ব্রিটিশ ফরেন এইড বাজেট কর্তন করে সমালোচনার মুখে ঋষি সোনাক

ব্রিটবাংলা ডেস্ক : ব্রিটিশ ফরেন এইড বাজেট কর্তন করে শূন্য দশমিক ৫ শতাংশে নামিয়ে আনায় তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছেন বিলিয়নিয়ারের জামাতা এবং ভারতীয় বংশোদভূত চ্যান্সলার ঋষি সোনাক।

ভারতের ষষ্ঠ ধনী, শিল্পপতি এন আর নারায়ন মুর্তির মেয়ে আকশাটা মুর্তির সঙ্গে ২০০৯ সালে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ ঋষি সোনাক। তাদের দু কন্যা সন্তান। আকশাটা মুর্তি নিজেও একজন শিল্পপতি।

বুধবার পার্লামেন্টে জাতীয় ব্যয়ের ত্রৈমাসিক পর্যালোচনায় ২০২০-২১ অর্থ বছরে ব্রিটিশ ফরেন এইড বাজেট শূন্য দশমিক ৭ শতাংশ থেকে কমিয়ে শূন্য দশমিক ৫ শতাংশে অর্থাৎ ১০ বিলিয়ন পাউন্ডে নামিয়ে আনার ঘোষণা দেন তিনি। চ্যান্সেলারের ঘোষণা অনুযায়ী বছরে ৪ বিলিয়ন পাউন্ড সেইভ করতে সক্ষম হবে সরকার।

২০১৯ সালের নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী মোট জাতীয় আয়ের শূন্য দশমিক ৭ শতাংশ ফরেন এইডখাতে ব্যয় করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল টোরি। সে হিসেবে চলতি বছর ব্রিটিশ ফরেন এইডের পরিমান ছিল প্রায় ১৫ বিলিয়ন পাউন্ড। কিন্তু নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করে ফরেন এইডের পরিমান অন্তত শূন্য দশমিক ২ শতাংশ কর্তনের প্রতিবাদে তাৎক্ষনিকভাবে পদত্যাগ করেছেন ফরেন অফিস মিনিস্টার ব্যারোনেস স্যাগ।

এদিকে ব্রিটিশ ফরেন এইড বাজেট কর্তনের তীব্র সমালোচনা করেছেন কনজারভেটিভ পার্টির সাবেক প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামরন, সাবেক হেলথ সেক্রেটরী, লেবার পার্টির সাবেক প্রধানমন্ত্রী টনি ব্লেয়ার, আর্চ বিশপ অব ক্যান্টারবারী জাস্টিন ওয়েলবি এবং নোবেল জয়ী মালালা ইউসুফজাই। চ্যান্সেলারের এই সিদ্ধান্তকে ভূল এবং মর্মান্তিক বলে অভিহিত করেছেন তারা।

আবার অন্য একটি পক্ষ বলছেন, সাময়িক সময়ের জন্যে সরকার ফরেন এইড বাজেট কর্তন করে সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তাদের মতে, চলতি বছর সরকারের ঋণের পরিমান ৪ বিলিয়ন পাউন্ডের উপরে। গত ৩শ বছরের ইতিহাসে ব্রিটিশ অর্থনীতি এতো সংকুচিত হয়নি। অর্থনীতি সংকুচিত হয়েছে প্রায় ১১ দশমিক ৩ শতাংশ। এই অবস্থায় দেশের ভেতরেই যেখানে তীব্র অর্থনৈতিক সংকট সেখানে দানের পরিমান কিছুটা কমলে অসুবিধা হবার কথা নয়।

 

Advertisement