ডাক্তার জাহিদুরের বক্তব্য প্রকাশের পর শফিক চৌধুরীর রহস্যজনক ফেইসবুক স্ট্যাটাস

ব্রিটবাংলা রিপোর্ট : সিলেটে এক এমপিকে মেরে ফেলার কন্ট্রাক্ট লন্ডন থেকে! আগ্নেয়াস্ত্রসহ আটক ডাক্তার জাহিদুর রহমানের এই বক্তব্য সংবাদপত্রে প্রকাশের পর বালাগঞ্জ-বিশ্বনাথের সাবেক এমপি ও সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সেক্রেটারী শফিকুর রহমান চৌধুরীর একটি ফেইসবুক স্ট্যাটাস লন্ডনে টক অব দ্যা কমিউনিটিতে পরিণত হয়েছে

ডাক্তার জাহিদুর রহমান পুলিশকে কি বলেছেন? বিস্তারিত জানতে নিচের লিঙ্কে ক্লিক করুন…

https://britbangla24.com/news/41957

কন্ট্রাক্ট কিলার আটকের সংবাদ বের হওয়ার পরই তিনি তার ফেইসবুক একাঊন্ট থেকে লিখেন, “মহান আল্লাহ পাক হেফাজতের মালিক-মান সম্মান ও ইজ্জতের মালিক,
সকলের দোয়া সাথে থাকলে কোন অপশক্তিই ক্ষতি করতে পাবরে না । আপনাদের দোয়া চাই।”

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত শফিকুর রহমান চৌধুরীর ষ্ট্যাটাসে ১২১ টি শেয়ার ও ৪২৫টি লাইক ছিল।

যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং লন্ডনে বর্নবাদ বিরোধী আন্দোলনের প্রথমসারির নেতা শফিক চৌধুরী প্রবাস থেকে গিয়ে বালাগঞ্জ-বিশ্বনাথের  এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন। গত নির্বাচনে তার সিটটি জাতীয় পার্টিকে ছেড়ে দেওয়া হয়। শান্তনা পুরস্কার হিসেবে তাকে বানানো হয় সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক।

দেশের ত্যাগি নেতাদের ডিঙ্গিয়ে প্রবাস থেকে গিয়ে প্রথমে এমপি নির্বাচিত হওয়া তারপর জেলা আওয়ামীলীগের সেক্রেটারী হয়ে টিকে থাকা কতোটা কঠিন সেটা হয়তো শফিক চৌধুরী নিজেই হারে হারে টের পাচ্ছেন। 

এদিকে তার সাবেক নির্বাচনী আসনের বর্তমান এমপি জাতীয় পার্টির এহিয়া চৌধুরী। শফিক চৌধুরীকে বাদ দিয়ে এই আসনে আওয়ামীলীগের মনোনয়নের জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছেন ইউকে আওয়ামীলীগের আরেক প্রভাবশালী নেতা আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী। অন্যদিকে আগামি নির্বাচনে এই আসনে বিএনপির শক্তিশালী প্রার্থী হয়ে আসতে পারেন নিঁখোজ এমপি ইলিয়াস আলীর স্ত্রী। ইলিয়াস আলীর ছোট ভাইও প্রবাস থেকে এই আসনে বিএনপির মনোনয়নের চেস্টা করছেন বলেও জানা গেছে।

কি কারণে এবং কেন ডাক্তার জাহিদুর রহমান গ্রেফতারের  পর শফিক চৌধুরী এমন স্ট্যাটাস দিলেন সেই হিসাব মেলাতে গিয়েই মুখে মুখে এসব কথা সামনে চলে আসছে। কন্ট্রাক্ট কিলার আটকের পরপরই শফিকুর রহমান চৌধুরীর স্ট্যাটাসকে দুইয়ে দুইয়ে চার মেলানোর চেষ্টা করছেন অনেকেই। নাম প্রকাশ না করার শর্তে অনেকেই বলছেন, যেহেতু শফিকুর রহমান চৌধুরীর অনেক রাজনৈতিক শত্রু রয়েছেন সেহেতু তাকে হত্যার চেষ্টার বিষয়টি অমূলক নয়। তবে আলোচনায় জাতীয় পার্টির ইউকে প্রবাসী হুইপ সেলিম উদ্দিন এমপির  সঙ্গে দলের আরেক প্রবাসী নেতার অভ্যন্তরীন দ্বন্দ্বের দিকে আঙ্গুল তুলছেন কেউ কেউ।

এবার দেখার পালা পুলিশি তদন্ত কোন দিকে মোড় নেয়। তদন্ত থেকে সত্য বেরিয়ে আসবে বলেও আশা করছেন প্রবাসীর।

Advertisement