অনুপ্রবেশকারীদের আবারও ‘উইপোকা’ বললেন অমিত শাহ

ব্রিট বাংলা ডেস্ক :: রাজস্থানের একটি জনসভায় বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের ‘উইপোকা’ বলা বিজেপি প্রধান এবার মধ্যপ্রদেশেও একই কথা বললেন বলে আনন্দবাজার পত্রিকার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগঢ়, মিজোরাম, তেলঙ্গানা। বছর শেষের নির্বাচনী বৈতরণী পেরোতে ‘অনুপ্রবেশকারী’ ইস্যুকেই আঁকড়ে ধরতে চাইছে বিজেপি শিবির।

কিছুদিন আগেই রাজস্থানের একটি জনসভায় বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের ‘উইপোকা’ বলায় তীব্র সমালোচনার মুখে পড়া অমিত এবার মধ্যপ্রদেশেও অনুপ্রবেশকারীদের ‘উইপোকা’ বলে বুঝিয়ে দিলেন, আসামের নাগরিকপঞ্জিকে নির্বাচনী ইস্যু হিসেবে তুলে ধরাটাই বিজেপির কৌশল।

শুধু নাগরিকপঞ্জিই নয়, নির্বাচনী জনসভায় বিজেপি সভাপতি তুলে আনলেন পাঁচ বছর পুরনো মনমোহনের প্রসঙ্গও।

পাঁচ রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা হতেই ম্যাচ এখন মূলপর্বে। বিভিন্ন প্রাথমিক জনমত সমীক্ষায় খুব একটা ভাল জায়গায় নেই বিজেপি শিবির।

বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারী প্রশ্ন আর দেশের সুরক্ষাই আপাতত বিজেপির তুরুপের তাস। মধ্যপ্রদেশের রাতলামে অমিত শাহের জনসভায় মিলল সেই ইঙ্গিত।

আসামে কীভাবে চল্লিশ লক্ষ অবৈধ বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের চিহ্নিত করা হয়েছে, কী ভাবে তাদের এক এক করে দেশ থেকে তাড়ানো হবে, বিস্তারিত ভাবে সেই ব্যাখ্যাই দিলেন অমিত শাহ। দেশের সুরক্ষার জন্য একটি উইপোকাকেও ভারতে থাকতে দেওয়া হবে না বলে এ দিন বেশ চড়া সুরেই তোপ দাগেন বিজেপি সভাপতি।

অবশ্য শুধু নাগরিকপঞ্জি নয়, প্রচারে অমিত টেনে এনেছেন মনমোহন সিংহের বিদেশ সফর প্রসঙ্গ। মোদির ঘন ঘন বিদেশ সফর নিয়ে সমালোচনার মুখে দাঁড়িয়ে তিনি সামনে আনলেন মনমোহনকেই।

অমিত শাহের অভিযোগ, একের পর এক বিদেশ সফর মনমোহনও করতেন। আর বিদেশ সফরে গিয়ে সনিয়া গান্ধীর লিখে দেওয়া চিঠি পাঠ করা ছাড়া আর কোনও কাজ ছিল না।

রাতলামের জনসভায় মনমোহনকে তুলে আনা আসলে মোদীকে আড়াল করার কৌশল, এমনটাই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

Leave a Reply

Developed by: TechLoge

x