জুমার নামাজে শান্তি-সম্প্রীতির জন্য প্রার্থনা

দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা ও শান্তির জন্য মহান সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করেছেন মুসল্লিরা। শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) রাজধানীর বিভিন্ন মসজিদে জুমার খুতবায় ও নামাজ শেষে মোনাজাতে দেশে সম্প্রীতি ও শান্তি কামনা করা হয়েছে।রাজধানীর বিভিন্ন মসজিদে জুমার নামাজের খুতবায় বিশ্ব শান্তি ও ধর্মে-ধর্মে সম্প্রীতি রক্ষার জন্য খুতবায় মোনাজাত করা হয়। অনেক মসজিদে আসন্ন পবিত্র ঈদে মিলানুন্নবী উপলক্ষ্যে মহানবীর (সা.) জীবনদর্শনের ওপরও আলোচনা হয়েছে।নামাজের পর হঠাৎ মিছিল বের করে কিছু তরুণ মুসল্লি রাজধানীর গুলিস্থানে পীর ইয়ামেনি মার্কেট জামে মসজিদের খতিব মুফতি ইমরানুল বারী সিরাজী বলেন, বিশ্ব শান্তির প্রতীক হচ্ছেন হযরত মুহাম্মদ (সা.)। আল্লাহ তায়ালা মহানবীকে বিশ্ব শান্তির জন্য পাঠিয়েছেন। ইসলামের শান্তির বারতা, মহানবীর জীবনদর্শনসহ নানা বিষয়ে খুতবায় আলোচনা করা হয়েছে। মোনাজাতে সৃষ্টিকর্তার কাছে দেশে সম্প্রীতি ও শান্তির জন্য সাহায্য প্রার্থনা করা হয়েছে।’
জুমার খুতবায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদে ঈদে মিলাদুন্নবী নিয়ে আলোচনা করেছেন খতিব। বায়তুল মোকাররম মসজিদসহ অন্যান্য মসজিদেও ইসলামে শান্তির দিক তুলে ধরে মুসুল্লিদের উদ্বুদ্ধ করেন ইমাম। এছাড়া, রাজধানীর উত্তরা, আজিমপুর, মগবাজার, পান্থপথ, পুরান ঢাকার কিছু মসজিদের মুসুল্লিরাও জানিয়েছেন, খতিবগণ ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে শান্তির পক্ষে মুসুল্লিদের সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।
এদিকে, শুক্রবার দুপুরে বায়তুল মোকাররমে জুমার নামাজ শেষ হওয়ার পর কিছু তরুণ ও কিশোর বয়সী মুসুল্লি তড়িঘড়ি করে মিছিল বের করে। নামাজ শেষ হতে না হতেই বিক্ষোভকারীরা স্লোগান দিয়ে বের হয়ে পল্টন মোড় হয়ে বিজয় নগরের দিকে চলে যায়।বায়তুল মোকাররম এলাকায় দায়িত্বরত একাধিক সাংবাদিক জানান, জুমার নামাজ শুরু হওয়ার আগে মসজিদের ভেতরে কর্তব্যরত সাংবাদিকদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করে বিশৃঙ্খলা কিছু লোক। পরে অন্য মুসুল্লিরা তাদের নিবৃত করেন।পল্টন মোড় থেকে বিজয়নগর সড়কটির আশেপাশের গলি থেকে কিছু তরুণ আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর ওপর ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করলে পুলিশ কয়েক রাউন্ড টিয়ারগ্যাস শেল ও রাবার ছুঁড়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।আশেপাশের গলি থেকে কিছু তরুণ আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর ওপর ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে পল্টন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সালাউদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘পরিস্থিতি এখন শান্ত রয়েছে। যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। বিশৃঙ্খলা এড়াতে বেশ কয়েক রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করা হয়েছে। পুলিশের কয়েক সদস্য আহত হয়েছে। পরবর্তীতে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো সম্ভব হবে।’প্রসঙ্গত, আজ শুক্রবার হেফাজতে ইসলামসহ ইসলামি দল বা সংগঠনগুলোর কোনও পূর্বঘোষিত অনুষ্ঠান ছিলো না। এমনকি হেফাজতের পক্ষ থেকে গতকাল রাতেই এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে দিয়ে জানানো হয়েছে, তাদের কোনও কর্মসূচি নেই।

Advertisement