যুক্তরাজ্য

জর্ডানে সিরিয়ান রিফিউজিদের রান্না করে খাওয়ালেন ব্রিটিশ সেলিব্রেটি শেফ আসমা খান

ব্রিটবাংলা ডেস্ক : পবিত্র রামাদান মাসকে সামনে রেখে ইউকের চ্যারিটি সংস্থা ইসলামিক রিলিফের বিশেষ প্রতিনিধি হয়ে জর্ডানে একটি সিরিয়ান রিফিউজি ক্যাম্প ঘুরে আসলেন ব্রিটিশ সেলিব্রেটি শেফ আসমা খান। রামাদানের প্রথম দিন থেকে এই ক্যাম্পের সবাইকে খাবার সরবরাহ করবে ইসলামিক রিফিল। এর প্রস্তুতি হিসেবে সেখানে সফর করতে যান তিনি।
সেলিব্রেটি শেফ আসমা খান সেন্ট্রাল লন্ডনে একটি ভারতীয় রেস্টুরেন্ট পরিচালনা করেন। একই সঙ্গে তিনি প্রথম ব্রিটিশ শেফ হিসেবে নেটফ্লিক্সে দ্যা এমি মনোনীত ‘শেফ’স ট্যাবল’ নামে একটি শো করেন।
জর্ডানে রিফিউজি ক্যাম্প সফরের সময় আসমা খান সিরিয়ান রিফিউজি মহিলাদের দু:খ দুর্দশার কথা শুনেন এবং তাদেরকে সঙ্গে নিয়ে রান্না-বান্না করেন।
এক প্রতিক্রিয়া আসমা খান বলেন, গৃহযুদ্ধে সর্বস্ব হারানো মহিলাদের সঙ্গে কথা বলা এবং তাদেরকে রান্না করে খাওয়ানো সত্যি এক বিরল অভিজ্ঞতা তিনি অর্জন করেছেন। আসমা খান আরো বলেন, ইন্ডিয়াতে নিজের বাড়িঘর ফেলে তিনি বর্তমানে বিলেতে অবস্থান করছেন। ভালো অবস্থানে থাকার পরেও ফেলে আসা নিজের বাড়িঘরের জন্যে অন্তর কাঁদে। ফিরে যেতে মন চায়। ফিরে যান। কিন্তু এই মানুষগুলো মন চাইলেও ফিরে যেতে পারবে না। কত দু:খ, কত বেদনা নিয়ে এই রিফিউজি ক্যাম্পে তারা জীবনযাবন করছে তারা ছাড়া অন্য কেউ কোনো দিন তা বুঝতে পারবে না। ক্ষনিকের জন্যে হলেও তাদের সঙ্গে কথা বলে, তাদের মুখে একটু হাসির ঝিলিক ফুটাতে পেরে নিজেকে কিছুটা স্বার্থক মনে করছেন বলে জানালেন সেলিব্রেটি শেফ আসমা খান।
আসমা খান আরো বলেন, পবিত্র রামাদান প্রতিটি মুসলমানের জন্যে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মাস। এই মাসে দু:খি মানুষের মুখে এক টুকরো খাবার তুলে দেওয়ার ছোয়াব অসীম। পবিত্র রামাদানে ইফতার বা সেহরির সময় দু:খি মানুষের মুখে এক টুকরো খাবার তুলে দিতে ইসলামিক রিলিফের সঙ্গী হবার জন্যে তিনি দানশীল ব্যক্তিদের প্রতি আহ্বান জানান।
ইসলামিক রিলিফ ইউকের ভারপ্রাপ্ত ডাইরেক্টর তোফায়েল হোসাইন কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন সেলিব্রেটি শেফ আসমা খানের প্রতি। তিনি বলেন, সারা বছর বিভিন্ন প্রজেক্টের মাধ্যমে হতদরিদ্রদের জন্যে যে সেবা কাজ পরিচালনা করে ইসলামিক রিলিফ তার চাইতে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হল পবিত্র রামাদান মাস। গৃহযুদ্ধ, আবহাওয়ার বিরূপ প্রভাবসহ নানান কারণে বিশ্বে লাখ লাখ মানুষ অসহায় অবস্থায় রয়েছে। তাদেরকে নতুন জীবন দিতে, নতুন স্বপ্ন দেখাতে নিরসলভাবে কাজ করে যাচ্ছে ইসলামিক রিলিফ। আসমা খানের মতো সমাজের সেলিব্রেটিরা ইসলামিক রিলিফের সেই কাজে প্রেরণা হয়ে থাকবেন বলে উল্লেখ করেন তিনি।

চলতি বছর ইসলামিক রিলিফ বিশ্বের ৩৫টি দেশে প্রায় ১লাখ ৩৫ হাজার ৮শ বড় খাদ্যের প্যাকেট পৌঁছে দেবে। তাতে প্রায় ৮ লাখের বেশি হত দরিদ্র উপকৃত হবেন বলে আশা করছে ইসলামিক রিলিফ। এছাড়া এবারের রামাদানের জন্যে ১৫ এপ্রিল থেকে ৩০ জুনের ভেতরে দানশীল ব্যক্তিরা ইসলামিক রিলিফের জন্যে যে পরিমান দান করবেন, তার সঙ্গে ব্রিটিশ সরকার ইউকে এইড ম্যাচ ফান্ডিং থেকে আরো ২ মিলিয়ন পাউন্ড যোগ করবে।
এবারের রামাদানে ইসলামিক রিলিফের সঙ্গে থাকার জন্যে ইউকে ও ইউরোপের মুসলিম দানশীল ব্যক্তিদের আহ্বান জানানো হয়েছে ইসলামিক রিলিফের পক্ষ থেকে।

Related Articles

Back to top button