তৃতীয় দফায় ব্যর্থ ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী : অনিশ্চিত ব্রেক্সিট

ব্রিটবাংলা ডেস্ক : তৃতীয়বারের মতো হাউস অব কমন্সে এমপিদের ভোটে প্রত্যাখ্যাত হল ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর থেরিসা মে’র ব্রেক্সিট বিল।
ব্রেক্সিট বিলে সমর্থন দিলে ক্ষমতা থেকে সরে যাবেন বলে বুধবার দলীয় এমপিদের প্রতিশ্রুতি দেওয়ার পরেও ২৯ মার্চ, শুক্রবার ৫৮ ভোটে প্রত্যাখ্যাত হল প্রধানমন্ত্রীর বেক্সিট বিল। ৩৪৪ ভোট পড়ে বিপক্ষে। আর পক্ষে পড়ে ২৮৬ ভোট। নিজ দলের এমপিদের সহযোগিতা না পেলেও লেবার পার্টির পাঁচজন এমপির সহযোগিতা পেয়েছেন কনজারভেটিভ প্রধানমন্ত্রী থেরিজা মে।
যদিও প্রধানমন্ত্রী আগামী সপ্তাহে চতুর্থ দফায় বিলটি পার্লামেন্টে উত্থাপনের আশা করছেন। তবে তৃতীয় দফায় প্রত্যাখ্যাত হওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, শুক্রবারের কমন্সের এই সিদ্ধান্তের ফলে বৃটেনকে ১২ এপ্রিল ইউনিয়ন থেকে বের হয়ে আসতে হবে। সেই হিসাবে আর মাত্র ১৪ দিন আছে ব্রেক্সিটের।
কারণ গত সপ্তাহে ইইউ জানিয়েছিলেন, প্রধানমন্ত্রীর ব্রেক্সিট বিল তৃতীয় দফায় পার্লামেন্টে প্রত্যাখ্যাত হলে নো ডিল ব্রেক্সিট হয়ে যাবে। আর যদি ব্রেক্সিট বিল পাশ হয় তাহলে ২২মে পর্যন্ত ব্রেক্সিট দেরি করা যাবে। এমনকি প্রধানমন্ত্রীর বিল যদি আগামী সপ্তাহে চতুর্থ দফায় পার্লামেন্টে উত্থাপনের পর পাশ হয়ে যায় তাহলে ব্রেক্সিট ২২শে পর্যন্ত গড়াতে পরে।
শুক্রবার ব্রেক্সিট বিল প্রত্যাখ্যাত হওয়ায় আগামী ১০এপ্রিল জরুরী বৈঠকে বসতে যাচ্ছে ইইউ। ওই বৈঠকে যদি ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর অনুরোধে ব্রেক্সিটের সময় সীমা আরো বাড়ানো হয় তাহলে ব্রিটেনকে ইউরোপিয়ান পার্লামেন্ট ইলেকশনে অংশ গ্রহণের সুযোগ দেওয়া হতে পারে।
২৯শে মার্চ সকাল ১১টার সময় ব্রেক্সিট হওয়ার কথা ছিল। আর এদিনেই তৃতীয় দফায় পার্লামেন্টে প্রধানমন্ত্রীর ব্রেক্সিট বিল প্রত্যাখ্যাত হয়। এদিকে দিনভর পার্লামেন্ট স্কোয়ারে ব্রেক্সিটিয়ারদের বিশাল উপস্থিতি ছিল।
উল্লেখ্য এর আগে গত জানুয়ারী এবং মধ্য মার্চে দুবার হাউস অব কমন্সে এমপিদের ভোটে প্রধানমন্ত্রীর ব্রেক্সিট বিল প্রত্যাখ্যাত হয়েছিল।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Advertisement