চ্যানেল এসের বিশেষ উদ্যোগ : ফিড ফাইভ থাউজেন্ড

অসহায় পাঁচ হাজার পরিবারকে একমাসের খাবার প্রদানের বিশেষ অ্যাপিলে সবার সহযোগিতা কামনা করেছেন মাহি জলিল

সিলেটের চার জেলার বিভিন্ন থানায়, নিভৃত এলাকায়-গ্রামে চ্যানেল এস সাংবাকিদের সামনে কভিট নাইনটিন ক্রাইসেসে মানব বিপর্যয়ের কঠিন চিত্র ফুটে উঠছে। করোনা ভাইরাস নামের এই
শত্রু যেমন আজানা, এর আক্রমন যেমন নিরব, ঠিকক তেমনি এক নিরব কান্না চলছে ঘরে ঘরে। কেউ হয়তো মুখফুটে বলছেন, কেউ বলতেও পারছেন না।

কেউ রিক্সা চালাতেন, নৌকা চালাতেন, কেউ ছোটখাটো কাজ করতেন, গার্মেন্টস
শ্রমিক ছিলেন অথবা ছিলেন দিনমজুর। এখন বেকার। হাত পাতেন নি কখোনো-আজ বড় অসহায়।

বাংলাদেশ- বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতোই লকডাউন । সরকারের পাশাপাশি নানা সমাজিক ও ব্যক্তি উদ্যোগে চলছে ত্রান কার্যক্রম। অন্যতম শ্রেষ্ট ঘনবসিত পূর্ন ১৮ কোটি মানুষের দেশে সবাই সহযোগিতা পৌছানো প্রায় অসম্ভব।

সিলেট বিভাগের চার জেলায় প্রবাসীরাও বিপুল ভাবে ফোড প্যাক বিতরন করছেন। হ্রদয় খুলে স্ব উদ্যোগে অথবা সংগঠন-সংস্থার মাধ্যমে তারা কাজ করে যাচ্ছেন। কিন্তু শত-শত গ্রাম, হাজার-লাখো মানুষ থাকছেন হিসেবের বাইরে।

চ্যানেল এস- এ ক্ষেত্রে সম্বনিত ভাবে এতে নূন্যতম ভূমিকা রাখতে চায়। শত বর্ষের এই নজিরবিহীন পরিস্থিতিতে-কভিড ক্রাইসেস ফিড ফাইভ থাউসেন্ড ক্যাম্পেইন-এই এ কারনেই। জানালেন চ্যানেল এস ফাউন্ডার ও কডিভ ক্রাইসেস ক্যাম্পেইন চীফ মাহি জলিল।

তিনি বলেন, চ্যারিটি পার্টনার রেসকিউ এইড ট্রাস্ট-এর মাধ্যমে মূলত টিম চ্যানেল এস সবার সহযোগিতায় যথাসাধ্য মানুষের পাশে দাড়াতে চায়। ৫ হাজার পরিবারের ঈদ এবং রাদান পরবর্তি ১মাসের খাবারের ব্যবস্থা করতে চায়।

এই ক্ষেত্রে মাত্র ৫০ বা ১শ পাউন্ড দান করে-আপনি যেমন ৫ হাজার পরিবারকে খাবার তুলে দেয়ার উদ্যোগে যুক্ত থাকবেন, তেমনি ৫০টি ফোড প্যাকের ব্যবস্থা করে-অথ্যাদ ২৫শ পাউন্ড ডোনেশনের ব্যবস্থা করে-আপনি হতে পারেন কডিভ ক্রাইসেস পার্টনার: ফিড ফাইভ থাউজেন্ড। অথবা ১ হাজার পাউন্ড ডোনেশন করে হতে পারেন কডিভ ক্রাইসেস স্পনসর।

চ্যানেল এস-এ কভিড ক্রাইসেস-ফিড ফাইভ থাউজেন্ড-এর লাইভ চ্যারিটি এপিল দেখুন ৩মে এবং ১০ মে রোববার-বিকেল ৫টা থেকে ফজর পর্যন্ত।

Advertisement