ফেইথ প্রিন্টিং প্ৰেস পূর্ব লন্ডনের মধুর কেন্টিন !

ছবিঃপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড:গওহর রিজভী ফেইথ পরিদর্শনে

আহাদ চৌধুরী বাবু: ঢাকার মধুর কেন্টিন বাংলাদেশ রাজনীতি সংস্কৃতির উত্তান পতনের যেভাবে নিরব বা সরব স্বাক্ষী হিসেবে ইতিহাসের অংশ হয়ে আছে,ঠিক একই ভাবে তৃতীয় বাংলা খ্যাত বিলেতের পূর্ব লন্ডনের বাঙ্গালী অধ্যুষিত ব্রিক লেইনের গ্যাটোরেক্স স্ট্রিট এর মাইক্রো বিজনেস্ পার্কের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানটি সময়ের ব্যবধানে আজ শিল্প সাহিত্য,সংস্কৃতি আর কমিউনিটির পদচারনার ক্ষেত্র হয়ে দাড়িয়েছে ৷

নান্দনিকতার ছোঁয়া নিয়ে শৈল্পিক এবং আধুনিক চিন্তা ধারনা নিয়ে দুই হাজার সালে যাত্রা করে প্রথম ৷

ছবি: জি আর সুহেল

লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের বর্তমান সাধারন সম্পাদক চ্যানেল এসের চীফ রিপোর্টার মোহাম্মদ জুবায়ের, এলবি টিভির কর্নদার শাহ ইউসুফ ও জামিল ফরাজীর হাত ধরে যৌথ উদ্যোগ ও মুলধনের মাধ্যমে শুরু হয় কমিউনিটিতে যাত্ৰা ৷

ছবিঃ বাকের ভাই খ্যাত মাননীয় মন্ত্রী সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় ( বাংলাদেশ)আসাদউজ্জামান নূর এমপির ফেইথ পরিদর্শন

অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান এর ফেইথে আগমন
প্রখ্যাত গণসঙ্গীত শিল্পী বীর মুক্তিযুদ্ধা ফকির আলমগীর ফেইথে

প্রথম পর্যায়ে হোয়াট চ্যাপলের ভ্যালেন্স রোডে যাত্রা শুরু হয়৷

পরে এর মালিকানা বদল হয়ে রিয়াজুল ইসলাম ও মোসলেহ উদ্দিন আহমদ  এর হাতে চলে আসে ৷

পরবর্তীতে রিয়াজুল ইসলাম ব্যবসা ছেড়ে দিলে মোসলেহ উদ্দিন আহমদ ও শফিকুল ইসলাম কিনে নেন ৷

এক পর্যায়ে সম্পূর্ন্ন মালিকানা চলে আসে মোসলেহ উদ্দিন আহমদের হাতে৷

দুই হাজার আট থেকে তার তত্বাবধানে ৷

এর পর থেকে কমিউনিটির নির্ভর যোগ্য প্রিন্টিং হাউস হিসেবে মর্যাদার সাথে নিজেদের স্থান করে নেওয়ার পাশাপাশি,বর্তমান সময়ে এটি শিল্প সাহিত্য সহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানু্ষের টঙ্গী ঘর হিসেবে ব্যবহ্নত নয় শুধু, সময় অসময়ের ক্লান্ত জনের,ক্লান্তি নিবারণ এক পেয়ালা গরম চা অথবা দুপুরের খাবার খেতে ঘর যেতে মন, না চাইলে ফেইথে ভুরী ভুজনের আয়োজন টুকু থাকে সব সময় ৷

স্বদেশ ও বিলেতের সকল স্থরের মানুষের জন্য পরম মমতার স্থান হিসেবে ফেইথ এবং এর কর্নদার একজন মোসলেহ উদ্দিন আহমদ অতিথী পরায়ন মানুষ হিসাবে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেছেন ৷ ব্যবসার দিক দিয়ে বেশ রমরমা ভাব ৷

আজকের ফেইথ এ পর্যায়ে যাদের শ্রম জড়িত অপু রায়,এহিয়া সায়েল,মাসুদ,রিয়াজ ইসলাম সহ তারণ্যে শক্তির সৃজনের ধারাবাহিকতায় ৷

শুধু তাই নয়, দেশ বিদেশের মন্ত্রী থেকে শুরু করে সকল পেশার মানুষ লন্ডনে এলে একটি বার হলেও ভিজিট করেন পূর্ব লন্ডনের এই প্রতিষ্ঠানটিতে ৷

ঢাকা জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক ফরিদা পারভীনের ফেইথে আগমন
বাংলাদেশ সরকারের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের ফেইথ পরিদর্শন

মোসলেহ উদ্দিন আহমদ মৃদুভাষী, অন্তর দিয়ে তার ভালোবাসা প্রকাশ করেন শত ব্যস্থতার মাঝেও ৷

ফেইথ পূর্ব লন্ডনের মধুর কেন্টিন হিসেবে অনেক বছর ধরে ঠিকে থাকবে এটাই প্রত্যাশা ৷

যান্ত্রিক জীবনের নির্মল আড্ডার স্থান, অথবা মন খারাফের গাড়ীকে হালকা করতে,একজন মোসলেহ উদ্দিন আহমদ অথবা ফেইথ বরাবর থাকুক, উৎসবের আঙ্গিনা হিসাবে ৷

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Advertisement