গরমে সুগন্ধি

Posted on by

ব্রিট বাংলা ডেস্ক :: গরমে সতেজ ও তরতাজা থাকতে সুগন্ধি ব্যবহারের বিকল্প নেই। ঘামের গন্ধ আপনাকে এবং অন্যকে বিড়ম্বনায় না ফেলে সে জন্যও বাড়তি সুবিধা দেবে সুগন্ধি। এ জন্য এই গরমে পারফিউম, বডি স্প্রে ও ডিওডোরেন্টের ব্যবহারও বেড়ে যায় বহু গুণ। অনেকের আবার শুধু সুগন্ধির প্রতিই বাড়তি ভালোলাগা কাজ করে।

সুগন্ধির প্রতি মানুষের টানও সহজাত। প্রতিদিন সুগন্ধির ব্যবহার উন্নত ব্যক্তিত্ব প্রকাশের পরিচয়। এটা মনকে উত্ফুল্ল রাখতেও নিয়ামক হিসেবে কাজ করে। এ জন্য পোশাক, স্থান আর পরিবেশের সঙ্গে মিলিয়ে সুগন্ধি ব্যবহারের পরামর্শ দিলেন বিশেষজ্ঞরা। রূপ বিশেষজ্ঞ আফরোজা পারভীন বললেন, সুগন্ধি ব্যবহারের কার্যকারিতা নিয়ে। তাঁর মতে, নিজেকে সবার কাছে আকর্ষণীয় করে তুলতে কে না চান। সকালে ঘুম থেকে উঠে গোসল, পরিষ্কার কাপড় পরিধান করা যেমন জরুরি, তেমনি জরুরি সুগন্ধি ব্যবহার করা।

কখন ব্যবহার করবেন সুগন্ধি

অনেকেই বাইরে বের হওয়ার ঠিক আগ মুহূর্তে সুগন্ধি ব্যবহার করেন। এটা না করে বাইরে বের হওয়ার ২০ মিনিট আগে সুগন্ধি ব্যবহার করা উচিত। চাইলে মেকআপ শুরুর আগেই শরীরে সুগন্ধি ব্যবহার করতে পারেন। কানের পেছনে, হাতের কবজিতে সুগন্ধি ব্যবহার করুন। এতে করে মেকআপ নষ্ট হয়ে যাওয়ার ভয় থাকবে না। শরীরে যেসব জায়গায় রক্ত সঞ্চালন বেশি হয় এবং তুলনামূলক উষ্ণ সেসব জায়গায় সুগন্ধি ব্যবহার করুন। এসব জায়গায় সুগন্ধি ব্যবহার করলে সারা দিন সুরভিত থাকা যায়। বোতলজাত যেসব সুগন্ধি রয়েছে এগুলো সাধারণত চার থেকে পাঁচ ঘণ্টা স্থায়ী হয়। তবে এই সময় আবার বেশ কয়েকটি বিষয়ের ওপর নির্ভর করে। যারা দীর্ঘ সময় বাইরে ঘোরাফেরা করেন এবং বেশি ঘামেন তাঁদের শরীরে সুগন্ধির স্থায়ীত্ব কম হয়। সময়ের ওপর ভিত্তি করেও সুগন্ধি ব্যবহারের তারতম্য হয় বলে জানান শোভন মেকওভার স্যালুনের রূপবিশেষজ্ঞ শোভন সাহা। তিনি বলেন, দিনে এবং রাতে ব্যবহারের জন্য আলাদা আলাদা সুগন্ধি পাওয়া যায়। সাধারণত রাতের সুগন্ধিগুলো একটু কড়া ধাঁচের হয়ে থাকে। সুগন্ধির প্যাকেটের গায়ে লেখা না থাকলেও রং ও প্যাকেজিং দেখে রাত নাকি দিনের সুগন্ধি সেটা বুঝে নেওয়া যায়। উজ্জ্বল হলুদ বা কমলা রঙের প্যাকে হলে সেটা সাধারণত দিনে ব্যবহারের জন্য। প্যাকেটের রং যদি লাল, নীল অথবা বেগুনি রঙের হয় তবে তা রাতে ব্যবহারের জন্য। ও ডি পারফিউম, ও ডি টয়লেট পারফিউম রাতের ব্যবহারের জন্য ভালো। এ ছাড়াও ভিক্টোরিয়াস সিক্রেটের ভেরি সেক্সি, ক্লিনিকের হ্যাপি, ডিওরের পিওর পয়জন, জারা নাইট, শ্যানেলের কোকো ও ডি পারফিউম রাতের ব্যবহারের জন্য জনপ্রিয়তায় এগিয়ে।

আফরোজা পারভীন বলেন, দিনে ব্যবহারের জন্য হালকা গন্ধের সুগন্ধি বেছে নেওয়া ভালো। সারা দিন সতেজ অনুভূতি পাওয়া যাবে। যাঁরা ব্যস্ত দিন পার করেন তাঁরা ও ডি পারফিউম, ও ডি টয়লেট বেছে নিতে পারেন। এ ছাড়া শ্যানেলের কোকো মাদমোয়াজেল ও ডি পারফিউম, টম ফোর্ডের ব্ল্যাক অর্কিড, ভিক্টোরিয়াস সিক্রেটের বম্বশেল ও ডি পারফিউম, গুচ্চির ব্লুম, ভারসাচের ব্রাইট ক্রিস্টাল আবসলু, ডলচে অ্যান্ড গাবানার ডলচে বেছে নিতে পারেন দিনের সুগন্ধি হিসেবে। গরমের দিনে গাঢ় পারফিউম বেছে নিন। আর শীতের দিনে হালকা পারফিউমেও সারাটা দিন সুগন্ধে কেটে যাবে। 

