বিয়ানীবাজারের প্রবীণ শিক্ষক বিনয়েন্দু ভূষন চক্রবর্তী হত্যা চেষ্টাকারীদের গ্রেফতারের দাবীতে বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খিস্টান ঐক্য পরিষদের সভা

সিলেট অফিস :::: বিয়ানীবাজারের প্রবীণ শিক্ষক বিনয়েন্দু ভূষন চক্রবর্তী (৬০) দুর্বৃত্তদের হামলার শিকার হয়ে ঢাকার একটি হাসপাতালের বিছানায় কাতরাচ্ছেন। শুক্রবার রাতে প্রবীন এই শিক্ষকের গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয় অজ্ঞাতনামা দুবৃত্তরা। এ ঘটনার ৪ দিনেও জড়িতদের গ্রেফতার কিংবা চিহ্নিত করতে না পারায় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে।

এদিকে প্রবীন শিক্ষক বিনয়েন্দু ভূষনের গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়ার ঘটনার প্রতিবাদে গতকাল মঙ্গলবার বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ ও ছাত্র যুব ঐক্য পরিষদের যৌথ সভা বিয়ানীবাজার উপজেলা শাখার এক জরুরী সভা টিএন্ডটি রোডস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি দেবাশীষ পুরকাস্থ’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, সহ-সভাপতি অমলেন্দু দে, রবিন্দ্র চক্রবর্তী, নিশেন্দু দত্ত পুরকায়স্ত, বাবুল মোহন কর, ডা. পি এম পাল, সাধারণ সম্পাদক কেতকী রঞ্জন দাস, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বিষু রঞ্জন দে, দিপ্তী রানী বিশ্বাস, রঞ্জিন দাস ঝুনু, সাংগঠনিক সম্পাদক সুভাস পুরকাস্ত, ছাত্র যুব ঐক্য পরিষদের সভাপতি বিপ্লব চক্রবর্তী, সাধারণ সম্পাদক সুজিত দে প্রমুখ।

সভায় বক্তরা বলেন, একজন প্রবীন শিক্ষককে হত্যা প্রচেষ্টার ৪ দিন অতিবাহিত হলেও পুলিশ এখনো জড়িতদের গ্রেফতার করতে পারেনি। বিবৃতিদাতারা বলেন, অবিলম্বে জড়িতদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নিয়ে আসতে হবে। অন্যতায় হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টার ঐক্য পরিষদের নেতারা অান্দোলনে যেতে বাধ্য হবেন বলে হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন।

গত শুক্রবার (৩০ নভেম্বর) রাতে উপজেলার জলঢূপ এলাকায় নিজের বসতবাড়িতে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তদের হামলার শিকার হন প্রবীণ শিক্ষক বিনয়েন্দু ভূষন চক্রবর্তী। দুর্বৃত্তরা তার শরীরে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে তাকে পুড়িয়ে মারা চেষ্টা করে। এসময় তার মুখ ও শরীরের অনেক জায়গা ঝলসে যায়। এদিকে, বর্বরোচিত হামলার ৫ দিন পেরিয়ে গেলেও এ ঘটনায় থানায় কোন অভিযোগ দায়ের করেনি অগ্নিদগ্ধ শিক্ষকের পরিবার। পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে, আহত শিক্ষকের সাথে ঢাকা পরিবারের সকল সদস্যরা থাকায় তারা থানায় এজহার দায়ের করেনি। তবে সোমবার রাতে পুলিশ ২ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে এসেছে।

Leave a Reply

Developed by: TechLoge

x