স্মৃতি ইরানির বিরুদ্ধে ‘জালিয়াতি’র অভিযোগ

Posted on by

ব্রিট বাংলা ডেস্ক :: ভোটের মাঠে বেশ কিছুদিন ধরে বিজেপি প্রার্থী স্মৃতি ইরানির শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে নানা বিতর্ক চলছে। এবার শুরু হয়েছে আইনি লড়াই।

কেন্দ্রীয় এই মন্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন লখনৌ কংগ্রেসের সংখ্যালঘু সেলের চেয়ারম্যান তৌহিদ সিদ্দিকি। খবর এনডিটিভির।

শনিবার দায়ের করা ওই অভিযোগে সিদ্দিকির দাবি, মনোনয়নের সঙ্গে দেওয়া হলফনামায় মিথ্যা তথ্য দিয়েছেন স্মৃতি।

‘জালিয়াতি’ এবং ‘প্রতারণা’র অভিযোগ এনে স্মৃতির বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিও জানিয়েছেন সিদ্দিকি।

সিদ্দিকি অভিযোগপত্রে লিখেছেন, ২০১৪ সালে নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়া মনোনয়নে স্মৃতি ১৯৯৪ সালে দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কমার্সে স্নাতক করেছেন বলে জানিয়েছিলেন। কিন্তু এবারের লোকসভা ভোটের মনোনয়নে তিনি স্নাতক ডিগ্রি সম্পূর্ণ করেননি বলে জানিয়েছেন।

সিদ্দিকি বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনে হলফনামায় মিথ্যা কথা বলেছেন স্মৃতি। এটা নথি জাল করা এবং প্রতারণার সামিল।’

বিতর্কের শুরু গত বৃহস্পতিবার। সেদিন আমেথিতে মনোনয়নপত্র জমা দেন স্মৃতি। প্রার্থীদের মনোনয়নের সঙ্গে সম্পত্তি, আয় ব্যয়, প্যান কার্ডের কপি এবং বহু ব্যক্তিগত তথ্যের সঙ্গে শিক্ষাগত যোগ্যতাও হলফনামা আকারে জমা দিতে হয় নির্বাচন কমিশনে। সেই হলফনামা কমিশনের ওয়েবসাইটেও আপলোড করা হয়। স্মৃতির হলফনামা কমিশনের ওয়েবসাইটে আপলোড হতেই ছড়িয়ে পড়ে বিতর্ক।

কমিশনে জমা দেওয়া হলফনামায় দেখা যায়, তিনি স্নাতক নন। অথচ ২০১৪ সালে এই আমেথি কেন্দ্রেই মনোনয়নের সঙ্গে যে হলফনামা দিয়েছিলেন, তাতে দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কমার্সে স্নাতক বলে উল্লেখ করেছিলেন তিনি।

হলফনামার এই ‘তথ্য বিভ্রাট’ নিয়ে কংগ্রেস আক্রমণ শুরু করে বিজেপিকে। স্মৃতির প্রার্থিতা বাতিলের দাবি জানান কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সিংহ সূরযেওয়ালা। পাশাপাশি স্মৃতির জেল-জরিমানার দাবিও করেন তিনি।

Leave a Reply

Developed by: TechLoge

x