শ্রীলংকায় তিন পুলিশ ও দুই সন্তানসহ নিজেকে উড়িয়ে দিলেন অন্তঃসত্ত্বা

Posted on by

ব্রিট বাংলা ডেস্ক :: শ্রীলংকায় কয়েকটি চার্চ ও হোটেলে সিরিজ হামলার পর পুলিশ হামলায় নেতৃত্বদানকারীর কলম্বোর বিশিষ্ট মসলা ব্যবসায়ীর বাড়িতে যান। তার দুই ছেলে এ হামলার সঙ্গে জড়িত এমন তথ্যে তাদের বাড়িতে অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় হামলাকারীর এক ভাইয়ের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী আত্মঘাতী জ্যাকেটের বিস্ফোরণ ঘটায়। এতে তার দুই সন্তানসহ তিন পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হন।

শ্রীলংকার প্রতিরক্ষা প্রতিমন্ত্রী রুয়ান ওয়াইজেবর্ধনে এক সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন, হামলাকারীরা উচ্চশিক্ষিত এবং সম্পদশালী পরিবারের সদস্য। তারা সবাই শ্রীলংকায় বসবাস করেন।

কলম্বোর বিশিষ্ট মসলা ব্যবসায়ীর দুই ছেলে এ হামলার সঙ্গে জড়িত। কলম্বোর মাহাওয়েলা গার্ডেন্স এলাকার ধনী পরিবারের বড় ছেলে ইনসাফ ইব্রাহিমই কলম্বোর অন্যতম বিখ্যাত হোটেল সাংগ্রি লাতে বিস্ফোরণ ঘটায়।

রোববার সকালে নিজের সঙ্গে থাকা বোমা ফাটিয়ে আত্মঘাতী হন ইনসাফ। সেখানে তিনিসহ মৃত্যু হয় অনেকের।

এ ঘটনার পর তল্লাশি চালাতে ইব্রাহিমের বাড়িতে যায় পুলিশ। রুয়ান ওয়াইজেবর্ধনে বলেন, পুলিশ যখন বাড়িতে পৌঁছায় তার এক ভাইয়ের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী আত্মঘাতী জ্যাকেটের বিস্ফোরণ ঘটায় এতে নিজে ও দুই সন্তানের পাশাপাশি তিন পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হন।

সিরিজ বোমা হামলার মাস্টারমাইন্ড ওই বাড়ির বেশির ভাগ সদস্যই মারা গেছেন। তবে পরিবারের কর্তা মোহাম্মদ ইব্রাহিমকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এদিকে বোমা হামলায় জড়িত মাহাওয়েলা গার্ডেন্স এলাকার ওই বাড়িটির পরিবারের কথা স্থানীয়রা এখনও বিশ্বাস করতে পারছেন না।

ফাতিমা ফাজলা নামে এক প্রতিবেশী সাংবাদিকদের বলেন, ‘ওদের খুব ভালো মানুষ ছিল। পরোপকারী, বিনয়ী স্বভাবের ছিল ওরা। যে কারও বিপদে ঝাঁপিয়ে পড়তে দেখা গেছে তাদের। মানুষকে টাকা দিয়েও সাহায্য করত তারা।

স্থানীয়রা আরও জানান, আর্থিকভাবে বেশ সচ্ছল ওই পরিবারটি। আটক মোহাম্মদ ইব্রাহিম শ্রীলংকার অন্যতম ব্যবসায়ী। গোটা কলম্বোতে মসলা সরবরাহ করতেন এ ব্যবসায়ী। যে কারণে শ্রীলংকার ব্যবসায়ীমহলে সুপরিচিত তিনি।

ইব্রাহিমের সঙ্গে বোমা হামলায় আত্মঘাতী তার দুই ছেলে ইনসাফ ও ইলহামও শ্রীলংকায় প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী।

এমন ধনী ও পরোপকারী পরিবারটি কীভাবে এমন ন্যক্কারজনক হামলার সঙ্গে যুক্ত হলো সে বিষয়ে স্থানীয় ও প্রশাসন অনেকটাই হতভম্ব।

রোববার শ্রীলংকায় ইস্টার সানডেতে কয়েকটি চার্চ ও হোটেলে আত্মঘাতী সিরিজ বোমা হামলায় এখন পর্যন্ত ৩৫৯ জন নিহত হয়েছেন। এ হামলায় অন্তত ৫০০ জন আহত হয়েছেন।

সূত্র: এবিসি নিউজ ও রয়টার্স।

Leave a Reply

Developed by: TechLoge

x