যুক্তরাজ্য

নো ডিল ব্রেক্সিট : থামাতে এবং কার্যকর করতে লেবার লিডার ও প্রধানমন্ত্রীর পাল্টাপাল্টি চিঠি

ব্রিটবাংলা ডেস্ক : কোনো ধরনের চুক্তি ছাড়াই ইইউ থেকে বের হয়ে আসবে ইউকে। তাই একে অগ্রাধিকার দিয়ে দ্রুত সব রকমের প্রস্তুতি নিতে সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। এক চিঠিতে এই আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী আরো বলেছেন, কোনো ধরনের চুক্তি ছাড়াই নির্ধারিত তারিখে ব্রেক্সিটকে তিনি নিজে অগ্রাধিকার দিচ্ছেন। তাঁর মতো সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের এতে অগ্রাধিকার দেওয়া উচিত। এর আগে লেবার লিডার জেরেমি করবিন এক চিঠিতে কোনো ধরনের চুক্তি ছাড়াই ব্রেক্সিট থামাতে কেবিনেট সেক্রেটারীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
চিঠিতে সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, তিনি চুক্তি করার চেষ্টা করবেন। তবে তা নাও হতে পারে। তাই চুক্তি ছাড়াই ইইউ থেকে বের হওয়ার চুড়ান্ত প্রস্তুতি নিতে সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া উচিত।
এদিকে লেবার লিডার জেরেমি করবিনসহ আরো অনেক রাজনৈতিক দল এবং এমপি নো ডিলে ব্রেক্সিট চান না। লেবার লিডার মনে করছেন, কোনো ধরনের চুক্তি ছাড়া ইইউ থেকে বের হবার পর প্রধানমন্ত্রী যদি সাধারণ নির্বাচনের ঘোষণা দেন তখন হয়তো পার্লামেন্টের এতোটা ক্ষমতা থাকবে না। শুক্রবার কেবিনেট সেক্রেটারী স্যার মার্ক সেডওয়েলের কাছে এক চিঠিতে সাধারণ নির্বাচনের আগে কোনো ধরনের চুক্তি ছাড়াই ব্রেক্সিট আইনসিদ্ধ কি না, তার ব্যাখ্যা জানতে চেয়েছেন। চিঠিতে লেবার লিডার বলেছেন, নির্বাচনী ক্যাম্পেইনের মধ্যে কোনো ধরনের চুক্তি ছাড়া ব্রেক্সিটে বাধ্য করা অপ্রত্যাশিত, অসাংবাধিনাকি, গণতন্ত্রবিরোধী এবং প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতার অপব্যবহার। এই অবস্থায় প্রয়োজনে ব্রেক্সিটের সময় বাড়ানোর জন্যে সরকাররকে পরামর্শ দিয়েছেন লেবার লিডার।

এদিকে সামার হলিডে শেষে আগামী মাসে পার্লামেন্ট শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সরকার অনাস্থা ভোটের মুখে পড়তে পারে বলেও ধারণা করা হচ্ছে। তাতে পরাজিত হলে, স্বাভাবিকভাবেই মাত্র চৌদ্দ দিনের ভেতরে সরকার গঠন করা সম্ভব হবে না। তাই ৩১শে অক্টোবরের পরে সাধারণ নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করতে পারেন। আর এরমধ্যেই কোনো ধরনের চুক্তি ছাড়াই ব্রেক্সিট হয়ে যাবে। এই সময় নিয়েই প্রধানমন্ত্রী এক ধরনের গেইম খেলছেন বলেও ধারণা করছেন অনেকে।
সরকার কোনো ধরনের চুক্তি ছাড়াই ব্রেক্সিটে বদ্ধ পরিকর হলেও অসংখ্য এমপি এর বিপক্ষে রয়েছেন।

Related Articles

Back to top button