মেসিকে ম্যানচেস্টার সিটির লোভনীয় প্রস্তাব

ব্রিট বাংলা ডেস্ক :: আবারো দেখা যাবে মেসি-গার্দিওলা জুটি?২০০১ সালে ছোট্ট মেসি বার্সেলোনায় পা রেখেছিলেন একটি টিস্যু পেপারে চুক্তি করে। ১৯ বছরের বন্ধন ছিন্ন করার খবরে তাই বিশ্বজুড়ে আলোড়ন তুলেছে। ফুটবলের রাজপুত্রকে বার্সেলোনার জার্সিতেই শেষ ম্যাচ খেলার স্বপ্ন দেখেছিলেন কোটি কোটি ফুটবলপ্রেমী। আর্জেন্টাইন মহাতারকাও সেটাই চেয়েছিলেন। কিন্তু সময়টা বেশ কঠিন। নানা সমস্যায় জর্জরিত কাতালান ক্লাবটিতে আর মন টিকছে না মেসির। বার্সেলোনার সঙ্গে ২০২১ সালের জুন পর্যন্ত চুক্তি থাকলেও সেটার ইতি টেনে ভিন্ন জার্সির চ্যালেঞ্জ নিতে চান ৩৩ বছর বয়সী আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। মেসিকে দলে ভেড়াতে প্রতিযোগিতায় নেমেছে ম্যানচেস্টার সিটি, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, প্যারিস সেন্ট জার্মেই (পিএসজি) ও ইন্টার মিলান।

ইসপিএন জানিয়েছে, এদের মধ্যে সবচেয়ে লোভনীয় প্রস্তাবটা দিতে চলেছে ম্যানচেস্টার সিটি।

ম্যানচেস্টারের আকাশী-নীলদের সেই প্রস্তাবটা কেমন? ইএসপিএনের দাবি, ‘ম্যানসিটির জার্সিতে তিনবছর খেলার পর তাদেরই আরেক ক্লাব যুক্তরাষ্ট্রের মেজর সকার লীগের দল নিউইয়র্ক সিটিতেও কয়েকবছর খেলতে পারবেন মেসি। সঙ্গে ‘‘ম্যানচেস্টার সিটি ফুটবল গ্রুপে’’র অ্যাম্বাসেডর হওয়ারও সুযোগ পাবেন সর্বকালের অন্যতম সেরা ফুটবলার’- এমন একটা প্রস্তাব মেসির জন্য চূড়ান্ত করেছে সিটিজেনরা। আর্জেন্টাইন সুপারস্টারের সঙ্গে সিটির চুক্তিটা তাই হতে পারে লম্বা সময়ের জন্য। গত সোমবার ইএসপিএন জানিয়েছিল, মেসিকে দলে ভেড়ানোর পরিকল্পনা শুরু করে দিয়েছে ম্যানসিটি।

এখনো মেসির রিলিজ ক্লজের ৭০০ মিলিয়ন নিয়ে অধিনায়কের সঙ্গে সমঝোতা হয়নি বার্সেলোনার। সেটা আদালত পর্যন্ত গড়ানোরও সম্ভাবনা রয়েছে। ট্রান্সফার ফি হিসেবে সিটিজেনরা মেসির জন্য সর্বোচ্চ ১৫০ মিলিয়ন ইউরো বার্সেলোনাকে দিতে রাজি বলে জানিয়েছে ইএসপিএন। কাতালানদের সঙ্গে মেসির চুক্তির ইতি টানার নানা বিষয়ের উপর প্রতিনিয়ত নজর রাখছে তারা।

ইএসপিএনকে একটি সূত্র আরো জানায়, গত সোমবার মেসির এক সময়ের ক্লাব কোচ পেপ গার্দিওলার ফোনে আর্জেন্টাইন সুপারস্টারকে ম্যানসিটির ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন।

ম্যানচেস্টার সিটির লক্ষ্য বিশ্বের সেরা ক্লাবে পরিণত হওয়া। আর মেসির চাওয়া, ক্যারিয়ারের শেষদিকে এসে বর্ণিল এক বিদায়। যাতে থাকবে ট্রফির ছোঁয়া। সিটিজেনদের প্রস্তাব মেসির মনে ধরেছে কি না সেটা জানতে তাই অপেক্ষা করা ছাড়া উপায় নেই ফুটবলপ্রেমীদের।

Advertisement