মাইগ্রেশন ফান্ড থেকে পাওয়া অনুদানের অর্থে টাওয়ার হ্যামলেটস চমৎকার কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে- লর্ড বরনি

টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের নতুন একটি কর্মসূচি কিভাবে এখানে বসবাস করতে আসা নতুন অভিবাসী ও শরাণার্থীদের সহায়তা করছে, তা দেখতে এসেছিলেন মিনিস্ট্রি অব হাউজিং, কমিউনিটিজ এন্ড লকাল গভর্ণমেন্ট এর পার্লামেন্টারি আন্ডার সেক্রেটারী অব স্টেট কমিউনিটিজ মিনিস্টার লর্ড বার্নি। ২০ আগষ্ট বেথনাল গ্রীণের সানডিয়াল সেন্টারে তাদের স্বাগত জানান স্ট্যাটুটরি ডেপুটি মেয়র এবং আবাসন বিষয়ক কেবিনেট মেম্বার, কাউন্সিলর সিরাজুল ইসলাম।

পরিদর্শনকালে এই সেন্টারে স্থানীয় ১০ জন বাসিন্দা ইংলিশ শিখছিলেন। তাঁরা অতিথিদের জানান যে, এই ভাষা শিক্ষণ কার্যক্রম তাদের আত্মবিশ্বাস বাড়াতে, নতুন দক্ষতা অর্জনে এবং কমিউনিটির সাথে অধিকতর সম্পৃক্ত হতে তাদের সাহায্য করছে। লন্ডনের ইস্ট এন্ডের রয়েছে অভিবাসীদের স্বাগত জানানোর দীর্ঘ ইতিহাস। মিনিস্টারকে জানানো হয় যে, বারার অধিবাসীদের ওপর চালানো এবারের বার্ষিক মতামত জরিপে ভিন্ন ভিন্ন কমিউনিটির ৮৬ শতাংশ বাসিন্দাই বলেছেন যে, তারা টাওয়ার হ্যামলেটসে মিলেমিশে বসবাস করতে পেরে সন্তুষ্ট। মাইগ্রেন্ট বা অভিবাসী ও শরণার্থীদের প্রয়োজনীয় সহযোগিতামূলক সেবা দিতে কাউন্সিল ৫ লাখ পাউন্ডের সরকারী তহবিল লাভ করেছে।ভিন্নভাষীদের ইংলিশ শেখাতে বিভিন্ন ধরনের ইংলিশ শেখানো ও ইংরেজী ভাষায় যোগাযোগ দক্ষতা আরো উন্নত করার কার্যক্রম স্থানীয় কমিউনিটি ও ভলান্টারি সংগঠনগুলো পরিচালনা করছে। এর মধ্যে রয়েছে ইসল (ইএসওএল) ক্লাস, কথোপকথন ক্লাব, স্বেচ্চছাসেবামূলক কার্যক্রম এবং ষ্ক্রওয়েলকাম টু টাওয়ার হ্যামলেটসম্ব প্যাক। এ প্রসঙ্গে নির্বাহী মেয়র জন বিগস বলেন, টাওয়ার হ্যামলেটসে আমাদের ইসল ক্লাসের গুরুত্ব অনেক। আমি ইংরেজী ভাষা শিক্ষার এই কর্মসূচিসহ কারিগরি শিক্ষার ক্লাসের সংখ্যা বাড়াচ্চিছ, যাতে বারার বাসিন্দারা কর্মক্ষেত্রে আরো ভালো করতে ইংরেজীতে তাদের দক্ষতা আরো বাড়াতে সক্ষম হন। অভিবাসীদের জন্য সরকারী অনুদান চেয়ে আমাদের আবেদন সফল হওয়ায় আমি সন্তুষ্ট।

ডেপুটি মেয়র ও হাউজিং বিষয়ক কেবিনেট মেম্বার, কাউন্সিলর সিরাজুল ইসলাম বলেন, লর্ড বর্নির সাথে সাক্ষাত করতে পেরে এবং সরকারী অনুদানের অর্থে বাসিন্দাদের জন্য সুফলদায়ক কার্যক্রম দেখাতে পেরে আমি আনন্দিত। এই ভাষা শিক্ষণ কার্যক্রম ইংরেজী যাদের মাতৃভাষা নয়, তাদের জীবনে গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন আনবে এবং দক্ষতা বাড়াবে। আমাদের এই বারায় আগত নতুন কমিউনিটিকে সাহায্য করতে পেরে আমি গর্বিত।

কমিউনিটিজ মিনিস্টার লর্ড বরনি বলেন, মাইগ্রেশন ফান্ড থেকে পাওয়া অনুদানের অর্থে টাওয়ার হ্যামলেটস কিভাবে চমৎকার কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে, যা অন্যদের জন্য উদাহরণ। এই প্রজেক্ট নতুন আগত অভিবাসী ও শরণার্থীদের কিভাবে সাহায্য করতে তা দেখে আমি অভিভূত এবং এ ধরনের আরো সাফল্যের কথা শোনার জন্য আগামীতে অপেক্ষা করবো।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Advertisement