যুক্তরাজ্য

বিমানে অস্ত্র ফেলে গেলেন ব্রিটিশ ফরেন সেক্রেটারীর বডিগার্ড

ব্রিটবাংলা ডেস্ক : মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সফর থেকে ফেরার পথে শুক্রবার লন্ডনে হিথরো বিমান বন্দরে ইউনাইটেড  এয়ার লাইন্সের বিমানের সিটের উপর লোডেড জি১৯ পিস্তল ফেলে যান ব্রিটিশ ফরেন সেক্রেটারী ডমিনিক রাবের বডিগার্ড।

যাত্রী শূন্য বিমান পরিস্কার করতে গিয়ে ক্লিনার অস্ত্রটি বিমানের সিটের উপর দেখতে পেয়ে সিকিউরিটি ডাকেন। পরবর্তীতে পুলিশ এসে অস্ত্রটি উদ্ধার করে নিয়ে যায়। অস্ত্রটি ব্রিটিশ ফরেন সেক্রেটারীর বডিগার্ডের অস্ত্র বলে নিশ্চিত হবার তাৎক্ষনিকভাবে ওই বডিগার্ডকে সমায়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে।

উল্লেখ্য বড় ধরনের ভিন্ন দু’টি চাপ মোকাবিলা করে যাচ্ছে ব্রিটিশ সরকার। মহামারী করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ঠেকানো এবং ব্রেক্সিট। করোনা সংক্রমন ঠেকাতে নতুন করে লকডাউন এবং টেস্টিং কিট সমস্যার সমাধানে ব্যাপকভাবে সমালোচিত হচ্ছে বরিস সরকার। অন্যদিকে ৩১ ডিসেম্বর শেষ হবে ব্রেক্সিটের ট্রান্জেশন পিরিয়ড। তাই অক্টোবরের আগেই ইইউর সঙ্গে পরবর্তী সম্পর্ক কি হবে তা চুড়ান্ত করতে হবে ব্রিটেনকে। এর ভেতরে কোন চুক্তিতে না যেতে পারলে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের সিঙ্গেল মার্কেট এবং কাস্টম ইউনিয়ন থেকে একেবারেই ছিটকে পড়বে ব্রিটেন।

এ নিয়ে মার্কিন সরকারের সঙ্গে আলোচনার জন্যে শুক্রবার ওয়াশিংটন সফরে গেছেন ব্রিটিশ ফরেন সেক্রেটারী ডমিনিক রাব। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প চুক্তিবিহীন ব্রেক্সিটের জন্যে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে সমর্থন করে যাচ্ছেন। অন্যদিকে সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার দল ব্রেক্সিটের বিপক্ষে এমন কি বর্তমান ডেমোক্রেট প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জো বাইডেন অবশ্য সতর্ক করেছেন চুক্তিবিহীন ব্রেক্সিট দু দেশের বানিজ্যক সম্পর্কের অবনতি ঘটাবে। আগামি ৩রা নভেম্বর মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডনাল্ড ট্রাম্প পুনরায় ক্ষমতায় আসলে সমস্যা নেই কিন্তু জো বাইডেন ক্ষমতায় আসলে কিছুটা সমস্যা মোকাবিলা করতে হতে পারে বরিস সরকারকে।

Related Articles

Back to top button