‘ইয়াবা ব্যবসায়ীদের’ নৌকায় ‘গায়েবি’ হামলা

ব্রিট বাংলা ডেস্ক :: কক্সবাজারের টেকনাফ সীমান্তে নাফনদী ও সমুদ্রে ১৩টি নৌকা পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। তবে কে বা কারা আগুন দিয়েছে সে বিষয়ে পুলিশের কাছে কেউ কোনো অভিযোগ করেনি।

তবে পুড়ে যাওয়া নৌকার মালিকদের অধিকাংশ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশের ভাষ্যমতে, এসব হামলা হচ্ছে ‘গায়েবি’। কিছুদিন আগেও টেকনাফে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের বাড়িতে হামলা, ভাঙচুরে ঘটনা ঘটেছিল। এখন আবার তাদের নৌকার হামলা হচ্ছে।

গত দুই দিকে কক্সবাজারের টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নে বাহারছড়া সৈকতে পাঁচটি ও মুন্ডার ডেইল ঘাটের সৈকতে আটটিসহ ১৩টি ইঞ্জিন চালিত নৌকায় অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুর করা হয়েছে।

এসব নৌকার মালিকরা হলেন- টেকনাফের চাঁন মিয়া, মোহাম্মদ ছিদ্দিক, মোহাম্মদ ফারুক, আলী আহমদ, শাকের আহমদ মাঝি, হেলাল উদ্দিন, মোহাম্মদ ভূট্টো, সৈয়দ আলম, রহিম উল্লাহ ও ফিরোজ আহমদ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, উপজেলার বাহারছড়া-শাহপরীর দ্বীপ পর্যন্ত সৈকতে প্রচুর পরিমাণে নৌকা রয়েছে। এসব নৌকা সাগরে মাছ ধরতে যায়। হঠাৎ করে বুধবার ও বৃহস্পতিবার রাতে মুখাশেধারী একদল লোক সৈকতে এসে ১৩টি নৌকা ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে। ওই সময় আরও শতাধিক নৌকা ছিল আশপাশে, কিন্তু সেগুলোতে কোনো ধরনের আঘাত করা হয়নি।

স্থানীয়রা বলেন, সৈকতে ইয়াবা ব্যবসায় অভিযুক্তদের নৌকাগুলোতে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। কিন্তু কারা এসব করেছে, তা জানা যাচ্ছে না। এলাকার মানুষও মুখ খুলছেন না।

টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ীদের কিছু নৌযানে অগ্নিসংযোগ করার খবর পেয়েছি। ঘটনাস্থলে গেলে স্থানীয় লোকজন বলছে এটি গায়েবি হামলা। এর প্রতিকার চেয়ে কেউ মামলা কিংবা অভিযোগ দেয়নি।

Leave a Reply

Developed by: TechLoge

x