যুক্তরাজ্য

ব্রিটিশ হোম সেক্রেটারীর বক্তব্যের পর বর্ণবাদী হামলার লক্ষ্যে ইমিগ্রেশন সলিসিটররা : Lawyers claim knife attack at law firm

ব্রিটিশ বাংলাদেশী আইনজীবীদের প্রতিবাদ

ব্রিটবাংলা ডেস্ক : নির্বাচনে দেওয়া প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী অভিবাসী নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হয়ে এবার অভিবাসীদের সহায়তা প্রদানকারী আইনজীবি এবং মানবাধিকার কর্মীদের পেছনে লেগেছেন ব্রিটিশ হোম সেক্রেটারী প্রীতি পাটেল। বক্তব্যের মাধ্যমে অভিবাসন বিরোধী বর্ণবাদীদের  হামলার লক্ষ্যে পরিনত করেছেন ইমিগ্রেশন আইনজীবি এবং মানবাধিকার কর্মীদের।

অবৈধ অভিবাসী অপসারণের ক্ষেত্রে বামপন্থী (লেফটি) এবং হিউম্যান রাইটস আইনজীবিরা হতাশার সৃস্টি করছে বলে কনজারভেটিভ পার্টির কনফারেন্সে হোম সেক্রেটারী প্রীতি পাটেল এবং একই সুরে প্রধানমন্ত্রীর বরিস জনসনের বক্তব্য প্রদানের পর কট্টর মাইগ্র্যান্ট বিরোধীদের হামলার লক্ষ্যে পরিণত হয়েছে ব্রিটেনের ইমিগ্রেশন ‘ল’ ফার্মগুলো। এরিমধ্যে একটি হামলার ঘটনাও ঘটেছে।

গত ৩রা সেপ্টেম্বর, দলীয় কনফারেন্সে হোম সেক্রেটারী বলেছিলেন, অবৈধ অভিবাসী অপরাসনের ক্ষেত্রে হতাশা তৈরী করছে লেফটি আইনজীবিরা। এর দুদিন পর হোম সেক্রেটারীর সঙ্গে সুর মিলিয়ে প্রধান বক্তার বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, পুরো ক্রিমিনাল জাস্টিস সিস্টেম ঘিরে রেখেছিল বামপন্থী এবং মানবাধিকার আইনজীবিরা।

হোম সেক্রেটারী এবং প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের পর গত ৭ সেপ্টেম্বর লন্ডনে একটি ইমিগ্রেশন ল ফার্মে হামলার ঘটনা ঘটেছে। হামলাকারী একটি ছুরি নিয়ে ল ফার্মের রিসিপশনে হামলা চালায়। এসময় সে বর্ণ বিদ্বেষী মন্তব্যও করে। হামলায় ফার্মের রিসিপশনিস্ট আহত হয়েছেন। আর অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পান বাকী চারজন। এ ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সন্দেহে ২৮ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে অভিযুক্ত করেছে পুলিশ।নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে হামলার শিকার ল ফার্মের বিস্তারিত তথ্য প্রকাশ করা হয়নি। ঘটনার একদিন পর লো সোসাইটির পক্ষ থেকে  এক চিঠির মাধ্যমে হোম অফিস এবং জাস্টিস সেক্রেটাসীকে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে।

এছাড়া এসাইলাম সিকার্স আইনজীবীদের অনলাইনে অনবরত হুমকি দেওয়া হচ্ছে বলে একটি প্রতিষ্ঠান অভিযোগ করেছে।

ব্রিটিশ বাংলাদেশী আইনজীবীদের প্রতিবাদ :

এদিকে অবৈধ অভিবাসীদের অপশাসনের সঙ্গে ইমিগ্রেশন আইনজীবি এবং মানবাধিকার কর্মীদের জড়িয়ে হোম সেক্রেটারীর বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছে দ্যা সোসাইটি অব ব্রিটিশ বাংলাদেশী সলিসিটার্স সংক্ষেপে এসএসবি।

সংগঠনের প্রেসিডেন্ট এহসান হক স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে প্রতিবাদ জানিয়ে, হোম সেক্রেটারীকে শব্দ চয়নের ব্যাপারে আরো সতর্ক হবার আহ্বান জানানো হয়। এসএসবি’র প্রতিবাদলীপিটি হোম সেক্রেটারীসহ ব্রিটেনের সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে পাঠানো হয়েছে।

 

Britain’s top lawyers have written to Priti Patel to express their concern after a knifeman threatened to kill an immigration solicitor last month in an attack colleagues say was directly motivated by comments made by the home secretary.

On 7 September a man with a large knife entered a London law firm and launched a “violent, racist attack” that injured a staff member before the assailant was overwhelmed.

A confederate flag and far-right literature were allegedly found in a bag he was carrying. According to documents about the incident, police described the knife as a “weapon designed to cause serious harm”.

 

Days before, on 3 September, Patel dismayed the legal profession by claiming “activist lawyers” were frustrating the removal of migrants.

It was Patel’s remarks which the law firm – not being named for security reasons – believe inspired the incident. “Responsibility and accountability for this attack, in the eyes of this firm, lies squarely at the feet of Priti Patel,” say documents containing witness statements and details of the attack.

The day after the incident, the firm wrote to the Law Society asking it to raise the issue with Patel, government lawyers, the lord chancellor and the Ministry of Justice to “ensure that public attacks on the legal profession are prevented from this point forth”.

On Saturday the Law Society confirmed it sent correspondence last month on the attack to the Home Office and Ministry of Justice.

Patel appears not only to have ignored its concerns but doubled down on her attacks against immigration lawyers.

Last Sunday, almost a month after the knife attack, Patel used her speech at the Conservative party conference to target “do-gooders” and “lefty lawyers,” claiming those who represented asylum seekers were “defending the indefensible”.

Two days later, in his keynote speech, Boris Johnson went even further, claiming the entire criminal justice system was “being hamstrung by lefty human rights lawyers”. It remains unclear to what extent, if any, the PM was aware of the knife attack.

It also emerged that some immigration law firms have been forced to hire security guards and introduce protective measures for staff. One, whose anonymity was granted for safety reasons, said: “We’re not being cowed but we’re taking precautions and have upped security because we have received threats.

“We’ve had to be more vigilant and brought in security in our offices and we’ve had to report certain social media posts and inform the police who have been very supportive.”

The documents on last month’s attack reveal that a receptionist at the firm was “assaulted and wounded” and “a number of our staff members are fortunate to be alive [and] not to have suffered serious injury.” The documents add: “The attack was intended to take the life of a member of the Law Society.”

A 28-year-old man has been charged with possession of, and making threats with, a bladed article in a public place; racially aggravated public disorder; assault; and making threats to kill in connection with the incident. # Source Guardian news.

Related Articles

Back to top button