‘নারীর সতীত্ব বিচার করার অধিকার কারও নেই’

ব্রিট বাংলা ডেস্ক :: নারীদের নিয়ে পুরুষদের মন মানসিকতার কড়া জবাব দিলেন মালায়লাম ছবির অভিনেত্রী পার্বতী। একই সঙ্গে ভারতীয় সমাজব্যবস্থায় নারীদের স্থান কোথায় সেটা নিয়ে কথা বলেন।

ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকার পার্বতী বলেন, নারীর অস্তিত্ব কখনও শরীর দিয়ে হতে পারে না। কে পবিত্র, কে অপবিত্র তার বিচার হতে পারে না যোনি দিয়ে। কে কুমারী আর কে না, তা দিয়ে নারীর সতীত্ব বিচার করার অধিকার কারও নেই।

ভারতের কেরালার শবরীমালা মন্দিরে নারীদের প্রবেশে বাধা দেওয়ার প্রেক্ষিতে তিনি এ কথা বলেন। শবরীমালা মন্দিরের পুরোহিতরা কোনো ঋতুবতী নারীকে মন্দিরে প্রবেশ করতে দিতেন না। ফলে ১০ থেকে ৫০ বছরের কোনো নারীর প্রবেশাধিকার নিষিদ্ধ ছিল সেখানে। বহু আন্দোলনের পর সব বয়সের নারীদের সেখানে অবাধ প্রবেশাধিকারের রায় দেয় সুপ্রিমকোর্ট।

কোর্টের নির্দেশ সমর্থন করে অভিনেত্রী বলেন, জন্ম থেকেই শুনে আসছি ঋতুবতী নারী অপবিত্র। শুরু থেকেই বিষয়টি মেনে নিতে পারিনি। তাই কখনও কাউকে পরোয়া করিনি। যখনই মন চেয়েছে মন্দিরে গিয়েছি।

তিনি বলেন, ভারতীয় সমাজব্যবস্থায় নারীদের স্থান আসলে কোথায়, তা ফের স্পষ্ট হয়েছে। কাগজে অনেক কিছুই বেরোয়। কিন্তু বাস্তবটা একেবারেই আলাদা। মানসিকতার পরিবর্তন একেবারেই হয়নি। নারীরা নিজেও তা থেকে বেরিয়ে আসতে পারেননি। নিজেদের মানুষ বলে ভাবতে শেখেননি এখনও।

অভিনেত্রী আরো বলেন, ১৭ বছর বয়সে বিনোদন জগতে পা রেখেছিলাম। লিঙ্গ বৈষম্যটা তখন আরও ভালভাবে বুঝতে শিখি। দেখতাম কথা বলার সময় পুরুষ সহকর্মীদের নজর আটকে থাকত আমার শরীরে। বুঝিয়ে দিত, যে তারা আর একজন মানুষের সঙ্গে কথা বলছে না। কথা বলছেন একজন নারীর সঙ্গে।

Leave a Reply

Developed by: TechLoge

x