ব্রিটবাংলা ডেস্ক : করোনা মহামারীতে নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়েও হাসপাতালে দিন রাত সেবা দিয়ে যাচ্ছেন ডাক্তার ও নার্সরা। ব্রিটেনে হাসপাতালগুলোতে বর্তমানে প্রায় ৩৮ হাজারের বেশি করোনা রোগি চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ডাক্তার এবং নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রম আর সেবার কারণে কেউ কেউ করোনা মুক্ত হয়ে পরিবারের কাছে ফিরে আসেন। আবার কেউ কেউ চলে যান পরপারে। বিশ্বব্যাপি ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিস বা এনএইচএসের ব্যাপক সুনাম রয়েছে। কিন্তু এনএইচএসের সেবা বা সার্ভিস নিয়ে মাঝে মাঝেই নেতিবাচক কথা শুনা যায়। এনএইচএস বা হাসপাতালে সেবার মান নিয়ে সম্প্রতি এরকমই একটি নেতিবাচক অভিযোগ করেছেন লন্ডনের এক বাঙালী পরিবার। ইস্ট লন্ডনের বাঙালী অধ্যুষিত টাওয়ার হ্যামলেটসের বাসিন্দা, ব্যবসায়ী আব্দুল দয়াস মিয়ার ঘর থেকে মাত্র পাঁচ মিনিটের পায়ে হাটার পথ হল রয়েল লন্ডন হাসপাতাল। গত ৬ জানুয়ারী, তার ৮৬ বছর বয়সী মাকে ইউরিন সমস্যার কারণে হাসপাতালে নিয়েছিলেন। এরপর প্রতিদিন অন্তত দু’বার টেলিফোনে খবরা খবর নিতেন। তখন নার্সরা জানাত, তার মা টিক আছেন। সময় মত খাচ্ছেন। কিন্তু ১৩ জানুয়ারী হঠাৎ করেই হাসপাতাল থেকে টেলিফোন আসে, তার মায়ের অবস্থা খারাপ। যে কোনো সময় তিনি চলে যেতে পারেন। কিন্তু ১৪ জানুয়ারী মাকে ঘরে নিয়ে আসেন আব্দুল দয়াস। রয়েল লন্ডন হাসপাতালে নন কোভিড রোগিদের কিভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয় এবং কিভাবে আব্দুল দয়াস তার মায়ের জীবন রক্ষা করলেন? তা শুনতে নিচের ভিডিওতে ক্লিক করুন।

Advertisement