সিলেটজুড়ে স্বস্তি, নদ-নদীর পানি কমছে

Posted on by

সিলেট অফিস :: উদ্বেগ-উৎকন্ঠা কাটিয়ে স্বস্তির সংবাদ! সিলেটের নদ-নদীগুলোর পানি কমতে শুরু করেছে। সেই সাথে কমছে বৃষ্টিও। তবে রবিবারও সিলেটে কিছু বৃষ্টি ঝরেছে।

গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিপাত আর উজানের ঢলে সিলেট অঞ্চলের সবগুলো নদীর পানি বাড়ছিল। সুরমা কুশিয়ারা ও সারির সবগুলো পয়েন্টেই বিপদসীমা অতিক্রম করেছিল নদীগুলো।

রবিবার কোনকোন পয়েন্টে তা স্থিতিশীল ও কোনকোন পয়েন্টে বিপদসীমার নিচে নেমে এসেছে। তবে কুশিয়ারা শেওলা ও শেরপুরে সামান্য বেড়েছে।

কানাইঘাটে সুরমা রবিবার সন্ধ্যা ৬টায় বিপদসীমার ১ দশমিক ৩০ মিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। শনিবার তা ছিল বিপদসীমার ১ দশমিক ৫৮ মিটার উপরে। এই পয়েন্টে ২৪ ঘন্টায় সুরমার পানি কমেছে ২৮ সেন্টিমিটার।

সিলেট পয়েন্টে স্থিতিশীল আছে সুরমা। এ পয়েন্টে রবিবার সন্ধ্যা ৬টায় বিপদসীমার ৬০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। শনিবার প্রবাহিত হচ্ছিল ৬১ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে। এ পয়েন্টে পানি কমেছে ১ সেন্টিমিটার।

কুশিয়ারা ৩টি পয়েন্টের মধ্যে দুটিতে কিছুটা বেড়েছে আর একটিতে কমেছে। আমসীদে রবিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত পানি প্রবাহিত হচ্ছিল ১ দশমিক ৫৯ মিটার উপর দিয়ে। শনিবার বইছিল ১ দশমিক ৮২ মিটার উপর দিয়ে। ২৪ ঘন্টায় এ পয়েন্টে কমেছে ২৩ সেন্টিমিটার।

অবশ্য শেওলায় কুশিয়ারার পানি কিছুটা বেড়েছে। রবিবার সন্ধ্যায় পানি ছিল বিপদসীমার ১ সেন্টিমিটার উপরে। আগের দিন শনিবারে ছিল ৮৫ সেন্টিমিটার উপরে। বেড়েছে ১৫ সেন্টিমিটার।

শেওলার মতো কুশিয়ারা শেরপুরেও কিছুটা বেড়েছে। এ পয়েন্টে রবিবার সন্ধ্যা ৬টায় পানি প্রবাহিত হচ্ছিল বিপদসীমার ৫১ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে। শনিবার তা ছিল ৪৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে। বেড়েছে ৬ সেন্টিমিার।
সীমান্তবর্তী পাহাড়ী নদী সারির পানি খুব দ্রুত কমছে। রবিবার এ নদীটির পানি ছিল বিপদসীমার ৫৭ সেন্টিমিটার নিচে।আর শনিবার ছিল বিপদসীমার ৪২ সেন্টিমিটার উপরে।

অপর পাহাড়ী নদী লোভার পানি ছিল ১৪ দশমিক ৮৬ মিটার। এ নদীটির কোন বিপদসীমা নেই। শনিবার সন্ধ্যা ৬টায় পানি ছিল ১৫ দশমিক ৩৩ মিটার।

Leave a Reply

More News from সিলেট

Developed by: TechLoge

x