ব্যাটিংয়েও ‘কঙ্কাল’বেরিয়ে পড়ল ওয়েস্ট ইন্ডিজের

ব্রিট বাংলা ডেস্ক :: ভারত ৯ উইকেটে ৬৪৯ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণার পরই রাজকোট টেস্টের ছবিটা মোটামুটি পরিষ্কার হয়ে গিয়েছিল। ওয়েস্ট ইন্ডিজের কপালে দুঃখ আছে। সম্ভবত বড় ব্যবধানের হার। আজ টেস্টের দ্বিতীয় দিন শেষেই সেই ছবিটা বেশ স্পষ্ট। নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৯৪ রান তুলতেই ক্যারিবীয়দের ৬ উইকেট নেই। হাতে ৪ উইকেট রেখে ৫৫৫ রানের বিশাল ব্যবধানে পিছিয়ে দ্বিতীয় দিন শেষ করেছেন রোষ্টন চেজ (২৭*) ও কেমো পল (১৩*)।

ব্যাটিংয়ে ক্যারিবীয় বোলারদের নাকের জল চোখের জল এক করে ফেলেছিলেন পৃথ্বী শ, বিরাট কোহলি, রবীন্দ্র জাদেজারা। তিনজনই সেঞ্চুরি তুলে নেন। শেষ দিকে জাদেজা ১৩২ বলে তাঁর প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি (১০০*) তুলে নেওয়ার পর ইনিংস ঘোষণা করে ভারত। টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এটাই ভারতের সর্বোচ্চ স্কোর। পরে বল হাতেও ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যানদের ঘাম ছুটিয়েছেন ভারতের বোলাররা। প্রায় দেড় শ ওভারে মতো ফিল্ডিং করার পর ব্যাটিংয়ে নেমে দাঁড়াতেই পারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজের টপ অর্ডার। ২৯ ওভারের মধ্যে বেরিয়ে যায় ব্যাটিং অর্ডারের লেজ।

দ্বিতীয় দিনে তৃতীয় সেশনে ব্যাটিংয়ে নেমেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। রান পাহাড়ে চাপা পড়েও মাথা তুলে দাঁড়ানোর বিদ্যাটা সফরকারি দলের ব্যাটসম্যানেরা ফলাতে পারেননি। দরকার ছিল একটা জমাট শুরুর। কিন্তু তৃতীয় ওভারেই দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে ক্রেগ ব্রাফেটকে ফেরান মোহাম্মদ শামি। বলটা বেরিয়ে যাবে ভেবে খেলেছিলেন এই ওপেনার। কিন্তু ব্রাফটকে (২) চমকে দিয়ে বলটা ভেতরে ঢুকে আঘাত হেনেছে স্ট্যাম্পে। যদিও শামির ডেলিভারিটি বৈধ ছিল কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন থাকবে।

তৃতীয় আম্পায়ারের সাহায্য নিয়ে রিপ্লেতে দেখা গেছে শামির পায়ের গোড়ালি ক্রিজের বোলিং মার্কের দাগের ওপর। দাগের ভেতরে কিছু ছিল না। অর্থাৎ ‘অন দ্য লাইন’—যে ব্যাপারে আম্পায়ারের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত আর তা গিয়েছে বোলারের পক্ষে। তবে এক ওভার পরই কাইরন পা্ওয়েলের আউট নিয়ে কোনো বিতর্ক থাকবে না। শামির আরেকটি দুর্দান্ত ডেলিভারিতে পরাস্ত হয়ে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন পা্ওয়েল (১)। অকারণে রিভিউ নিয়ে উল্টো দলের একটি রিভিউ নেওয়ার সুযোগ নষ্ট করেছেন এই ওপেনার। ৭ রানের মধ্যেই দুই ওপেনারকে ফিরিয়ে প্রাথমিক কাজটা সেরেছেন পেসার শামি। আর এরপর ক্যারিবীয় মিডল অর্ডারকে ঘূর্ণি ফাঁসে জড়িয়েছেন তিন স্পিনার—রবিচন্দ্র অশ্বিন, রবীন্দ্র জাদেজা ও কুলদ্বীপ যাদব।

তিন স্পিনারই একটি করে উইকেট তুলে নেন। তাতে ৭৪ রান তুলতেই ৬ উইকেট হারিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সপ্তম উইকেটে চেজ-পলের অবিচ্ছিন্ন ২০ রানের জুটিতে বড় ধরনের বিপর্যয় কিছুটা হলেও এড়াতে পেরেছে সফরকারি দলটি। কিন্তু কাল কী হবে? ক্যারিবীয় ক্রিকেটের পাঁড় ভক্তটি পর্যন্ত স্বীকার করবেন, ফলোঅন চোখ রাঙাচ্ছে ব্রাফেটের দলকে। আর তাতে বড় ব্যবধানে হারের পদধ্বনি্ও খুব বেশি দূরে থাকে না।

ভারত এই টেস্টে জয়ের ভিত গড়েছে ব্যাটিংয়ে। প্রথম দিনটা যদি হয় পৃথ্বী শ-র দ্বিতীয় দিনটা তাহলে জাদেজার। সেঞ্চুরির সঙ্গে একটি উইকেট আর দারুণ একটি রান আউট্ও করেছেন এ অলরাউন্ডার। অধিনায়ক কোহলি ১৩৯ রানের ইনিংস খেলার পথে টানা তৃতীয় পঞ্জিকাবর্ষে ১০০০ রানের মাইলফলক টপকেছেন। ঋষভ পন্ত অবশ্য দ্রুতলয়ের ব্যাটিংয়ে সেঞ্চুরির সুবাস পেলেও( ৮৪ বলে ৯২) শেষ পর্যন্ত পারেননি।

Leave a Reply

Developed by: TechLoge

x