদিকে তাদের উপর চার্জ বসাবেন তা হতে পারে না। প্রধানমন্ত্রীর ইউটার্নকে স্বাগত জানিয়েছেন স্যার কিয়ার স্টারমার।

 

Related Articles

Back to top button