সুগন্ধি ব্যবহারের আগে

জায়গা বুঝে সুগন্ধি নির্বাচন করুন। কোথাও যাওয়ার আগে বুঝে নিন সেখানে কেমন সুগন্ধি ব্যবহার করা ভালো। কর্মস্থলে কড়া সুগন্ধি ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। এতে অন্যরা সমস্যায় ভুগতে পারে। যেনতেনভাবে শরীরে সুগন্ধি ব্যবহার করা যাবে না। সুগন্ধি ব্যবহারের আগে মানতে হবে কিছু নিয়ম। তাতে ফলটাও ভালো মিলবে। সুগন্ধি ব্যবহারের আগে হাতে ও পায়ে ময়েশ্চারাইজার করে নিন। এতে দীর্ঘ সময় সুগন্ধির স্থায়িত্ব থেকে যাবে। গোসলের পর ভালো করে শরীর মুছে সুগন্ধি ব্যবহার করুন। চাইলে হট শাওয়ার নিতে পারেন। এতে লোমকূপগুলোর ছিদ্রগুলো প্রসারিত হয়। এরপর সুগন্ধি ব্যবহারে সেটা দীর্ঘ সময় স্থায়ী হবে। গলার কাছে এবং ঘাড়ে সুগন্ধি স্প্রে করুন। অন্তত ৫-৬ ইঞ্চি দূর থেকে সুগন্ধি স্প্রে করুন। এ ছাড়া হাঁটুর পেছনে, কনুইয়ে, নাভিতে, হাতের কবজিতে, গোড়ালিতে, কানের পেছনে, গলার কণ্ঠীতে সুগন্ধি নিতে পারেন। এসব স্থান শরীরের অন্যান্য অংশ থেকে উষ্ণ হওয়ায় সুগন্ধি ছড়ায় ভালো। পোশাক পরার আগেই সুগন্ধি লাগিয়ে নিন। সুগন্ধি লাগিয়ে বেশি কার্যকারিতার আশায় অনেকেই জায়গাটিতে ঘষতে থাকেন। এর কোনো বাস্তব উপযোগিতা নেই। ঘষার ফলে সুগন্ধি দ্রুত হালকা হয়ে যায়। ফলে গন্ধও খুব দ্রুত উবে যায়। নিজ থেকেই সুগন্ধি শুকিয়ে যাওয়ার সময় দিন। অনেকে ব্যবহারের আগে বোতল ঝাঁকিয়ে নেন। এটা করা যাবে না। তাতেও সুগন্ধি দ্রুত হালকা হয়ে যায়। সারাক্ষণ সুগন্ধে ভরপুর থাকতে চাইলে চার-পাঁচ ঘণ্টা পর আবার সুগন্ধি লাগিয়ে নিন।   

কোথায় পাবেন

রাজধানীর বড় বড় শপিং সেন্টার, কসমেটিকসের শোরুম ও সুপারশপগুলোতে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের পারফিউম, বডি স্প্রে ও ডিওডেরেন্ট কিনতে পাবেন। এ ছাড়া বিভিন্ন মার্কেটের কসমেটিকসের দোকান ও স্টেশনারি দোকানেও মিলবে সুগন্ধি পণ্য। পারফিউম ওয়ার্ল্ডের শো রুমেও পাওয়া যাবে পছন্দের সুগন্ধী। সুগন্ধি কেনার সময় ভালোমতো দেখে নিন। ভালো ব্র্যান্ডই শুধু নয়, ভালো দোকান থেকে সুগন্ধি কিনুন। ভালো মানের সুগন্ধিগুলোর বক্স অনেক শক্ত হয়। রং দেখে প্রতারিত হবেন না। বড় ব্র্যান্ডগুলো সাধারণত হালকা রঙের সুগন্ধি বানিয়ে থাকেন। প্রথমবার স্প্রে করার পর গন্ধটা যদি ১৫ ঘণ্টার বেশি টিকে যায় তবেই সেটা আসল সুগন্ধি। কেনার পর স্বাভাবিক তাপমাত্রায় রেখে দিন। সুগন্ধির রং যদি বদলে যেতে থাকে এবং ব্যবহারের পর ত্বক জ্বালাপোড়া করে তবে সেটি ব্যবহার করা যাবে না।

কেমন দাম

পারফিউম, বডি স্প্রে ও ডিওডেরেন্ট পণ্য ও মানভেদে বিভিন্ন রকমের হয়ে থাকে। ছেলেদের পারফিউম ও বডি স্প্রের দাম পড়বে ৩০০ থেকে তিন হাজার টাকা। মেয়েদের জন্যও বিভিন্ন ব্র্যান্ডের সুগন্ধি পাওয়া যায়। এগুলোর দাম পড়বে ৩০০ থেকে চার হাজার টাকার মধ্যে। এর বাইরেও উচ্চ মূল্যের নামি ব্র্যান্ডের কিছু পারফিউম পাবেন। এসব পারফিউমের দাম চার হাজার টাকা থেকে শুরু হয়ে তিরিশ হাজার পর্যন্ত হতে পরে। ভালো মানের পারফিউমের জন্য যেতে হবে বসুন্ধরা সিটি শপিং মল ও যমুনা ফিউচার পার্ক শপিং মলে।

Leave a Reply

Developed by: TechLoge

x