কমিউনিটি

নর্থাম্পটনে সেইন্ট জেমস মসজিদে ইনটেনসিভ কিরাত ও তাজউদ কোর্সের পুরস্কার বিতরন

এহসানুল ইসলাম চৌধুরী শামীম : প্রতিকুল অবস্থার মধ্যেও ইসলামী শিক্ষা বিস্তারে এক অন্যন্য ভুমিকা রেখে যাচ্ছে
ব্রিটেনের নর্থাম্পটনের প্রাচীনতম মসজিদ সেইন্ট জেমস বায়তুল মামুর জামে মসজিদ। এ মসজিদ দীশেখ দিন ধরে বয়স্কদের জন্যে বিশুদ্ধভাবে কোরআন শিক্ষা দিয়ে আসছে।সেইন্ট জেমস বায়তুল মামুর জামে মসজিদের উদ্যোগে প্রথমবারের মত অনুষ্ঠিত হলো বয়স্কদের ইনটেনসিভ কিরাত ও তাজউইদ কোর্সের পুরস্কার বিতরনী ও সার্টিফিকেট প্রদান অনুষ্ঠান।


বৃহস্পতিবার বায়তুল মামুর জামে মসজিদে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিপুল সংখ্যক মুসল্লী ও কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিগন উপস্থিত ছিলেন। মসজিদের ইমাম ও খতিব জামিল আহমদ তালুকদারের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারী আবদুল মতিনের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বায়তুল মামুর জামে মসজিদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম, সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল গফুর চৌধুরী, করবি মসজিদের ইমাম হাফিজ আবদুল হাসিব, মাওলানা জুবের আহমদ, বাংলা স্কুলের শিক্ষক এম এ নুর রউফ,  আল জামাত উল মুসলিমিন অফ বাংলাদেশ জামে মসজিদের চেয়ারম্যান মখন খান এবং ইমাম ও খতিব জামিল আহমদ চৌধুরী। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন ফিরোজ মিয়া, শহীদ আহমদ, আবদুস সালাম মাসুক, আবুল বশর মোহাম্মদ বায়েজিদ, মোস্তফা মল্লিক ও আবদুল হাইসহ আরো অনেকেই।
অনুষ্ঠানে অতিথিবৃন্দের হাত থেকে সার্টিফিকেট ও পুরস্কার নেন শিক্ষাথী শিহাব উদদীন (শাহাবুদ্দীন), সামছুল ইসলাম, তাহিদুল ইসলাম, তেরাব আলী, আবদুল হাই, আবদুল সালাম মাসুক, ছুনু মিয়া ও আজিজ মিয়া।
অনুষ্ঠানে বয়স্কদের কোরআন তেলাওয়াত সবাইকে মুগ্ধ করেছে।
বায়তুল মামুর জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব জামিল আহমদ বলেন, কয়েক বছর ধরে আমরা বয়স্কদের ক্লাস চালু রেখেছি। কোরআন শিক্ষার কোনো বয়স লাগে না।তাই সকলেরই কোরআন শিক্ষা নেওয়া জরুরী।

Related Articles

Back to top button