কাউন্সিলরদের ক্যাসিনো–কাণ্ডে বিব্রত নন মেয়র

ব্রিট বাংলা ডেস্ক :: ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) একজন কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে ক্যাসিনোর সঙ্গে সম্পৃক্ততার অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়ে ডিএসসিসির মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন বলছেন, ‘এখানে বিব্রত হওয়ার প্রশ্ন ওঠে না। এ ধরনের কর্মকাণ্ড হতেই পারে। আমাদের দৃঢ়তার সঙ্গে এসব মোকাবিলা করতে হবে।’

আজ মঙ্গলবার দুপুরে ডিএসসিসির নগর ভবনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সাঈদ খোকন এ কথা বলেন। তিনি বলেন, যদি কোনো কাউন্সিলর জড়িত থাকেন, তাহলে আইন অনুযায়ী আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে। ঢাকার নির্বাচিত মেয়র হিসেবে আমি সর্বাত্মক সমর্থন সাহায্য ও সহযোগিতা করব।’

ডিএসসিসি মেয়র বলেন, চলমান অভিযানে বিতর্কিত কর্মকাণ্ডে জনপ্রতিনিধিদের জড়িয়ে যাওয়ার বিষয়টি এসেছে। আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে। এ কারণে আইনের কোনো ব্যত্যয় হবে না। সে যে পর্যায়ের জনপ্রতিনিধি হোক না কেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়নে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা শূন্য সহিষ্ণুতা বজায় রেখে যাচ্ছে। এটা অব্যাহত থাকবে।

ডিএসসিসির ৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও যুবলীগ নেতা এ কে এম মমিনুল হক সাঈদের বিরুদ্ধে ক্যাসিনো–বাণিজ্য, চাঁদাবাজি ও টেন্ডারবাজির অভিযোগ উঠেছে। অনুমতি ছাড়া এই কাউন্সিলরের যাতে বিদেশভ্রমণ করতে না পারেন, এ বিষয়ে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছিল ডিএসসিসি।

এ প্রসঙ্গে সাঈদ খোকন বলেন, ‘আমাদের একজন কাউন্সিলর নিয়মিত বোর্ড সভায় অনুপস্থিত ছিলেন। করপোরেশনের শৃঙ্খলা ভঙ্গ করেছেন। তাই তাঁর বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য আমরা স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ জানিয়েছিলাম। বিভিন্ন সূত্র থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী তিনি বিদেশভ্রমণ অনুমতি ব্যতিরেকে করছিলেন। অনুমতি ছাড়া যাতে বিদেশে ভ্রমণ করতে না পারেন, বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষকে তা লিখিতভাবে অবহিত করা হয়েছিল। ’

এর আগে নগর ভবনের সভাকক্ষে ঢাকা মহানগরীর অবৈধ যানবাহন বন্ধ, ফুটপাত দখলমুক্ত এবং অবৈধ পার্কিং বন্ধ করার উদ্যোগ গ্রহণ করার লক্ষ্যে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে ডিএমপি রাজউকসহ বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Advertisement