নর্থহ্যাম্পটনের স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা সেন্টার ফর পলিসি, প্রমোশন এন্ড প্রিভেন্সন (সি পি পি পি) ব্রিটিশ বাংলাদেশি কমিনিউটির জন্য এক নতুন উদ্যোগ হাতে নিয়েছে। জানুয়ারী থেকে নতুন প্রজেক্টের মাধ্যমে নর্থহ্যাম্পটনে বসবাসরত বাংলাদেশি বয়স্ক নাগরিকদের মধ্যে বিনামূল্যে স্বাস্থ্যকর, ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ, অল্প কাল্যোরি, লো কার্বোহাইড্রেট, লো ফ্যাট খাদ্য পাক্যেট এবং কি ভাবে নিজেদের ঘরে এই পদ্ধতি অনুসরণ করে নিজে নিজেই এই রকম খাবার পরবর্তীতে রান্না করা যায় সেই রেসিপি এবং রান্না করার প্রণালীর প্রিন্ট কপি খাদ্যের সাথে বিতরণ করবে

নর্থহ্যাম্পটন শহর এবং শহরতলিতে প্রায় তিন শতাধিক বাংলাদেশি পেনসনভুক্ত এবং বয়স্ক পুরুষ ও মহিলা একা অথবা বর্ধিষ্ণু পরিবারের সাথে বসবাস করছেন সাম্প্রতিককালের করোনা মহামারী বাংলাদেশি সম্প্রদায়ের উপর বয়ে এনেছে এক বিশাল মৃত্যু মিছিল, হারিয়ে গেছে অনেক প্রাণ। 

মেডিকেল রিসার্চ, পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ড এবং অফিস অফ ন্যাশনাল স্টেটিসটিক্সের জরিপে বের হয়ে এসেছে যে ব্রিটেনে এথনিক কমিউনিটি বিশেষ করে বাঙ্গালি সম্প্রদায়ের জন্য খুবই বিপজ্জনক হয়ে দাঁড়িয়েছে করোনা ভাইরাস। বিশেষ করে স্বাস্থ্য দুর্বলতা, শরীরে ভিটামিন ডি এর অভাব, নিয়মিত শরীর চর্চা বা ব্যায়াম না করা, ব্লাড প্রেশার, বহুমূত্র এবং হৃদরোগ ইত্যাদি অসুখ-বিসুখের কারনে করোনা ঝুঁকি বেশি বাঙালিদের জন্যে।

খাদ্যাভাসেও মারাত্বক সমস্যা রয়েছে বাঙালী কমিউনিটিতে।বাঙালী সমাজ বা পরিবার নিত্যনৈমত্তিক আহার এবং রন্ধন প্রণালি সহ খাদ্য প্রস্তুত ব্যবাস্থায় কিছু পরিবর্তন আনা অত্যাবশ্যক বলেও মনে করছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞগণ  যেমন অতিরিক্ত তেল, ঘি, পেয়াজ, লবণ, তেলে ভাজা, চর্বি জাতিয় খাদ্য, কার্বোহাইডেট ও অতিরক্ত বা বেশি পরিমানে আহারের কারণে রোগবালাইয়ের ঝুঁকি বেশি থাকে।

বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুযায়ী সি পি পি পি বিনামূল্যে ফুড প্যাকেট বিতরণ এবং সাথে খাদ্য বানানোর রন্ধন প্রণালি, রেসিপি, ক্যালোরি বিশ্লেষণ সম্মিলিত বাংলা ইংরেজিতে প্রিন্ট করা খাদ্য সচেতনতা বৃদ্ধি করার লিফলেট বিতরণ করবে

সিপিপিপি’র ফাউন্ডার এবং প্রধান নির্বাহী ইমরান চৌধুরী বলেন যে, কম্যুনিটির বয়োবৃদ্ধদের রক্ষা করা আমাদের গুরু দায়িত্ব, তারা তাদের সারাজীবন ব্যয় করেছেন এই কমিউনিটির জন্যে। তাই তাদের জন্যে ব্যতিক্রমি এই উদ্যোগ নিয়েছে সিপিপিপি।

তিনি আরও বলেন যে, তাদের চ্যারিটির নিজস্ব ন্যুইট্রিসনিস্ট মিস  সিনারিস খাদ্য বানানোর প্রণালী, মসলা, কন্ডিমেন্ট, রান্না করার সিস্টেম এবং তেল ব্যবাহার সহ তাপমাত্রাসময় এর সামান্য তম পরিবর্তন, পরিবর্ধন এবং রান্না বদলানোর ফলে আমাদের প্রণোদিত রেসিপির ফুড প্যাকেটের ক্যালোরি  ১৫৭৫ থেকে ৫০০৬০০ ক্যালোরি কমিয়ে ৯০০ ক্যালোরিতে আনতে সক্ষম হয়েছেন। যা কিনা একটি মাইল ফলক উদ্ভাবন। যদি আমাদের কম্যুইনিটি একটু সচেতন হয় এই নতুন প্রণালিতে রন্ধনপ্রক্রিয়া গ্রহন করে তাহলে স্বাস্থ্যগত ভাবে ব্যাপক পরিবর্তন আনতে সক্ষম হবে

সি পি পি পি এই প্রজেক্ট টি নর্থহ্যাম্পটনশায়ার কম্যুনিটি ফাউন্ডেসনের  আর্থিক সহায়তা ভুক্ত এবং আর দুইটি  নর্থহ্যাম্পটন অবস্থিত  বাংলাদেশি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানআল হামরা সুপার মার্কেট এবং সাফ্রন নর্থহ্যাম্পটন দ্বারা স্পন্সরকৃত

Advertisement