চ্যানেল এস এবং মাহি ফেরদৌসকে ক্যানারি ওয়ার্ফ গ্রূপের সংবর্ধনা

ব্রিটবাংলা রিপোর্ট : প্রতিষ্ঠার ১৪ বছর পূর্তি উপলক্ষে ব্রিটেনের জনপ্রিয় টেলিভিশন চ্যানেল-চ্যানেল এসকে সংবর্ধনা প্রদান করেছে লন্ডনের শীর্ষ ফাইনান্সিয়াল সিটি খ্যাত ক্যানারিওয়ার্ফ। অনুষ্ঠানে চ্যানেল এসের ফাউন্ডার মাহি ফেরদৌস জলিলকে ফুলেল শুভেচ্ছা এবং সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, চ্যানেল এসের মাধ্যমে কমিউনিটির কল্যাণে অনন্য অবদান এবং এর পেছনে তাঁর বিশেষ ভূমিকা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। এ সময় কেনেরিওয়ার্ফের এমডি জনগ্যারউড বলেন, বৃটিশ সোসাইটিতে,  বিশেষ করে কমিউনিটির সেরা মিডিয়া হিসেবে চ্যানেল এসের অবদান অনন্য।


গত ৭ জানুয়ারী, সোমবার ওয়ান কানাডা স্কোয়ারের ৩৯ তলায় ক্যানারীওয়ার্ফের এসোসিয়েট ডিরেক্টর জাকির খানের পরিচালনায় তাদের কোম্পানীর পক্ষ থেকে সম্মাননা ক্রেস্ট ও উপরহার তুলে দেয়া হয় চ্যানেল এসের ফাউন্ডার মাহি ফেরদৌস জলিলের হাতে।

প্রাচীনম সংগঠন বাংলাদেশ ক্যাটারার্স এসোসিয়েশন, চেম্বার অব কমার্স, ইউকেবিসিসিআই , এফওবিসি, উইম্যান চেম্বার, স্পোটিং বেঙ্গল, গ্রেটার সিলেট কাউন্সিল, বিয়ানীবাজার ক্যান্সার হাসপাতাল, লন্ডন মুসলিম সেন্টারসহ বিভিন্ন সংগঠনের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে অংশ নেন এবং তারা চ্যানেল এসের ফাউন্ডার মাহি ফেরদৌস জলিলকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। এ সময় তারা, কমিউনিটিতে মাহি ফেরদৌসের ব্যক্তিগত অবদানের কথাও স্বীকার করেন। বিভিন্ন সমস্যার পাশাপাশি কমিউনিটির সাফল্যগুলো মূলধারার তুলে ধরার জন্য চ্যানেল এস কর্তৃপক্ষ এবং সাংবাদিক, স্টাফসহ সকলকে ধন্যবাদ জানান অতিথিরা।

অতিথিরা আরো বলেন, সব মিডিয়াই কমিউনিটির জন্য কাজ করছে, কিন্তু স্বীয় কাজের জন্যে চ্যানেল এস ও মাহি ফেরদৌস জলিল আলাদাভাবে এই সম্মাননার দাবিদার। এ জন্য ক্যানারি ওয়ার্ফকেও ধন্যবাদ জানান তারা।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে অবস্থানরত চ্যানেল এসের চেয়ারম্যান আহমেদ উস সামাদ চৌধুরী জেপি ভিডিও বাতার মাধ্যমে ক্যানারি ওয়ার্ফ  গ্রূপসহ সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। এরপর অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন চ্যানেল এসের ফাউন্ডার মাহি ফেরদৌস জলিল। প্রায় পঁচিশ মিনিটের বক্তব্যে তিনি চ্যানেল এস প্রতিষ্ঠার মূল উদ্দেশ্য, কমিউনিটির অগ্রযাত্রায় এর ভূমিকা, নিজের চ্যালেঞ্জিং জীবন-বাস্তবতা সব অত্যন্ত খুলামেলা তুলে ধরেন। সুন্দর সমাজ ও মানবিকতার ক্ষেত্রে একসাথে কাজ করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
অনুষ্ঠানের শেষ দিকে চ্যারিটি পার্টনার ইকরার ফান্ড ভিকটিমস বিল্ডিং প্রজেক্টের আনুষ্ঠানিক সূচনা করা হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Advertisement