Home যুক্তরাজ্য দবির চাচা হাঁটবেন এবারো : ১৭ এপ্রিল যোগ দিন ভার্চুয়ালী

দবির চাচা হাঁটবেন এবারো : ১৭ এপ্রিল যোগ দিন ভার্চুয়ালী

ব্রিটবাংলা : করোনা মহামারী শুরুর পর গত রামাদানে নিজের ঘরের পাশের বাগানে শত কদম হেঁটে ফান্ড রেইজ করেছিলেন কবি দবিরুল ইসলাম চৌধুরী। ইউকের সীমানা ছাড়িয়ে বিশ্বব্যাপি শতবর্ষী দবির চাচার এই মহতী উদ্যোগের প্রশংসা কুড়িয়েছে।
১০১ বছর বয়সী কবি দবিরুল ইসলাম চৌধুরী সময় পেলেই তরজমাসহ পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন। পবিত্র কোরআনকে সঙ্গে নিয়ে মানবতার জন্যেই নিজের জীবন উৎসর্গ করতে চান। করোনা সংকটকালে চ্যানেল এসের রামাদান ফ্যামিলি কমিটমেন্টের জন্যে এবারো রোজা রেখে হাঁটবেন দবির চাচা।
আগামী ১৭ এপ্রিল, শনিবার ব্রিটেন সময় দুপুর দুটায় সবাইকে সঙ্গে নিয়ে হাঁটবেন দবির চাচা। চ্যানেল এসের হেড অব প্রোগ্রামস ফারহার মাসুদ খান জানালেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অন্তত ১শ ৫০টি শহরে স্থানীয় সময় অনুযায়ী দবির চাচার সঙ্গে হাঁটবেন বলে বিপুল সংখ্যক মানুষ এরিমধ্যে নিশ্চিত করেছেন। তিনি আশা করেন, আগামী ১৭ এপ্রিলের আগে এই সংখ্যা আরো বাড়বে। ফারহান মাসুদ খান জানান, দবির চাচার ফাইন্ড রেইজে সহযোগিতা করতে এরিমধ্যে জাস্ট গিভিং পেইজে দান করতে শুরু করেছেন দানশীলরা। দবির চাচার সঙ্গে হাঁটার পাশাপাশি দানশীল উৎসাহীরা, জাস্ট গিভিং পেইজে টিম মেম্বার হয়েও ফান্ড রেইজ করে দবির চাচাকে সহযোগিতা করতে পারবেন বলেও জানান তিনি।

চ্যানেল এসের ফাউন্ডার মাহি জলিল আশা করছেন, গতবারের মতো এবারো বিশ্বব্যাপি ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা দানশলী ব্যক্তিরা ১০১ বছর বয়সী দবির চাচাকে উৎসাহ যোগাতে এগিয়ে আসবেন। তিনি জানান, দবির ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে যে অর্থ রেইজ করা হয়, তা চ্যানেল এসের সঙ্গে রামাদানে যেসব চ্যারিটি সংস্থা ফান্ড রেইজ করে তাদেরকে সমানভাগে ভাগ করে দেওয়া হয়। আর তাদের মাধ্যমে ইউকেসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান এবং অসহায়, দরিদ্রদের কাছে সেই অর্থ গিয়ে পৌঁছে। এবার দবির চাচার ফান্ডরেইজের অর্থ সিরিয়ায় যুদ্ধবিধ্বস্তদের মাঝেও পৌঁছাবে বলে জানান তিনি।


দবির চাচার সঙ্গে এরিমধ্যে হাঁটতেও শুরু করেছেন, কমিউনিটির বিশিষ্টজনরা। লকডাউন নিয়ম মেনে গত বৃহস্পতিবার টাওয়ার হামলেটসের ইয়ং মেয়র জ্যামি বারি তাঁর কেবিনেটের দুজন সদস্যকে সঙ্গে নিয়ে দবির চাচার সঙ্গে হেঁটেছেন। ইয়ং মেয়র জেমি বারি দবিরুল ইসলাম চৌধুরীকে দাদা বলে সম্বোধন করে বললেন, তিনি যে নিজর স্থাপন করেছেন, তা সবার জন্যে অনুপ্রেরণার অংশ হয়ে থাকবে।