লন্ডনের রেডব্রিজে ছুরিকাঘাতে ১ জনের মৃত্যু : Man stabbed to death in Hainault

ব্রিটবাংলা ডেস্ক : লন্ডনের বিভিন্ন এলাকায় শুক্রবার রাতে পৃথক তিন ঘটনায় ১ জনের মৃত্যু হয়েছে। বাকী তিনজন গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

মেট পুলিশ জানিয়েছে, ইস্ট লন্ডনের রেডব্রিজ বারার হেইনল্টে ছুরিকাঘাতে ২৩ বছর বয়সী এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। একই ঘটনায় ২২ বছর বয়সী অপর এক ব্যক্তি গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। হেইনল্টের ম্যানফোর্ড ওয়েতে শুক্রবার রাত আনুমানিক ১০টা ২০ মিনিটের দিকে এই ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থলেই ২৩ বছর বয়সী ব্যক্তির মৃত্যু হয়।

অন্যদিকে রাত আনুমানিক সাড়ে ৯টার দিকে হ্যাকনির আমহার্স্ট রোডে একজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। দু’জন মোটরবাইক আরোহি তাকে গুলি করে পালিয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ। তবে তার জীবন ঝুঁকিমুক্ত বলেও পুলিশ জানিয়েছে।

অপরদিকে শুক্রবার গভীর রাত আনুমানিক তিনটা ২০ মিনিটের দিকে কেমডেনে গুরুতর আহত অবস্থায় দু ব্যক্তিকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। মাথায় গুরুতর আহত অবস্থায় ফার্দিনান্দ স্ট্রীট থেকে তাদের উদ্ধারের পর ২০ বয়সী এক ব্যক্তিকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তার অবস্থা গুরুতর বলে পুলিশ জানিয়েছে। অপর ব্যক্তি হাসপাতালের চিকিৎসা নিতে চাননি।

উপরের তিন ঘটনায় কাউকেই গ্রেফতার করা হয়নি বলেও পুলিশ জানিয়েছে।

 

A man has been killed and another is in a critical condition after a stabbing in north-east London.

The man, believed to be 23, was found dead in Manford Way, Hainault, at about 22:20 BST, the Met Police said.

The other man, thought to be 22, was taken to hospital for treatment. A murder investigation is under way.

In a separate incident, a man was shot in Hackney earlier on Friday night. Police think the two offenders were riding a moped.

The emergency services were called to the scene on Amhurst Road, near the junction with Downs Passage, at about 21:30.

The victim was taken to hospital. His condition is not believed to be life-threatening.

In a further attack, two men were discovered with head injuries in Ferdinand Street, Camden, at 03:20.

One of them, aged in his 20s, was discovered lying in the road and had to be taken to a west London hospital. Police are waiting for an update on his condition.

The other man refused medical assistance.

Scotland Yard said no arrests had been made.

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Advertisement