যুক্তরাজ্য

লেবার লিডারশিপ নির্বাচন : জেস ফিলিপ সরে গেছেন-দৌঁড়ে এগিয়ে স্যার কিয়ার স্টারমার

ব্রিটবাংলা ডেস্ক : জমে উঠছে ইউকের রাজনৈতিক দল লেবার পার্টির নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা। দলের বর্তমান নেতা জেরেমি করবিন এমপির স্থলাভিষিক্ত হতে লড়ে যাচ্ছেন দলের ৫ জন এমপি। এম মধ্য থেকে মঙ্গলবার সরে দাঁড়িয়েছেন বার্মিংহ্যাম ইয়ার্ডলির এমপি জেস ফিলিপ। দলের ভেতরে ঐক্য ফিরিয়ে আনার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ক্যাম্পেইন করে যাচ্ছে প্রার্থীরা। আর এই কাজটির জন্যে তিনি যথাযথ ব্যক্তি নয় বলে জানিয়ে নেতা নির্বাচনের দৌঁড় থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন তিনি।

জেস ফিলিপ এমপি

এদিকে এরিমধ্যে নেতা নির্বাচনের মূল ব্যালেট পেপারে স্থান করে নিয়েছে বর্তমান শ্যাডো ব্রেক্সিট সেক্রেটারী স্যার কিয়ার স্টারমার। দলের নীতি অনুযায়ী মূল ব্যালট পেপারে নাম তোলার যোগ্যতা হিসেবে দলের এ্যফিলিয়েটেড দুটি ইউনিয়ন এবং ১৪টি সিএলপির মধ্যে ১১টির সমর্থন অর্জন করেছেন তিনি। ইউকের বৃহৎ ট্রেড ইউনিয়ন- ইউনিসনের সমর্থন আগেই পেয়েছিলেন তিনি। সর্বশেষ সোমবার ইউকের রিটেইল ইউনিয়ন – ইউএসডিএডাব্লিউ স্যার কিয়ার স্টারমারের প্রতি তাদের সমর্থন ঘোষণা করেছে। এছাড়া পরিবেশ সংক্রান্ত ইউনিয়ন এস ইআর এ সমর্থন করেছে তাকে।

এদিকে ইউকের অপর বৃহৎ ইউনিয়ন জেএমবির সমর্থন নিয়ে স্যার স্টারমারের পরেই নেতা প্রতিযোগিতায় মূল ব্যালট পেপারে নাম লেখানোর দৌঁড়ে এগিয়ে রয়েছেন এমপি লিসা নন্দী।

জেএমবির পাশাপাশি দ্যা ন্যাশনাল ইউনিয়ন অব মাইনওয়ার্কার্স এর সমর্থন পেয়েছেন লিসা নন্দী।

নেতা নির্বাচনে মূল ব্যালট পেপারে নাম তোলার দৌঁড়ে থাকা বর্তমান লিডার জেরেমি করবিনের ঘনিস্টজন বলে পরিচিত রেবেকা লং বেইলি এমপি তৃনমূল পর্যায়ের করবিন সমর্থক মোমন্টামের সমর্থন অর্জন করেছেন।

এদিক দিয়ে এখনো পিছিয়ে রয়েছেন শেডো ফরেন সেক্রেটারী এমিলি থর্ণবারি এমপি। চলতি সপ্তাহের ভেতরে ইউনাইট তাদের সিদ্ধান্ত জানাবে। এমিলি থর্নবারি এবং রেবেকা লংবেইলি কে পাবেন ইউনাইটের সমর্থন সেটা দেখার জন্য অপেক্ষা করতে হবে।

এদিকে দলের ডেপুটি লিডার পদে নির্বাচনে ইউএসডিএডাব্লিউ এবং জেএমবির সমর্থন পেয়েছেন এন্জেলা রেইনার এমপি। ডেপুটি লিডার পদে লড়ছেন ইরান ম্যারি এমপি, ডন বাটলার এমপি, রুসেনা আলিন খান এমপি এবং রিচার্ড বার্গন এমপি এবং এন্জেলা রেইনার এমপি।

গত ডিসেম্বরে ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে দলের ডেপুটি লিডার পদ থেকে পদত্যাগ করেন টম ওয়াটসন। তার স্থলাভিষিক্ত হবেন এই পাঁচ জনের যে কোনো একজন।

আগামি ১৪ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত লেবার পার্টি সমর্থিত ভিবিন্ন ইউনিয়ন, গ্রুপ এবং সিএলপি তাদের সমর্থন জানাতে পারবে যে কোন প্রার্থীর প্রতি। আর ২১ ফেব্রুয়ারী থেকে দলের পেইড সদস্য এবং  এফিলিয়েট সদস্যের জন্য ছাড়া চূড়ান্ত ব্যালট। ২ এপ্রিল ভোট গ্রহনের শেষ দিন। আর ৪ এপ্রিল ঘোষনা করা হবে লেবার পার্টির নতুন নেতা ও উপনেতার নাম।

Related Articles

Back to top button