খেলাধুলা

খেলা পাগল এক সাহার মিয়ার কথা

এহসানুল ইসলাম চৌধুরী শামীম ॥ হাজী সাহার মিয়া সিলেটের নাম করা একজন ক্রীড়া সংগঠক। সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে বিভিন্ন সময় ছিলেন। তিনি সংক্ষিপ্ত সফরে ব্রিটেনে এসেছিলেন। তার বড় ছেলে ব্রিটেনের নর্থাম্পটনের বাসিন্দা ভালো ব্যাডমিনটন খেলোয়াড় শাহ মোশতাক আহমদ। সেখানে সাহার মিয়া বেশ কিছু দিন ছিলেন। হাজী সাহার মিয়া ১৯৭৮ সাল থেকে ২০০২ সাল পর্যন্ত সিলেটের লাউয়াই স্পোর্টিং ক্লাবের সভাপতি ছিলেন। ২৪ বছর সভাপতি থাকাকালীন সময়ে ১৯৮২ সালে লাউয়াই স্পোর্টিং ক্লাব চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলো।সে সময়ে সাহার মিয়া সিলেটে প্রথম বিদেশী খেলোয়াড় তার দলে এনে চমক দেখিয়েছিলেন। সে সময় তার দলে খেলেছিলেন শ্রীলংকার এক সময়ের নামকরা খেলোয়াড় পাকির আলী ও প্রেম লাল। এদের ফুটবল খেলা কেউ ভুলতে পারেনি এখনো। সাহার মিয়া এ প্রতিবেদকের সাথে আলাপ কালে বলেন, “আমি সিলেটে প্রথম বিদেশী খেলোয়াড় এনেছিলাম আমার দল লাউয়াই হয়ে সিলেট লীগে খেলার জন্য। তখন আমার দল চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলো।এর পর থেকে সিলেট লীগে বিদেশী ফুটবলাররা খেলেছেন।” তিনি বলেন, “তখন পাকির আলী ও প্রেম লালকে মাত্র ১ হাজার টাকা করে দিয়েছিলাম।” তিনি বলেন, “আগে ফুটবল খেলা দেখার জন্য গ্যালারী ভরা দর্শক থাকতো। কিন্তু এখন আর আগের মতো দর্শক পাওয়া যায় না। তাই খুব খারাপ লাগে।”
সিলেটের লাউয়াই স্পোর্টিং ক্লাবের মতো একটি গ্রামের ফুটবল দলকে সিলেট জেলা পর্যায়ে পৌছানোর জন্য সাহার মিয়ার অবদান অনস্বীকার্য। এ প্রতিবেদককে বললেন, “আমি খেলা পাগল এক জন মানুষ। খেলার জন্য সব সময় সাদা লুঙ্গি পড়ে যেতাম। দিন নেই রাত নেই এমন কোনো দিন স্টেডিয়ামে গেছি না বলে আমার মনে হয় না। আমার বেশীর ভাগ সময় সিলেট স্টেডিয়ামে কাটতো।”  দিন রাত ফুটবল নিয়ে ভাবতেন। অনেক ফুটবল খেলোয়াড় তৈরী করেছেন সাহার মিয়া।
সংবর্ধনা অনুষ্ঠান প্রসঙ্গে সাহার মিয়া বলেন, আমাকে আজ গ্রেটার সিলেট এক্স ফুটবলার এসোসিয়েশন ইউকে যে সংবর্ধনা দিয়েছে তার জন্য আমি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। সকলেই আমার জন্য দোয়া করবেন।

*ঘুরে গেলেন তারকা ফুটবলাররা*

ব্রিটেনের নর্থাম্পটন ঘুরে গেলেন ঢাকা ও সিলেটে জেলা দলের এক সময়ের তারকা ফুটবলাররা।
নর্থাম্পটনে যে সব ফুটবলাররা ঘুরে গেলেন তারা হলেন জালাল আহমদ, মাহতাব উদ্দিন, সাব্বির আহমদ চৌধুরী ও ফেরদৌস। তারা ব্রিটেনের বিভিন্ন শহর থেকে মংগল বার নর্থাম্পটনে এসেছিলেন সিলেটের প্রথম বিভাগ ফুটবল লীগের ঐতিহ্যবাহী লাউয়াই স্পোর্টিং ক্লাবের সাবেক সভাপতি হাজী সাহার মিয়ার সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দিতে।
*জালাল আহমদ*
১৯৮৪ সালে ঐতিহ্যবাহি টিলাগড় ক্লাবের হয়ে সিলেট প্রথম বিভাগ লীগে অভিষেক ঘটে ফুটবলার জালালের। পরের বছর হতে ১৯৯৬ পর্যন্ত ১১ বছরের মধ্যে ১৯৮৯ সালে লীগ চ্যাম্পিয়ন সিলেট মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের হয়ে খেলা ছাড়া সবকটি বছর গ্লোরিয়ার্সে কেটেছে তাঁর সফল ক্যারিয়ার।
১৯৮৮ হতে ঢাকা প্রথম বিভাগ লীগে টানা ৫ বছর জালাল আহমদ খেলেছেন মুক্তিযোদ্ধা ক্রীড়া চক্রে। জালাল এখন ব্রিটেনের লেস্টার সিটিতে বসবাস করছে। তিনি গ্রেটার সিলেট এক্স ফুটবল এসোসিয়েশন এর সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন।
এছাড়া মাহতাব উদদীন আশি দশকে
সিলেট জেলা ফুটবল দলের ও গ্লোরিয়ার্সের ভালো ডিফেন্ডার ছিলেন।
তাছাড়া সাব্বির আহমদ চৌধুরী ও ফেরদৌস সিলেট লীগে গ্লোরিয়ার্সের ফুটবলার ছিলেন।
গ্রেটার সিলেট এক্স ফুটবলার এসোসিয়েশন ইউকের সভাপতি জালাল আহমদ বলেছেন,সাহার মিয়াকে আমরা সংবর্ধন দিতে পেরে খুবই আনন্দিত।

Related Articles

Back to top button