ফিচার

ঈদসাজে তরুণী

রয়া মুনতাসীর :: নেই কোনো বাধা। কোনো নিষেধাজ্ঞাও নেই। তরুণীর সাজপোশাকের আনন্দ এখানেই। সবে কৈশোর পেরোনো বয়সটায় পোশাকের চলতি ধারা নিয়ে কৌতূহলও বেশি থাকে। নিজের ভালো লাগার জন্যই যেন নিজেকে সাজাতে ইচ্ছে করে। আধুনিক ও ঐতিহ্যবাহী দুই ধারার সাজই মানিয়ে যায় তাঁদের। ফ্যাশন হাউসগুলোও তরুণীদের নিত্যনতুন সাজ নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষার কথা মাথায় রেখে সাজিয়েছেন ঈদের পোশাকগুলো।

গরম ও ঈদ। দুটোই চলে এসেছে ঈদ ফ্যাশনে। ডিজাইনাররা জানালেন তেমনটাই। রঙের প্রাধান্য চলে এসেছে। বাঙ্গি রঙের পোশাকটি দিন ও রাত দুই বেলাতেই পরা যাবে। ড্রেপিং ব্যবহার করে করা হয়েছে গাউনটি। সঙ্গে আছে কারচুপির কাজ। পোশাকের উপকরণ জর্জেট। বেশি সাজলে রাতে মানিয়ে যাবে। তবে এখানে দিনের সাজই দেওয়া হয়েছে। চোখ সাজানো হয়েছে একদম পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে। লিপস্টিক হালকা রঙের। চোখে রোদচশমা। চুল পুরো বাঁধা হয়নি। অর্ধেকটা বাঁধা। এতে করে গরমও সামলানো যাবে।ছবি: সুমন ইউসুফপালাজ্জো, প্যান্ট আর জ্যাকেট-একই রঙের। রয়েছে সোনালি পাথরের কাজ। পুরো সাজেও রাখা হয়েছে চকলেটের প্রাধান্য। চোখে সোনালি আইশ্যাডো। চুল উঁচু করে বাঁধা।

পোশাক: আইকনিক ফ্যাশন গ্যারেজছবি: সুমন ইউসুফহাতা কাটা কামিজে আরাম গরমের এই সময়ে। পোশাকের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে চোখ সাজানো হয়েছে। পুরো কোঁকড়া চুল এক পাশে নিয়ে বাঁধা। ঠোঁটে হালকা ইট রঙা লিপস্টিক।

পোশাক: কে ক্রাফট ওড়না: সংগৃহীতছবি: সুমন ইউসুফউজ্জ্বল হলুদ রঙের টিউনিকে জ্যাকেট আটকে দেওয়া। মূল পোশাক ও জ্যাকেটে লেয়ার দেওয়া হয়েছে। ছাপা নকশায় চলে এসেছে উৎসবের আমেজ। পায়ে মানানসই লেগিংস। চোখে সোনালি আইশ্যাডো। চুল কোঁকড়া। ব্লাশঅনে শিমার। বাইরে গেলে কম শিমার ব্যবহার করুন। সব সাজই হালকা রাখা হয়েছে। বেশি মেকআপ ব্যবহার করলে তরুণীদের একটু বয়স্ক লাগতে পারে বৈকি।

Related Articles

Back to top button