চীনে একদিনে বিদেশ-ফেরত সংক্রমণ দ্বিগুণ

ব্রিট বাংলা ডেস্ক :: ‍বিদেশ ফেরতদের মাধ্যমে চীনে একদিনে নতুন করে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ দ্বিগুণ হয়েছে। এ সংক্রমণকে ইংরেজিতে ‘ইম্পোর্টেড কেস’ বলে আখ্যায়িত করা হচ্ছে। অর্থাৎ বাইরে থেকে আক্রান্তরা করোনা ভাইরাস সংক্রমিত হয়ে দেশে ফিরছেন এবং তারা নতুন নতুন সংক্রমণ সৃষ্টি করছেন। এতে চীনের বিভিন্ন শহর ও প্রদেশে নতুন সংক্রমণ বৃদ্ধির আশঙ্কা সৃষ্টি হয়েছে। বেইজিং থেকে এ খবর দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, রোববার এই প্রক্রিয়ায় চীনে যে পরিমাণ মানুষ আক্রান্ত হয়েছিলেন সোমবার সেই সংখ্যা দ্বিগুণ হয়েছে। রোববার করোনা ভাইরাস সংক্রমণের সংখ্যা ছিল ৩৯। সোমবার তা দ্বিগুণ হয়ে ৭৮ হয়েছে। এর মধ্যে ইম্পোর্টেড কেস বা বাইরে থেকে বয়ে আনা সংক্রমণ রোববার ছিল ৩৯।

এই ক্যাটেগরিতে তা সোমবার বেড়েছে ৭৪।
এই ক্যাটেগরিতে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ঘটেছে চীনের রাজধানী বেইজিংয়ে। সেখানে বাইরে থেকে বহন করে আনা করোনা সংক্রমণের সংখ্যা ৩১। এরপরেই রয়েছে দক্ষিণের গুয়াংডং প্রদেশ। সেখানে সংক্রমিত হয়েছেন ১৪ জন। তারপরে রয়েছে অর্থনীতির প্রাণকেন্দ্র বলে পরিচিত সাংহাই। সেখানে সংক্রমণ ঘটেছে ৯ জনের দেহে। সব মিলিয়ে সোমবার চীনে বাইরে থেকে আমদানি করা করোনা সংক্রমণের মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪২৭। এ অবস্থায় বেইজিং ও অন্য শহরগুলোতে যাওয়া আন্তর্জাতিক ফ্লাইটগুলোতে স্ক্রিনিং, কোয়ারেন্টিন এবং গতিপথ বদলে দেয়ার জন্য কঠোরতা আরোপ করেছে বেইজিং। তবে তাতে চীনা নাগরিকদের ফেরানো যাচ্ছে না। ভাইরাস সংক্রমিত হয়েছে এমন দেশগুলো থেকে দেশে ফিরছেন অনেক চীনা শিক্ষার্থী।

দক্ষিণের শহর শেনঝেন মঙ্গলবার বলেছে, তাদের বিমানবন্দরে আগত সবার পরীক্ষা করা হবে। অন্যদিকে চীনের ভূখন্ড ম্যাকাউয়ে হংকং ও তাইওয়ানের সব পর্যটককে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। বিদেশ থেকে আসা কোনো একজন ভ্রমণকারীর মাধ্যমে বেইজিংয়ে প্রথম একজন সংক্রমিত হয়েছেন। সাংহাইয়েও একই অবস্থা।

Advertisement