খেলাধুলা

১৫ বছর পর বলিভিয়ার মাঠে জয় আর্জেন্টিনার

ব্রিট বাংলা ডেস্ক :: সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৩ হাজার ৬০০ মিটার উঁচু ‘লা পাজ’ পৃথিবীর সবচেয়ে উঁচু শহর। বলিভিয়ার রাজধানীতে খেলতে গিয়ে বরাবরই ধুঁকতে হয় আর্জেন্টিনাকে। ২০০৯ সালে লা পাজের এরনান্দো সাইলস স্টেডিয়ামে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে ৬-১ গোলে বিধ্বস্ত হয় লিওনেল মেসির দল। এ ভেন্যুতে গত বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে তারা হেরেছিল ২-০ গোলে। মঙ্গলবারও শুরুতে গোল হজম করায় হারের শঙ্কা জাগে আর্জেন্টাইন শিবিরে। তবে লাওতারো মার্টিনেজ ও হোয়াকিন কোরেয়ার গোলে শেষ পর্যন্ত বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে আলবিসেলেস্তেরা জিতেছে ২-১ গোলে। ১৫ বছর পর বলিভিয়ার মাটিতে জয় দেখলো আর্জেন্টিনা। ২০০৫ সালে সবশেষ জয়টিও ছিল ২-১ গোলের।

ম্যাচের আগেই আর্জেন্টিনার কোচ লিওনেল স্কালোনি বলেছিলেন, কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন তারা।

প্রতিপক্ষের মাঠে আর্জেন্টিনার প্রথম ৩০ মিনিট ছিল ছন্নছাড়া। সপ্তম মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারতো বলিভিয়া। সাউল তরেসের ক্রসে খুব কাছ থেকে হেড লক্ষ্যে রাখতে পারেননি মার্সেলো মোরেনো মার্টিন্স। ২৪তম মিনিটে সেই মার্টিন্সই এগিয়ে দেন বলিভিয়াকে। আলেহান্দ্রো সাউলের চমৎকার ক্রসে হেডে আর্জেন্টিনার জালে বল জড়ান তিনি। গোল হজমের পর খেলার গতি বাড়ায় আর্জেন্টিনা। ৩৬তম মিনিটে লুকাস ওকাম্পোসের শট একজনের গায়ে লেগে দিক পাল্টে একটুর জন্য জড়ায়নি জালে। চার মিনিট পর লেয়ান্দ্রো পারদেসের শট আঘাত হানে পোস্টে। ৪৫তম মিনিটে সৌভাগ্যের ছোঁয়ায় সমতা আনে আর্জেন্টিনা। বাঁ দিক থেকে লাওতারো মার্টিনেজ ক্রস দিয়েছিলেন ওকাম্পোসকে। মাঝপথে বল ঠেকিয়ে দেন বলিভিয়ার কারাসকো। বিপমুক্ত করতে শট নেন তিনি। কিন্তু তার শট মার্টিনেজের পায়ে লেগে ঢুকে যায় জালে।

দ্বিতীয়ার্ধে তুলনামূলক ভালো ফুটবল উপহার দিয়েছে আর্জেন্টিনা। ৬০তম মিনিটে বিপজ্জনক জায়গায় ফ্রি-কিক পান মেসি। যদিও কাজে লাগাতে পারেননি। ৬৭তম মিনিটে এজিকুয়েল পালাসিওসের পাস খুঁজে নেয় মার্টিনেজকে। তার সামনে ছিলেন শুধু বলিভিয়ার গোলরক্ষক। কিন্তু অনেক উপর দিয়ে বল মারেন মার্টিনেজ। ৭৫তম মিনিটে দারুণ সুযোগ মিস করেন তিনি। ডিবক্সে মেসির মাপা পাসে মার্টিনেজ সামনে পেয়েছিলেন কেবল গোলরক্ষককে। কিন্তু তাকে পরাস্ত করতে পারেননি। অবশ্য এর চার মিনিট পর মার্টিনেজের অ্যাসিস্টেই আর্জেন্টিানকে এগিয়ে দেন বদলি নামা কোরেয়া। মেসির বাড়ানো বল ধরে ডিবক্সে কোরেয়াকে পাস দেন মার্টিনেজ। নিমিষেই বলটা জালে জড়ান লাজিও ফরোয়ার্ড।

বিশ্বকাপ বাছাইয়ে শুরুর দুই ম্যাচেই জিতলো আর্জেন্টিনা। প্রথম ম্যাচে মেসির গোলে ইকুয়েডরকে ১-০ ব্যবধানে হারিয়েছিল তারা। আর কোচ লিওনেল স্কালোনির অধীনে এই নিয়ে টানা ৯ ম্যাচ অপরাজিত থাকলো আলবিসেলেস্তেরা।

Related Articles

Back to top button