ইউনাইটেডের জালে লিভারপুলের গোল উৎসব

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সঙ্গে রীতিমতো ছেলেখেলা করল লিভারপুল। ইতিহাস আর ঐতিহ্যে ঠাঁসা ইউনাইটেডকে ৪-০ গোলের হার উপহার দিয়েছে অলরেডরা। এই জয়ে ম্যানচেস্টার সিটিকে টপকে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠে গেছে ইয়ুর্গেন ক্লপের দল। আর ম্যাচে হেরে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলার আশা আরও ফিকে হয়ে গেছে ম্যান ইউয়ের।মঙ্গলবার (১৯ এপ্রিল) রাতে অ্যানফিল্ডে প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচটিতে আধিপত্য বিস্তার করে খেলেছে লিভারপুল। ম্যাচে মোহাম্মেদ সালাহ জোড়া গোল ছাড়াও জালের দেখা পেয়েছেন লুইস দিয়াস ও সাদিও মানে।লিগে গত শনিবার নরিচ সিটির বিপক্ষে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর হ্যাটট্রিকে ৩-২ গোলে জিতেছিল ইউনাইটেড। গত মাসে টটেনহ্যাম হটস্পারের বিপক্ষেও তিন গোল করেছিলেন তিনি। পর্তুগিজ তারকার কাঁধে চেপে শীর্ষ চারে থেকে লিগ শেষ করার আশায় ছিল দলটি। কিন্তু নবজাতক ছেলেকে হারানোর শোকে লিভারপুলের বিপক্ষে খেলেননি রোনালদো।দলের সেরা তারকাকে ছাড়া ন্যুনতম লড়াইটুকুও করতে পারল না ইউনাইটেড। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের আগোমী আসরে তাদের খেলার সম্ভাবনাও আরও মিইয়ে গেল।এই দারুণ জয়ে লিগে সিটির চেয়ে ২ পয়েন্টে এগিয়ে গেল লিভারপুল। অবশ্য বুধবার (২১ এপ্রিল) ব্রাইটন অ্যান্ড হোভ অ্যালবিওনের বিপক্ষে জিতলেই আবার শিরোপা লড়াইয়ের লাগাম হাতে নেবে ম্যানসিটি।

ম্যাচের পঞ্চম মিনিটে মাঝমাঠ থেকে ডি-বক্সে থ্রু পাস দেন মানে। গতিতে সবাইকে পেছনে ফেলে বল পেয়ে প্রথম ছোঁয়ায় ছয় গজ বক্সে বাড়ালেন সালাহ। আর ছুটে গিয়ে জোরাল শটে বল জালে জড়ান দিয়াস।এরপর যেন খেই হারিয়ে ফেলে ইউনাইটেড। প্রত্যাশিত চাপ ধরে রেখে ২২তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে স্বাগতিকরা। ডিফেন্ডারদের ওপর দিয়ে বল বাড়িয়েছিলেন মানে। তার দারুণ ক্রস ডি-বক্সে ডান পায় নিয়ন্ত্রণে নিয়ে সঙ্গে লেগে থাকা দিয়োগো দালোতকে কোনো সুযোগ না দিয়ে বাঁ পায়ের প্লেসিং শটে গোল করেন সালাহ।একের পর এক আক্রমণে ৩৫তম মিনিটে আবারও জালে বল পাঠান দিয়াস। তবে পরিষ্কার অফসাইডে ছিলেন তিনি।প্রথম ৪৫ মিনিটে লিভারপুলের দাপটের সামনে কোনো জবাবই যেন জানা ছিল না ইউনাইটেডের। সংখ্যার চিত্রেও সেটা পরিষ্কার; এই সময়ে লিভারপুল ৯ শট নিয়ে লক্ষ্যে রাখতে পারে তিনটি, সেখানে ইউনাইটেড কোনো শটই নিতে পারেনি।

দ্বিতীয়ার্ধে লিভারপুলের খেলার গতি কিছুটা কমে আসে। সেই সুযোগে আক্রমণে উঠতে থাকে ম্যানইউ। তবে তেমন কোনো সুবিধা করতে পারছিল না তারা। ৫৫তম মিনিটে গোলে দলের প্রথম শট নেন জ্যাডন স্যানচো, অনায়াসে বল হাতে জমান আলিসন।৬৮তম মিনিটে পাল্টা আক্রমণে গোল করেন লিভারপুল আক্রমণত্রয়ীর আরেক তারকা মানে। বাঁ দিক থেকে দিয়াসের পাস পেনাল্টি স্পটের কাছে পেয়ে জোরাল শটে লক্ষ্যভেদ করেন সেনেগালের ফরোয়ার্ড। আসরে এটি তার ১৪তম গোল।৮৫তম মিনিটে ইউনাইটেডের কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন সালাহ। বাঁ থেকে দিয়োগো জটার থ্রু পাস বক্সে বাঁ পায়ের আলতো ছোঁয়ায় নিয়ন্ত্রণে নিয়ে শট নেন তিনি। স্লাইডে ঠেকানোর চেষ্টা করা ডিফেন্ডার অ্যারন ওয়ান-বিসাকার পায়ে লেগে বল আগুয়ান দাভিদ দে হেয়ার ওপর দিয়ে জালে জড়ায়।গত অক্টোবরে আসরে প্রথম পর্বে সালাহর হ্যাটট্রিকে ৫-০ গোলে জিতেছিল ‘অল রেড’ নামে পরিচিত দলটি। এই নিয়ে লিগে সবশেষ আট দেখায় অপরাজিত রইলো তারা, পাঁচ জয় ও তিন ড্র।লিগে ৩২ ম্যাচে ২৩ জয় ও সাত ড্রয়ে ৭৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে উঠেছে লিভারপুল। এক ম্যাচ কম খেলা সিটির পয়েন্ট ৭৪। আর ৩০ ম্যাচে ৬২ পয়েন্ট নিয়ে তিন নম্বরে চেলসি। ৩২ ম্যাচে ৫৭ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে টটেনহ্যাম।৩১ ম্যাচ খেলা আর্সেনালের সমান ৫৪ পয়েন্ট ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের। কিন্তু গোল ব্যবধানে পিছিয়ে ষষ্ঠ স্থানে নেমে গেছে ৩৩ ম্যাচ খেলা রালফ র‌্যাঙ্গনিকের দল।

Advertisement