ব্রেক্সিটের জন্য অনুশোচনায় ভোগেন ডেভিড ক্যামরন

ব্রিটবাংলা ডেস্ক : কেবিনেটে থেকেও ২০১৬ সালের রেফারেন্ডামের লিভ ক্যাম্পেইনে মিথ্যাচার করে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এবং মাইকেল গভ তৎকালিন সরকারের বেশ ক্ষতিসাধন করেছেন অভিযোগ করেছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামরন। তিন বছর আগে টেন ডাউনিং স্ট্রীট ত্যাগের পর এই প্রথম টাইমস নিউজ পেপারের সঙ্গে দেওয়া এক স্বাক্ষাতকারে সাবেক প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, রেফারেন্ডমের ফলাফলে তিনি এখনো অনুশোচনায় ভুগেন।
সাবেক প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামরন ২০১০ সালে প্রথম ক্ষমতায় আসেন। এরপর ২০১৫ সালের নির্বাচনেও কনজারভেটিভ পার্টিকে ক্ষমতায় নিয়ে আসেন তিনি। তবে নির্বাচনের আগে ওয়াদা করেছিলেন, ক্ষমতায় গেলে ইইউ রেফারেন্ডাম দিবেন তিনি। ওয়াদা অনুযায়ী, ২০১৬ সালের ২৩শে জুন ইউরোপিয়ান ইউনিয়নে থাকা, না থাকা প্রশ্নে রেফারেন্ডামের ঘোষণা দেন ডেভিড ক্যামরন।
রেফারেন্ডামে তিনি রিমেইনের পক্ষে ক্যাম্পেইনও করেন। তবে রেফারেন্ডামে লিভ ক্যাম্পেইনার ছিলেন তৎকালিন কেবিনেট সদস্য মাইকেল গভ এবং বর্তমান প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। লিভ ক্যাম্পেইনে মিথ্যাচার করে তারা তৎকালিন সরকারের বেশ ক্ষতিসাধণ করেছেন বলেও টাইমসের সঙ্গে স্বাক্ষাতকারে অভিযোগ করেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

শনিবার প্রথমবারের মতো স্বাক্ষাতকারে রেফারেন্ডামের সিদ্ধান্ত এবং ব্যর্থতার জন্যে নিজের গভীর অনুশোচনার কথা বলেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামরন। নিজের রাজনৈতিক স্মৃীতি নিয়ে লেখা বই প্রকাশনাকে উপলক্ষ করে সংবাদ মাধ্যমে এসেছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামরন। বইয়ের লভ্যাংশ চ্যারিটিতে দিয়ে দিবেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Advertisement