গ্রেটার ম্যানচেষ্টারে কিশোর ধর্ষণের অভিযোগে বাংলাদেশীর ৮ বছরের জেল

ব্রিটবাংলা ডেস্ক : গ্রেটার ম্যানচেষ্টারের বল্টনে  ১৫ বছর বয়সী এক কিশোরকে ধর্ষণের অভিযোগে ৩৩ বছর বয়সী এক বাংলাদেশী নাগরিককে ৮ বছরের জেলদন্ড দিয়েছে বল্টন ক্রাউন কোর্ট। দন্ডিত ব্যক্তির নাম মোহাম্মদ সুমন। তিনি ২০০৩ সালে তিনি ইংল্যান্ডে আসেন।
কোর্ট জানিয়েছে, ধর্ষণের শিকার কিশোর ২০১৮ সালের ২রা জুলাই মধ্য রাতে গোস্বা করে একা একা বাড়ি থেকে বের হয়েছিল। বল্টন টাউন সেন্টারে এসে সে একা ঘুরা ফেরা করছিল। এ সময় সুমনের সঙ্গে তার দেখা হয়। সুমন তাকে বন্ধুত্বেও কথা বলে প্রথমে ক্যানাবিস পানের প্রস্তাব দেন। এক সাথে ক্যানাবিস গ্রহণের পর মাথা ঝিমঝিম করতে শুরু করে বলে কোর্টকে জানিয়েছেন ধর্ষণের শিকার কিশোর। এরপর হাটার কথা বলে সুমন তাকে বল্টন লেডিস এবং গ্যার্লস ক্লাবের পেছনের কুইন্স পার্কে নিয়ে যান। সেখানে গিয়ে কথা প্রসঙ্গে সুমন যৌনতার কথা তুললে ভুক্তভোগি কিশোর তাতে ‘না’ বলেন। সাথে সাথে সুমন তাকে ঝাপটে পার্কের বেড়ার সঙ্গে চেপে ধরেন। এরপর জোরপূর্বক তাকে ধর্ষণ করেন। সুমনকে কোনো রকম ধাক্কা দিয়ে ফেলে কিশোর পালাতে চেষ্টা করলে, সুমন আবার তার পিছু নেন এবং কথা বলার চেষ্টা করেন। কিছু দুর গিয়ে পার্কের ভেতরে দ্বিতীয় দফায় তাকে ধর্ষণ করেন বলে ভুক্তভোগি কিশোরের আইনজীবি কোর্টকে জানিয়েছেন।
কিশোর জানিয়েছে, এই দুই ঘটনার পর সুমনকে হত্যার ব্যর্থ চেষ্টা করে হতাশ হয়ে নিজেই নিজের শরীরে ভাঙ্গা গ্লাস দিয়ে আঘাত করে। এরপর ভোর ৫টার দিকে পরিবারের কাছে ফিরে গেলেও এই বিষয়ে মুখ খুলেনি ওই কিশোর।
ঘটনার প্রায় আটদিন পর এক বন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে ভুক্তভোগি কিশোর বল্টন টাউন সেন্টারে আসেন। এখানে এসেই মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়ে সে। এরপর সঙ্গে থাকা বন্ধুকে সব কিছু খোলে বলে। বন্ধুটি সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ ডাকেন। সন্দেহভাজন পাষন্ডকে ধরার জন্যে পুলিশ ভুক্তভোগিকে সঙ্গে নিয়ে আশপাশের এলাকায় ঘুরছিল, এ সময় পাশের একটি দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা সুমনকে সনাক্ত করতে সক্ষম হন ওই ভুক্তভোগি। সুমনকে গ্রেফতারের পর পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে ভুক্তভোগির জামার মধ্যে সুমনের ডিএনএ’র উপস্থিতি পাওয়া যায়।
কোর্টে দীর্ঘ শুনানি শেষে ধর্ষণের দুটি অভিযোগে দোষি সাব্যস্ত হন মোহাম্মদ সুমন। সুমনকে ৮ বছরের জেল দন্ড দেন বিচারক। একই সঙ্গে সারা জীবনের জন্যে তাকে সেক্স অফেন্ডার্স হিসেবে রেজিস্টার করার নির্দেশ দেন বিচারক। এছাড়াও ভুক্তভোগি ওই কিশোরসহ ১৮ বছরের নীচে কারো সঙ্গে যোগাযোগ না করতেও সুমনকে বারন করা হয় কোর্ট থেকে।
উল্লেখ্য ২০০৩ সালে বৃটেন আসলেও সুমনের বিরুদ্ধে এর আগে কোনো অপরাধের অভিযোগ ছিল না।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Advertisement