বার্মিংহ্যামে বাগান বিলাসীদের মিলন মেলা

মিলন মেলায় সারা ইউকের মধ্য দ্বিতীয় হয়েছে এহসানুল ইসলাম চৌধুরী শামীমের বাগান

এহসানুল ইসলাম চৌধুরী শামীম।।
যুক্তরাজ্যের লন্ডন, বার্মিংহাম, নর্থাম্পটন, লুটন, ব্রেডফুড, লেস্টার, ব্রাডফোর্ড, কভেন্ট্রিসহ বিভিন্ন শহর থেকে প্রায় দুই শতাধিক বাগান বিলাসী বাঙালীদের উপস্থিতিতে প্রথমবারের মত বার্মিংহামে অনুষ্ঠিত হলো এক মিলন মেলা।
ফরমালিনযুক্ত নয় ফরমালিনমুক্ত শাকসবজি খাওয়ার প্রত্যয়ে আয়োজকরা অনুষ্ঠানের নাম দিয়েছেন অমরাবতী মিলন মেলা। এই মিলন মেলাকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশী শাকসবজি ফুলের চাষ করা সৌখিন বাগান বিলাসী বাঙালীদের ঢল নেমেছিলো বার্মিংহামের আষ্টনের বাংলাদেশ মাল্টিপারপাস সেন্টারে। অধিকাংশরাই সাথে করে নিয়ে এসেছিলেন তাদের বাগানের কিয়দংশ, এসবকে সারিবদ্ধভাবে সাজিয়ে দেশীয় শাক-সবজি-ফুলের ছোট ছোট বৃক্ষমালা দিয়ে প্রদর্শন করা হয় প্রদর্শনীরও। বড় আকারের ছবি এবং তাও দেয়ালে টাঙিয়ে দেওয়া হয়। প্রথমবারের মতো বাগান বিলাসীদের এই মিলন মেলা ও আয়োজন দেখে আগতরা ছিলেন বিমোহিত।
২২ সেপ্টেম্বর, দুপুর বারোটা থেকে বিকাল ৭টা পর্যন্ত চলা অমরাবতী মিলন মেলায় রঞ্জু মিয়া ও রাশিয়া খাতুনের প্রাণবন্ত সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন বার্মিংহামের বাংলাদেশের সহকারী হাইকমিশনার মোহাম্মদ নাজমুল হক।


অমরাবতি নামে এই মিলন মেলা উদ্বোধন করেন এটিএন বাংলা ইউকের সিইও হাফিজ আলম বক্স।

তিনি বলেন, এ ধরনের বাগান বিলাসীদের মিলন মেলা আমি ব্রিটেনে প্রথম দেখলাম। অনেকেই নানা ধরনের শাক সবজির গাছ এনেছেন। তাই আমার খুব ভালো লেগেছে। এ মিলন মেলায় উপস্থিত হতে পেরে আনন্দিত।
বাগান বিলাসীদের এই আয়োজনে ছুটে আসেন অনেক সুধীজন বিশিষ্ট কমিউনিটি একটিভিস্ট আবদুল মালেক পারভেজ বললেন, অমরাবতি গ্রুপের জন্মের ৬ মাসের মধ্যে এই বিরাট আয়োজন সত্যিই প্রশংসার দাবী রাখে- গ্রুপের ফাউন্ডার সেবুল চৌধুরী ও এডমিন সুলতানা রহমান সহ গ্রুপের সব সদস্যদের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল আজকের এই সুন্দর আয়োজন, সবাইকে আমি আমার অন্তরের অন্তস্থল থেকে জানাই আন্তরিক মোবারকবাদ ও ধন্যবাদ।
গ্রুপের মাধ্যমে যদিও পরিচয় তবে আজই প্রথম অনেকের সাথে দেখা হলে কথাবার্তা হলো, মনে হলো যেন অনেক দিনের পরিচয় আর সবাই যেন আপনজন।
আবদুল মালেক পারভেজ আরো বলেন,
মানুষ ও প্রকৃতির সম্পর্ক চিরন্তন, প্রকৃতি ছাড়া যেমন মানুষ বাছে না তেমনি মানুষ ছাড়া প্রকৃতির কোন মূল্য নাই। প্রকৃতিকে ভালবাসা মানেই মানুষকে ভালবাসা। প্রকৃতি রং ছডায় সুন্দরের আর মানুষ ভালবাসে সেই সুন্দরকে।

মানুষ ও প্রকৃতির যোগসুত্রই পৃথিবীকে বাঁচিয়ে রাখতে পারে- গড়ে তোলতে পারে সুখী সুন্দর জীবন।অমরাবতি মেলা মানে প্রকৃতি প্রেমিকদের মেলা- আজকের এই মেলা আমাদের জন্য এবং আমাদের ছেলে মেয়েদের জন্য এক প্রেরনার উৎস হয়ে থাকবে বলে আমি মনে করি, তাছাড়াও অমরাবতির এই মেলা অমরাবতি গ্রুপের আগামী পথ চলার এক গৌরবউজ্জল মাইল ফলক হিসেবে স্থান করে নিলো।

আসুন আমরা একসাথে মিলে প্রকৃতির জয়গান গাই আর মাটি ও মানুষকে ভালবাসি। মানুষ যদিও কখনও কখনও একে অন্যকে ঠকায় কিন্তু মাটি কখনও আমাদেরকে ঠকানে না, মাটিতে বীজ রোপন করলে মাটি অবশ্যই আমাদেরকে এর প্রতিদান দিবে।

অনুষ্ঠানে বিভিন্ন শহর থেকে আসা বাগান করা বাঙালী রমণীরা মঞ্চে গিয়ে তাদের অভিজ্ঞতার কথা বর্ণণা করেন।

শুধু বাগান করাদের নিয়ে ভিন্নরকম এই মিলন মেলা আয়োজন নিয়ে এর প্রধান আয়োজক কলামিষ্ট শেবুল চৌধুরী ফরমালিনযুক্ত নয় ফরমালিনমুক্ত শাক সবজির বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে তুলে ধরেন। বললেন,মিলন মেলায় সবার সম্মিলিত প্রচেষটায় অমরাবতি আগামীতে আরো বড় ধরনের আয়োজন নিয়ে বিনোদনের এক উতস হয়ে আমাদেরকে প্রেরনা যোগাবে এই প্রত্যাশা।

আয়োজক কমিটির অন্যান্যদের মুখে ছিলো কমিউনিটির মানুষদের বাগান করার বিষয়ে উৎসাহী করার উদ্যোগ।

আমরাবতী মিলন মেলায় প্রদর্শন করা হয় একটি প্রামাণ্যচিত্রও। ছিলো বাগান বিলাসীদের বাগান নিয়ে প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরনী এবং শিশু কিশোরদের পরিবশেনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক পরিবেশনা,বড়দের কৌতুক এবং সঙ্গীত।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Advertisement