‘এমবাপ্পেকে ধরার গতি ছিল না’

ব্রিট বাংলা ডেস্ক :: টাইম ম্যাগাজিন এমবাপ্পেকে বলছেন আগামী প্রজন্মের ফুটবলারদের নেতা। কিন্তু তিনি তো এরই মধ্যে ফুটবলের নেতা হয়ে গেছেন। ক’দিন আগে নেইমার বলেছিলেন, বিশ্বকাপে এমবাপ্পের খেলা তাকে আরও বেশি পরিণত করেছে। এবার সেই এমবাপ্পে চার মিনিটের ব্যবধানে ফ্রান্সকে দুই গোল আদায় করে দিয়ে চ্যাম্পিয়নদের হারের লজ্জা থেকে বাঁচালেন। বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা বৃহস্পতিবার আইসল্যান্ডের বিপক্ষে ৮৬ মিনিট পর্যন্ত পিছিয়ে ছিলেন। শেষ পর্যন্ত এমবাপ্পে দলকে সমতা এনে দেন।

ম্যাচের ৩০ মিনিটে ফ্রান্সের জালে প্রথম গোল দিয়ে এগিয়ে যায় আইসল্যান্ড। এরপর ৫৮ মিনিটে আবার আইসল্যান্ডের গোল। রাশিয়া বিশ্বকাপে চমক দেখানো দলটি ২-০ গোলের ওই লিড ধরে রাখে ম্যাচের ৮৫ মিনিট পর্যন্ত। ‘আইসল্যান্ডের কাছে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের হার’ এমন এক শিরোনাম উপহার দেওয়ার ক্ষণ গুনছে তখন আইসল্যান্ড। কিন্তু এমবাপ্পে তা হতে দিলেন না।

ম্যাচের ৮৬ মিনিটে আইসল্যান্ডকে আত্মঘাতি গোল খেতে বাধ্য করলেন তিনি। গোলটি আত্মঘাতী এবং আইসল্যান্ড ফুটবলারের নামে লেখা হয়েছে। কিন্তু এমবাপ্পের নেওয়া জোরালো শট ফেরানোর উপায় জানা ছিল না আইস্যান্ড ডিফেন্ডারের। প্রথমে গোলরক্ষকের গায়ে লেগে ফিরে এসেও অন্য খেলোয়াড়ের গায়ে লেগে বল ঢুকে যায় জালে। এরপর ম্যাচের ৯০ মিনিটের মাথায় পেনাল্টি আদায় করে নেন এমবাপ্পে। সেই পেনাল্টি থেকে গোল করে সমতা এনে দেন দলকে।

ম্যাচে এমবাপ্পেকে দৃষ্টিকটু এক ট্যাকল করেন আইসল্যান্ড ফুটবলার রানার সিগুরজনসনকে। তিনি বলেন, ‘এমবাপ্পেকে ধরার মতো গতি ছিল না আমার। কিন্তু সে তার গতি থামিয়ে দেয়। এরপর ওই ঘটনা ঘটে যায়।’ ম্যাচ শেষে এমবাপ্পের প্রশংসা করেছেন ফ্রান্স গোলরক্ষক লরিস। তিনি বলেন, ‘ফুটবল অবশ্যই একার খেলা নয়। কিন্তু এমবাপ্পে একটু আলাদা। সে মাঠে নামলে দল আলাদা শক্তি পায়।’

অলিভার জিরুদ ফ্রান্স তরুণ তারকা এমবাপ্পের প্রশংসা করে বলেন, ‘এমবাপ্পে জানে কিভাবে আমাদের দলের হয়ে ব্যবধান বাড়িয়ে নিতে হয়। দলে তার মতো ফুটবলার খুবই দরকার। সে সত্যিই দারুণ কাজ করেছে।’ ফ্রান্স কোচ অবশ্য ম্যাচের শুরুতে মাঠে নামাননি এমবাপ্পেকে। এ নিয়ে কোচ জানান, জার্মানির বিপক্ষে ম্যাচের জন্য তাকে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছিল।

Leave a Reply

Developed by: TechLoge

x