যুক্তরাজ্য

এইচএমআরসি’র নামে প্রতারকদের টেলিফোন বা ইমেইলের জবাব না দেওয়ার আহ্বান (ভিডিওসহ)

ব্রিটবাংলা ডেস্ক : ট্যাক্স রিটার্নসহ নানান ইস্যুতে এইচএমআরসির নামে প্রতারকরা চিঠি, ইমেইল এবং টেলিফোনে সাধারণ মানুষের তথ্য হাতিয়ে নেওয়ার চেস্টা করে। বিশেষ করে ল্যান্ডলাইনে বয়োবৃদ্ধদের টার্গেট করে থাকে প্রতারকরা। টেলিফোনে বা ইমেইলে সরাসরি কাউকে কোনো তথ্য না দিতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে এইমএমআরসি।
ট্যাক্স রিটার্নে সমস্যা আছে, এক্ষনি সব তথ্য দিয়ে সমস্যার শেষ করার জন্যে টেলিফোনে তাগিদ দিয়ে থাকে প্রতারকচক্র। অথবা ইমেইল পাওয়ার পর যতোদ্রুত সম্ভব বিস্তারিত পাঠানোর আহ্বান করে। দ্রুত রিপ্লাই দেওয়ার জন্যে টেলিফোনে বা ইমেইলে নানা কারণ দেখিয়ে এক ধরনের ভীতিকর অবস্থা তৈরীর চেষ্টা করে এই চক্রটি। এই প্রতারক চক্রের ইমেইল এবং টেলিফোন রিসিভ করেছেন ব্যারিষ্টার আবুল কালাম চৌধুরী। তার মতে শুধু এইচএমআরসি নয়, আপলসহ নানা কোম্পানীর নামে আসে ফেইক ইমেইল, ট্যাক্সট টেলিফোন। সতর্কতাই এই প্রতারক চক্র থেকে রক্ষার বড় উপায়। ব্যারিষ্টার আবুল কালাম চৌধুরীর পুরো বক্তব্য শুনতে নীচের লিঙ্কে ক্লিক করুন।


অফকম জানিয়েছে, ইউকেতে অন্তত ২৬ মিলিয়ন ল্যান্ডলাইন এই প্রতারক চক্রের ঝুঁকিতে রয়েছে। প্রতারকরা অসহায় বয়োবৃদ্ধদেরই টার্গেট করে। চলতি বছরের জানুয়ারী থেকে গত ছয় মাসে প্রায় ষাট হাজারের বেশি টেলিফোন প্রতারণার রিপোর্ট গ্রহণ করেছে এইচএমআরসি। যা এর আগের ছয় মাসের চাইতে ৩শ ৬০ শতাংশ বেশি। এরমধ্যে গত ১২ মাসে প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত হওয়া প্রায় ৪শ ৫০টি ল্যান্ডলাইন বন্ধ করেছে অফকম। একাউনটেন্ট আবুল হায়াত নুরুজ্জামান জানালেন, প্রতি বছর ৩১শে জানুয়ারীর পর থেকে প্রতারকরা বেশি সক্রিয়া হয়ে উঠে। আবুল হায়াত নুরুজ্জামানের পরামর্শমূলক পুরো বক্তব্যটি শুনতে নীচের লিঙ্কে ক্লিক করুন।

সন্দেহভাজন কোনো চিঠি, ইমেইল বা টেলিফোনে কাউকে সরাসরি কোনো তথ্য না দিতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে এইচএম আরসিও।

Related Articles

Back to top button