ধোনি চাইলেই আইপিএলে ফিরতে পারেন রায়না

ব্রিট বাংলা ডেস্ক : চেন্নাই সুপার কিংসের (সিএসকে) অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির মতো হোটেলে ব্যালকনিসহ রুম না পাওয়ায় রাগ করেই সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে দেশে ফেরেন সতীর্থ সুরেশ রায়না। আইপিএল না খেলে দুবাই থেকে রায়না ভারতে ফিরে আসায় হতাশই হয়েছেন ফ্রাঞ্চাইজিটির মালিক এন শ্রীনিবাসন।

গত মাসের শেষ দিকে রায়না দেশে ফিরে যাওয়ার পর হতাশা প্রকাশ করে শ্রীনিবাস বলেছিলেন, ক্রিকেটাররা নিজেদের সবার চেয়ে বড় ভাবে কিন্তু চেন্নাই সুপার কিংস একটা পরিবারের মতো। সবাই সবার সঙ্গে মিলেমিশে থাকে। আমার বক্তব্য খুব পরিষ্কার, কারও যদি ইচ্ছে না হয় তাহলে সে দেশে ফিরে যাওয়াই ভালো। আমরা কাউকে জোর করব না। আসলে সাফল্য কখনও কখনও কারও মাথা ঘুরিয়ে দেয়।

মামুলি বিষয় নিয়ে রাগ করে দেশে ফিরে নিজের ভুল বুঝতে পেরেছেন সুরেশ রায়না। সেজন্য তিনি ফ্রাঞ্চাইজি মালিককে ফোন করে নিজের ভুলের জন্য ক্ষমাও চেয়েছেন। এখন অধিনায়ক ধোনি এবং চেন্নাইয়ের টিম ম্যানেজমেন্ট যদি চায় তাহলেই আইপিএল খেলার সুযোগ পাবেন রায়না।

চেন্নাই সুপার কিংসের এক কর্মকর্তা ইনসাইড স্পোর্টসকে জানিয়েছেন, দেশে ফিরে যাওয়ার পরই সিএসকের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে রায়নাকে। তারপরই টিম ম্যানেজমেন্ট, সিইও, ধোনি ও কোচ ফ্লেমিংয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করে আইপিএলে ফেরার ইচ্ছাপ্রকাশ করেন রায়না।

তিনি আরও বলেছেন, আমার সীমার পরিধি আমাকে বুঝতে হবে, আমরা একটা দলের মালিক, একটা ফ্র্যাঞ্চাইজি পরিচালনা করি। তবে ক্রিকেটারদের পরিচালনা করার কোনো এখতিয়ার আমাদের নেই। তাছাড়া আমি দলের অধিনায়কও নই। সর্বকালের সেরা অধিনায়ক আমাদের। তাই ক্রিকেট সংক্রান্ত বিষয়ে কেন আমি নাক গলাব?

সিএসকের সিইও কাশি বিশ্বনাথন জানিয়েছেন, তিনি টিম ম্যানেজমেন্টকে নির্দেশ দিয়েছেন সুরেশ রায়নার পরিবর্তে অন্য কাউকে খোঁজার জন্য। তবে এখনও কাউকে নেয়া হয়নি।

চেন্নাই সুপার কিংসের রায়নার ভাগ্য নির্ভর করছে ধোনির ওপর। ভারতীয় সাবেক এই সফল অধিনায়ক যদি চান তাহলেই আইপিএলে ফিরতে পারেন রায়না। তা না হলে চেন্নাই সুপার কিংসের পরিবার থেকে অতীত হয়ে গেলেন তিনি।

করোনাভাইরাস ভারতে তুলনামূলক বেশি সংক্রমিত হওয়ায় এ বছর আইপিএল হচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাতে। আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর শুরু হবে আইপিএলের ১৩তম আসর।

Advertisement