গাইবান্ধায় অভাবের বলি ২ গৃহবধূ

ব্রিট বাংলা ডেস্ক :: অসার শরীর একজনের, আরেকজনের শরীরে বাসা বেঁধেছে মরণব্যাধি। ‌‌যাদের নুন আনতে পান্তা ফুরোয়, তারা কিভাবে মোকাবিলা করবেন পাহাড় সমান এই বিপদের! রোগ আর অভাবের তাড়নায় ন্যুয়ে পড়া শরীরগুলো অবশেষে বেছে নিলো আত্মঘাতির পথ।

শনিবার (১৯ জানুয়ারি) গাইবান্ধার সাদুল্লাপুরে গলায় ফাঁস দিয়ে জুবা বেগম (৪৮) ও সুন্দরগঞ্জে ট্রেনের নিচে লাফ দিয়ে আলিমন বেওয়া (৪৬) নামে দুই গৃহবধূর আত্মহত্যার খবর পাওয়া গেছে। নিহত জুবা বেগম সাদুল্লাপুর উপজেলার ধাপেরহাট ইউনিয়নের তিলকপাড়া গ্রামের জাবেদ আলীর স্ত্রী ও নিহত আলিমন বেওয়া সুন্দরগঞ্জ উপজেলার বামনডাঙ্গা ইউনিয়নের মনমথ (কানারমোড়) গ্রামের মৃত. মোসলেম আলীর স্ত্রী।

ধাপেরহাট পুলিশ পরিদর্শক আব্দুর রশিদ সরকার জানান, ‌‘জুবা বেগম দীর্ঘদিন থেকে প্যারালাইসিসহ বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন। দিনমজুর স্বামীর অভাব অনটনের এই সংসারে তিনি নিজেকে বড় অসহায় মনে করতেন। তাই মনের দুঃখে শনিবার ভোর রাতে নিজ ঘরের ধর্নার সঙ্গে রশি দিয়ে গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেন। এ ঘটনায় সাদুল্লাপুর থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে।’

অপরদিকে, বামনডাঙ্গা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের উপ-পরিদর্শক জিয়া জানান, ‘শনিবার দুপুরে সুন্দরগঞ্জের বামনডাঙ্গার লিটন মোড়ের অদুরে রেল লাইনে আলিমন বেওয়া কাউনিয়াগামী সেভেন আপ ট্রেনের নিচ ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেন। খবর পেয়ে পুলিশ ও স্বজনরা এসে রেললাইন থেকে আলিমন বেওয়ার লাশ উদ্ধার করে। স্বামী হারা আলিমন বেগম দীর্ঘদিন থেকে ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত ছিলেন। অভাবের কারণে চিকিৎসা করাতে পারছিলেন না। এ কারণে মনের দুঃখে তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। বোনারপাড়া জিআরপি পুলিশ বিষয়টি অবহিত আছেন।’

Leave a Reply

More News from জাতীয়

More News

Developed by: TechLoge

x