সিলেট

বিয়ানীবাজারে ১০ শয্যার করোনা আইসোলেশন সেন্টারের উদ্বোধন

সিলেট অফিস : সিলেটের বিয়ানীবাজার সরকারী হাসপাতালে ১০ শয্যার করোনা আইসোলেশন সেন্টার এর আনুষ্টানিক উদ্বোধন করা হয়েছে। ভিডিও লাইভে সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি বুধবার সকালে এর আনুষ্টানিক উদ্বোধন করেন।
আর এই উদ্বোধনের মাধ্যমে সিলেটের উপজেলা পর্যায়ের প্রথম পুর্ণাঙ্গ করোনা আইসোলেশন সেন্টার হিসেবে রুপ লাভ করলো বিয়ানীবাজার সরকারী হাসপাতাল । এখন থেকে এই হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত রোগীরা ভর্তি হয়ে অক্সিজেন থেকে শুরু করে সকল ধরণের সেবা গ্রহণ করতে পারবেন।
জালালাবাদ এসোসিয়েশন ইউকের সাথে যুক্ত হয়ে বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকে ( নাজিম-টিপু-শিপন) এবং বিয়ানীবাজারের প্রবাসীরা এই আইসোলেশন সেন্টারের সকল ব্যয় ভার গ্রহণ করেন।
জালালাবাদ এসোসিয়েশন ইউকের বাংলাদেশ প্রতিনিধি সাংবাদিক এম হাসানুল হক উজ্জ্বল জানান, সিলেটের খাদিম ও দক্ষিন সুরমায় ৫০ শয্যার আইসোলেশন সেন্টার করার উদ্যোগ গ্রহণ করে কিডনি ফাউন্ডেশন আর তাতে সহযোগিতার হাত বাড়ায় জালালাবাদ এসোসিয়েশন। এরপর সংগঠনের সভাপতি মুহিবুর রহমান মুহিব ১০ শয্যার আইসোলেশন সেন্টার উপজেলা পর্যায়ে করা যায় কিনা এ বিষয়ে খোঁজ খবর নেন এবং বিয়ানীবাজারে ১০ শয্যার আইসোলেশন সেন্টার করার প্রক্রিয়া চুড়ান্ত করেন।
বুধবার সকালে আনুষ্ঠানিক ভাবে আইসোলেশন সেন্টার উদ্ভোধন উপলক্ষ্যে বিয়ানীবাজার সরকারী হাসপাতালের হল রুমে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে স্বাস্হ্য বিভাগ।
উপজেলা স্বাস্হ্য কর্মকর্তা মোয়াজ্জেম আলী খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ভিডিও কলের মাধ্যমে এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি।
বিশেষ অথিতির বক্তব্য রাখেন বিয়ানীবাজার পৌরসভার মেয়র আব্দুস শুকুর, বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান জামাল হোসেন, কুড়ারবাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু তাহের, মুল্লাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান, যুক্তরাজ্য প্রবাসী আলহাজ্ব বাজিদুর রহমান, লায়ন বিলাল আহমদ, বিয়ানীবাজার প্রেসক্লাবের সেক্রটারী মিলাদ মো: জয়নুল ইসলামসহ আরো অনেকে। অনুষ্টান পরিচালনা করেন ডা: আবু ইসহাক আজাদ।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত সাংবাদিক এম. হাসানুল হক উজ্জ্বল জানান, বিয়ানীবাজার সরকারী হাসপাতাল আইসোলেশন সেন্টার পরিচালনার জন্য হাসপাতাল কতৃপক্ষ্যের চাহিদা মতো ৩ টি অত্যাধুনিক অক্সিজেন কন্সেনটেটর, পালস অক্সিমিটার, ৩টি গরম পানির ইলেকট্রনিক ক্যাটলি, ১০ টি ফ্লাক্স, ১০০ পিপিই, এন ৯৫ মাক্স, ফেস ফিল্ড,গগলস, হ্যান্ড গ্লাভসসহ ১৩ আইটেমের সুরক্ষা সামগ্রী ছাড়াও জালালাবাদ এসোসিয়েশন ইতালির সৌজন্যে একটি হুইল চেয়ার প্রদান করা হয়। এছাড়াও আইসোলেশন সেন্টারে দায়িত্ব পালনের জন্য ১ জন আয়া ও ১ জন ওয়ার্ড বয় এর বেতন জালালাবাদ এসোসিয়েশন বহন করবে। এছাড়াও করোনা উপসর্গ নিয়ে পরিক্ষা করাতে আসা গরীব রোগীদের সরকারী ফি ও জালালাবাদ এসোসিয়েশন বহন করবে।
উদ্বোধনকালে সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি এই মহত কাজে জালালাবাদ এসোসিয়েশন এগিয়ে আসায় এসোসিয়েশনের প্রেসিডন্ট মুহিবুর রহমান সেক্রেটারী আমিনুল হক জিলুসহ প্রবাসীদের সাধুবাদ জানান।

Related Articles

Back to top button