চুরি যাওয়া মারিয়ার ভাগ্য!

ব্রিটবাংলা ডেস্ক : মারিয়ার বয়স মাত্র ১৭ মাস। বাবার গাড়ির সঙ্গে তাকেও চুরি করে নিয়ে যায় অপিরিচিত ছদ্ধবেশী ক্রেতা। পুলিশ জানিয়েছে, নিজের কালো রংয়ের ২০১৮ রেঞ্জের আউডি এ ফাইভ গাড়িটি বিক্রির উদ্দেশ্যে অপরিচিত ক্রেতাকে দেখাতে সঙ্গে মেয়েকেও এনেছিলেন মারিয়ার রোমানিয়ান বাবা। গাড়ির প্যাসেঞ্জার সিটেই বসা ছিল মারিয়া। গাড়ি থেকে বের হয়ে বাবা ক্রেতার সঙ্গে কথা বলছিলেন, কিন্তু এক ফাঁকে অপরিচিত ক্রেতা জাম্প মেরে গাড়িতে উঠে মারিয়াসহ গাড়ি নিয়ে উধাও হয়ে যায়।
রোববার বিকাল ৪টা ৩৫ মিনিটের দিকে ইস্ট লন্ডনের নিউহ্যামের নাইন এক্রেস ক্লজ থেকে মারিয়াসহ গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যায় অপরিচিত ছদ্ধবেশী ক্রেতা। এর কিছুক্ষণপরেই পাশ্ববর্তী হ্যাদারওয়ে ক্রসেন্ট থেকে চুরি যাওয়া গাড়িটি উদ্ধার করা হয়। কিন্তু গাড়ির ভেতরে মারিয়াকে পাওয়া যায়নি। মারিয়াকে না পাওয়ায় তার বাবাসহ তাদের পুরো পরিবারে আহাজারি শুরু হয়। ঘটনায় হতবাক বনে যান মারিয়াদের প্রতিবেশী ও স্বজন সবাই!
মারিয়ার খুঁজে পুরো নিউহ্যামে ব্যাপক তল্লাশি শুরু করে মেট পুলিশ। সাদা রংয়ের টপের সঙ্গে লাল রংয়ের ট্রাউজার ছিল মারিয়ার পরনে। অন্যদিকে অপরিচিত গাড়ি ক্রেতা বা চোর ছিল এশিয়ান। হালকা গড়নের। পরনে ছিল কালো রংয়ের কাপড়। দ্রুত মারিয়াকে চুরির খবর ছড়িয়ে পড়ে সর্বত্র। যে শুনেছেন সেই অস্বস্থি প্রকাশ করে মারিয়ার জন্যে আফসোস করেছেন।
তবে রোববার রাত প্রায় আটটার দিকে মেট পুলিশের একটি টুইট বার্তায় সবার মধ্যে স্বস্থি ফিরে আসে। টুইট বার্তায় জানানো হয়, যে জায়গা থেকে মারিয়াদের গাড়ি পাওয়া গিয়েছিল সেই জায়গা থেকে প্রায় তিন মাইল দূরে রাসকিন এভিনিউ থেকে মারিয়াকে সুস্থাবস্থায় পাওয়া যায়। মারিয়াকে ফিরে পেয়ে বাকরুদ্ধ বাবাসহ পরিবারের সবার মধ্যে আনন্দ ফিরে এসেছে। পুলিশসহ সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছে মারিয়ার পরিবার। এদিকে মারিয়াকে চুরির ঘটনার খবর দ্রুত সংবাদ ও সামাজিত মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ায় সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়েছে পুলিশ।

Leave a Reply

More News from যুক্তরাজ্য

More News

Developed by: TechLoge

x