লন্ডনে গত ৭ বছরে ৬৩ শতাংশ গৃহ নির্যাতন বেড়েছে

ব্রিটবাংলা ডেস্ক : লন্ডনে গৃহ নির্যাতনের মাত্রা আশঙ্কাজনকহারে বাড়ছে। পুলিশের রেকর্ড অনুযায়ী, ২০১১ সাল থেকে ২০১৮ সালের ভেতরে লন্ডনে গৃহ নির্যাতনের সংখ্যা দুই-তৃতীয়াংশ অর্থাত ৬৩ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। এছাড়া ২০১৮ সালে ডোমেস্টিক হোমিসাইড বা গৃহে হত্যার রিপোর্টের সংখ্যাও বেড়েছে। গত বছর লন্ডনে ২৯ ডোমিস্টিক হোমিসাইডের ঘটনা ঘটেছে। এর আগের বছরের চাইতে ৯টি বেশি। রিপোর্টে বলা হয়েছে, নির্যাতনের শিকার মহিলাদের মধ্যে তিন-চর্তুথাংশ লন্ডনে দরিদ্র এলাকার বাসিন্দা। ইস্ট লন্ডনের বার্কিং এন্ড ডেগেনহ্যামের প্রতি ১ হাজারের মধ্যে ১২ দশমিক ৬ শতাংশ মহিলা গৃহ নির্যাতনের শিকার বলে রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে। আর সবচাইতে কম গৃহ নির্যাতনের রেডর্ক হয়েছে কেনসিংটন এলাকায়।
গৃহ নির্যাতনের পাশাপাশি যৌন হয়রানীর সংখ্যাও বেড়েছে লন্ডনে। ২০১৮ সালের মার্চ থেকে এর আগের এক বছরে লন্ডনে ধর্ষনের মতো অপরাধের সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ১শ ৩৪ শতাংশ। ২০১২ সালের মার্চ থেকে আগের বছরের তুলনায় চার হাজারের বেশি ধর্ষণের মতো অপরাধের সংখ্যা বেড়েছে।
এদিকে লন্ডন মেয়র সাদিক খানের অফিস থেকে জানানো হয়েছে, লন্ডনে অব্যাহত ডোমিস্টিক এবিউস বা গৃহ নির্যাতন বৃদ্ধি প্রতিরোধে লন্ডন মেয়র সাদিক খান অতিরিক্ত ১৫ মিলিয়ন পাউন্ড বরাদ্দের ঘোষণা করেছেন। এই অর্থ সংগ্রহের জন্যে তিনি লন্ডনের বিজনেস রেইট বাড়িয়ে দেন। এই অর্থ দিয়ে লন্ডনে নির্যাতিত মহিলাদের রক্ষার আশ্বাস দিয়েছিলেন তিনি। মেয়রের এই বিনিয়োগের ফলেই গৃহ নির্যাতনের শিকার মহিলারা সাহস করে পুলিশে রিপোর্ট করার প্রেরণা পেয়েছেন। এর ফলেই পুলিশের রেকর্ডে লন্ডনে গৃহ নির্যাতন, হত্যা এবং ধর্ষণের মতো অপরাধের রেকর্ড বৃদ্ধি পেয়েছে বলে জানিয়েছেন লন্ডন মেয়র অফিসের এক মূখপাত্র।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Advertisement