লন্ডনে পুলিশের তাড়া খেয়ে ৫ সপ্তাহে ৩ জনের মৃত্যু (ভিডিওসহ)

ব্রিটবাংলা রিপোর্ট : লন্ডনে পুলিশের তাড়া খেয়ে গত ৫ সপ্তাহে ২ যুবক ও ১ কিশোরের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। গত ২১শে জুন ইস্ট লন্ডনের নিউহ্যামে ২৫ বছর বয়সী এডির ডি কস্টা নামে এক যুবক মারা যান। এর প্রায় ৬দিন আগে তার গাড়ি আটক করেছিল পুলিশ। অবশ্য গাড়ি আটক করার পর সে কিছু একটা গিলে ফিলেছিলো এবং তা তার গলায় আটকে যায় বলে পরবর্তীতে পুলিশের রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছিল। এরপর গত ১৬ জুলাই সাউথ লন্ডনের উইম্বলডনে পুলিশের তাড়া খেয়ে মারা যায় ১৬ বছরের আরেক কিশোর। সর্বশেষ গত ২১ জুলাই ইস্ট লন্ডনের হ্যাকনিতে মারা যান ২০ বছর বয়সী রাশান চার্লস।

নিউহ্যামে ডি কস্টার মৃত্যুর প্রতিবাদে রাতভর বিক্ষোভ করেছিলেন স্থানীয়রা। পরবর্তীতে পুলিশ এবং ময়নাতদন্ত রিপোর্টের পর সেই আন্দোলনে কিছুটা ভাটা পড়ে। এদিকে গত শনিবার হ্যাকনির যুবক রাশান চার্লসের মৃত্যর কারণ জানতে স্থানীয় পুলিশের স্টেশনের সামনে সোমবার সন্ধ্যায় বিক্ষোভ করেছেন শত শত মানুষ। ২০ বছর বয়সী রাশান চার্লস শনিবার রাত আনুমানিক ১টা ৪৫ মিনিটে পুলিশের হাতে গ্রেফতারের পর রাত ২টা ৫৫ মিনিটে রয়েল লন্ডন হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। রাশানের মৃত্যুর কারণ উদঘাটনে তদন্ত শুরু করেছে আইপিসিসি। তবে পুলিশের হাতে গ্রেফতারের আগে রাশান কিছু একাট গিলে ফেলার চেষ্টা করছিলেন বলে সন্দেহ করছে পুলিশ। পুলিশের তাড়া খেয়ে রাশান ডালস্টোনের একটি দোকানে প্রবেশ করেন। সেখানে পুলিশ তাকে হ্যান্ডকাফ লাগানের পর মাটিতে ধস্তাধস্তির একটি ভিডিও চিত্র সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়। যদিও ঘটনার প্রায় আধা ঘন্টার মধ্যে ইন্ডিপেনডেন্ট পুলিশ কম্লায়েন্ট কমিশন ঘটনার তদন্ত শুরু করে। পুলিশের তাড়ার সময় রাশান কিছু একটা গিলে ফেলার চেষ্টা করেছিলে বলেও পুলিশ ধারণা করছে।
যতো দ্রুত সম্ভব রাশানের মৃত্যুর কারণ প্রকাশ করতে আইপিসিসির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন স্থানীয় এমপি। পুলিশের রিপোর্ট প্রকাশের পূর্ব পর্যন্ত সবাইকে শান্ত থাকারও আহ্বান জানান তিনি। তদন্ত প্রক্রিয়া সম্পন্ন শেষে দ্রুত রিপোর্ট দেওয়া কথা বলেছে আইপিসিসিওি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Advertisement